ঢাকা, শনিবার 28 April 2018, ১৫ বৈশাখ ১৪২৫, ১১ শাবান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সীতাকুণ্ডে ছিনতাইয়ে জড়িত ৮ চালক ও হেলপার আটক

সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম) সংবাদদাতা: চট্টগ্রাম জেলার সীতাকুণ্ডে সর্বস্ব লুট করে চলন্ত বাস থেকে একযাত্রীকে ফেলে দেয়ার অভিযোগে বাসের চালক–হেলপারসহ ৮ জনকে আটক করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার দুপুরে সীতাকুণ্ডের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। এর আগে সকাল সাড়ে ১১টায় ভাটিয়ারী বানুরবাজার এলাকায় ইলিয়াছ হোসেন ইমন নামে ওই যাত্রীকে তারা ফেলে দেয়। পরে স্থানীয়রা বিষয়টি টের পেয়ে গাড়িসহ চালককে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে।
পুলিশ চালকের কাছ থেকে পাওয়া প্রাথমিক তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ছিনতাই চক্রের ৮ সদস্যকে আটক করেছে। অটকরাকৃতরা হলো– নোয়াখালী থানার ধর্মপুর গ্রামের ইব্রাহিম (১৮), কুমিল্লা নাঙ্গলকোট এলাকার আরিফুর ইসলাম (২০) ও কুমিল্লা নাঙ্গলকোটের মো. মহিম (২১), ভোলার মনপুরা থানার মো. আল আমিন (১৬), মীরসরাই ঠাকুরদিঘী এলাকার সামসুল হক আরমান (১৭), নোয়াখালী সেনবাগের রাকিব (১৮), কুমিল্লার দেবিদ্বারের মাসুম (১৪) ও চট্টগ্রাম আকবর শাহ থানা এলাকার রবিউল হোসেন (১৪)। তারা সকলে চট্টগ্রাম–সীতাকুণ্ড রুটে চালাচল করা ৪, ৭ ও ১১ নম্বর লাইনের গণপরিবহনের চালক ও হেলপার বলে জানা যায়।প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটককৃতরা জানিয়েছে, সেইফ লাইন ও নাভানা গাড়িতে যাত্রী তুলে তারা (চালকহেলপার) অস্ত্রের মুখে যাত্রীদের কাছ থেকে সর্বস্ব ছিনিয়ে নিয়ে মহাসড়কের কোনো একটা অন্ধকার জায়গায় ফেলে দেয়।
জানা যায়, বাসযাত্রী ইলিয়াছ হোসেন ইমন নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের মধুপুর গ্রামের গোপালপুর আলী হায়দার উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। সে নোয়াখালী থেকে একটি বাসে চট্টগ্রাম আসার পথে ভুলে কুমিরা এলাকায় নেমে যায়। সেখান থেকে লোকাল একটি বাসে চট্টগ্রামে যাওয়ার পথে চালক ও হেলপার তার মোবাইল ও টাকাসহ সর্বস্ব ছিনিয়ে নিয়ে তাকে চলন্ত বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়। পরে স্থানীয়রা বাস চালক ইব্রাহিমকে আটক করে।সার্জেন্ট সাইফুল ইসলাম বলেন, বাসচালক ইব্রাহিমের তথ্যের ভিত্তিতে এই চক্রের ৮ সদস্যকে সীতাকুণ্ডের বিভিন্নস্থান থেকে আটক করা হয়েছে। তাদেরকে সীতাকুণ্ড মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ