ঢাকা, রোববার 29 April 2018, ১৬ বৈশাখ ১৪২৫, ১২ শাবান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

অনুকূল পরিবেশ নিশ্চিত হলে মুসলিম লীগ সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে

গণতন্ত্র রক্ষার পূর্বশর্ত অবাধ, নিরপেক্ষ ও গণস্বীকৃত নির্বাচন। জনগণের অংশগ্রহণ ব্যতীত কোনো নির্বাচনই গ্রহণযোগ্য নয়। গণতন্ত্র রক্ষার স্বার্থে একাদশ সংসদ নির্বাচনের পূর্বে ভোটদানের নিরাপদ পরিবেশ সরকার সৃষ্টি করলে বাংলাদেশ মুসলিম লীগ অনুষ্ঠিতব্য সংসদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে বলে ওয়ার্কিং কমিটির সভা সিদ্ধান্ত নিয়েছে। নির্বাচনে প্রার্থী বাছাইয়ের জন্য জেলা কমিটিগুলোকে দায়িত্ব দেয়া হয়। মুসলিম লীগসহ প্রতিটি রাজনৈতিক দলই নির্বাচন কমিশন ও সরকারের নির্বাচনী পরিবেশ তৈরিমুখী কর্মকা-ের প্রতি তীক্ষè নজর রাখছে।

দলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সাবেক এমপি বদরুদ্দোজা আহমেদ সুজার সভাপতিত্বে ও শেখ এ সবুরের সঞ্চালনায় গতকাল শনিবার নয়াপল্টনস্থ দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত কেন্দ্রীয় ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকে আরও বক্তব্য রাখেন দলের নির্বাহী সভাপতি আব্দুল আজিজ হাওলাদার, মহাসচিব কাজী আবুল খায়ের, প্রেসিডিয়ামের  জ্যেষ্ঠ সদস্য আতিকুল ইসলাম, নাটোরের আব্দুর রশিদ খান চৌধুরী, খুলনার ওয়াজের আলী মোড়ল, এস. এম. ইসলাম আলী ও এসএম হায়দার আলী, বরিশাএলর মাওলানা কারামত ফরাজী, শরীয়তপুরের  আনোয়ার হোসেন আবুড়ী, ময়মনসিংহের আকবর হোসেন পাঠান, ঢাকার ডা. হাজেরা বেগম, কাজী এ এ কাফী, চট্টগ্রামের লিয়াকত আলী, চাঁদপুরের ফারুক আহমেদ, ফেনীর সাখাওয়াত হোসেন, এডভোকেট হাবিবুর রহমান, ইঞ্জিনিয়ার ওসমান গনী, সিলেটের আনোয়ার উদ্দিন বোরহানাবাদী, শহুদুল হক ভূঁইয়া প্রমুখ।

সভার শুরুতে, দলীয় কর্মকা-ে ধারাবাহিকভাবে অনুপস্থিত থাকার কারণে ২০১৭ সালের ২০ মে অনুষ্ঠিত সর্বশেষ ওয়ার্কিং কমিটির সভা জুবেদ কাদের চৌধুরীকে সভাপতির দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দিয়ে তদস্থলে দলের স্ট্যান্ডিং কমিটির চেয়ারম্যান এডভোকেট বদরুদ্দোজা আহমেদ সুজাকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব দেয়ার সিদ্ধান্সহ ইতঃপূর্বে অনুষ্ঠিত বিভিন্ন প্রেসিডেয়াম কমিটির সভার সিদ্ধান্তসমূহ ওয়ার্কিং কমিটির এই সভা অনুমোদন করে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ