ঢাকা, রোববার 29 April 2018, ১৬ বৈশাখ ১৪২৫, ১২ শাবান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গায় লালব্রীজে ট্রেনে কেটে দুই চাচাতো ভাই নিহত

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলা শহরের লালব্রীজে ট্রেনে কেটে দুই চাচাতো ভাইয়ের মৃতদেহ

 

চুয়াডাঙ্গা সদর সংবাদদাতা : চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলা শহরের লালব্রীজে ট্রেনে কেটে চাচাতো দুইভাই নিহত হয়েছে। শুক্রবার সন্ধ্যার পর খুলনা থেকে রাজশাহীগামী মহানন্দা আন্তঃনগর ট্রেনের ধাক্কায় তাদের মৃত্যু হয়। তারা দুজনেই এদিন সকালে আলমডাঙ্গা উপজেলার কালিদাসপুর গ্রামে তাদের নানার বাড়িতে বেড়াতে এসেছিলো। 

প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে আলমডাঙ্গা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) লুৎফুল কবীর জানান, নিহতরা হচ্ছে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার ডিঙ্গেদহ গ্রামের আলাউদ্দিনের ছেলে সুজন হোসেন (২২) ও নূর নবীর ছেলে আরাফাত হোসেন (৮)। নিহতরা সম্পর্কে তারা চাচাতো ভাই। সুজন চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের সম্মান তৃতীয় বর্ষের ছাত্র এবং আরাফাত স্থানীয় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্র। চুয়াডাঙ্গা জেলার সদর উপজেলার ডিঙ্গেদহে আলাউদ্দীনের শ্বশুর আলমডাঙ্গা উপজেলার কালিদাসপুর গ্রামের নূর ইসলাম গত ৪ দিন আগে বার্ধক্যজনিত কারণে মারা যায়। শুক্রবার ছিল নূর ইসলামের মৃত্যু উপলক্ষে মিলাদ মাহফিলের দিন। মিলাদ মাহফিল উপলক্ষে আলাউদ্দীন নিজে, তার স্ত্রী, ছেলে সুজন, আলাউদ্দীনের ভাই নূরনবী, নূরনবীর ছেলে আরাফাতসহ পরিবারের অনেকেই কালিদাসপুর এসেছিলো। দুপুরে মিলাদ মাহফিল শেষে অনার্স পড়ুয়া সুজন তার চাচাত ভাই দ্বিতীয় শ্রেণীতে পড়ুয়া আরাফাতকে নিয়ে নিকটবর্তী লাল রেল ব্রীজ দেখতে যায়। সে সময় খুলনা থেকে রাজশাহীগামী আন্ত:নগর মহানন্দা এক্সপ্রেস ট্রেনে তারা দুজনই কাটা পড়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায়। ওই দুজনই কালিদাসপুরে নানার বাড়ি থেকে লালব্রীজ দেখতে দিয়ে দুর্ঘটনার শিকার হয়। খবর পেয়ে আলমডাঙ্গা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। বিষয়টি রেলওয়ের পোড়াদহ থানায় জানানো হয়েছে। নিহতের স্বজনেরা লাশ উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে গেছে। পোড়াদহ থানার জিআরপিকে বিষয়টি অবগত করানো হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ