ঢাকা, রোববার 6 May 2018, ২৩ বৈশাখ ১৪২৫, ১৯ শাবান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

রাজনৈতিক দুর্বৃত্তায়নের উদাহরণ!

সংবাদ সম্মেলনে গুরুতর অভিযোগ করেছেন বরগুনা জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জুবায়ের আদনান অনিক। তিনি বলেন, বরগুনা-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভুর ছেলে জেলা তরুণ লীগের সভাপতি ও জেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক সুনাম দেবনাথ মাদক বিক্রি করে কোটি কোটি টাকার মালিক হয়েছেন। সুনাম দেবনাথের বিরুদ্ধে মাদকের কারবারসহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ এনে গত ২৮ এপ্রিল শনিবার জেলা ছাত্রলীগের এক সংবাদ সম্মেলনে সভাপতি জুবায়ের আদনান অনিক লিখিত বক্তব্যে বলেন, বরগুনার তরুণ সমাজ এখন ইতিহাসের ভয়ঙ্করতম সময় পার করছে। আগে শুনেছি কাজের বিনিময়ে খাদ্য মানে ‘কাবিখা’ কাজের বিনিময়ে টাকা মানে ‘কাবিটা’। কিন্তু এখন শুনতে হচ্ছে ‘মাবিরা’ মানে মাদকের বিনিময়ে রাজনীতি। মাদকের বিনিময়ে এখন অনেক তরুণই মিছিলে যায়। একটি ফেনসিডিল আর দুটি ইয়াবা ট্যাবলেটের বিনিময়ে অনেক তরুণই এখন ফেসবুকে ফেক আইডি খুলে পক্ষ-বিপক্ষের নেতাদের সম্পর্কে প্রচার ও অপপ্রচার চালায়। অনিক আরো বলেন, বরগুনার চিহ্নিত সব মাদক ব্যবসায়ীর নেতৃত্ব দেন এমপির ছেলে সুনাম দেবনাথ। তিনি কৌশলে তরুণদেরকে মাদক সেবন ও মাদক কারবারের সাথে সম্পৃক্ত করে ব্যক্তিকেন্দ্রিক রাজনীতিতে টানছেন। তিনি বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদকের পদবি ব্যবহার করে মাদক কারবারের মাধ্যমে কোটি কোটি টাকার মালিক হয়েছেন। বরগুনার বেশিরভাগ মাদকসেবী ও চিহ্নিত মাদক কারবারীরা তার ছত্রছায়ায় থাকেন। এছাড়া জেলার শীর্ষ সন্ত্রাসী অভিজিৎ তালুকদার ওরফে অভি সুনাম দেবনাথের শ্যালক। যার নামে ডাকাতি, ছিনতাই, অপহরণ, ধর্ষণ, জমিদখল এবং চাঁদাবাজিসহ প্রায় ১৬টি মামলা রয়েছে। একের পর এক ভয়ঙ্কর সব অপরাধ করেও এমপির ছেলের সহযোগিতায় পার পেয়ে যান অভি।
জেলা ছাত্রলীগের সংবাদ সম্মেলনে এমপি ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভুর ছেলের বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ উত্থাপিত হয়েছে তা খুবই মারাত্মক। রাজনৈতিক পদবি ব্যবহার করে তিনি যেভাবে মাদক ব্যবসা ও সন্ত্রাসকে প্রশ্রয় দিয়ে যাচ্ছেন, তাতে উপলব্ধি করা যায় তরুণরা কীভাবে বিপথগামী হচ্ছেন এবং রাজনীতি কীভাবে দুর্বৃত্তায়নের কবলে পড়ছে। আর ছেলে সুনাম দেবনাথের কর্মকা- সম্পর্কে তো এমপি সাহেবের অবহিত থাকার কথা। তিনি ছেলেকে শৃঙ্খলায় রাখলেতো আজ এতো অভিযোগ উঠতো না। বিষয়গুলো গুরুতর বিধায় আমরা আশা করবো, প্রশাসন সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে দুষ্টের দমনে ও শিষ্টের পালনে সঙ্গত পদক্ষেপ নেবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ