ঢাকা, সোমবার 7 May 2018, ২৪ বৈশাখ ১৪২৫, ২০ শাবান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

গাজীপুর সিটি নির্বাচন তিন মাসের জন্য স্থগিত ঘোষণা হাইকোর্টের

স্টাফ রিপোর্টার : গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন তিন মাসের জন্য স্থগিত ঘোষণা করেছেন হাইকোর্ট। সীমানা জটিলতা নিয়ে দায়ের করা একটি রিট আবেদনের শুনানি শেষে গতকাল রোববার বিচারপতি নাঈমা হায়দার ও বিচারপতি জাফর আহমেদের সমন্বয়ে গঠিত দ্বৈত বেঞ্চ এই আদেশ দেন। এছাড়া সাভারের শিমুলিয়া  ইউনিয়নের ছয়টি মৌজাকে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের অর্ন্তভুক্ত করা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না তা জানতে রুলও জারি করেন আদালত। প্রধান নির্বাচন কমিশনারসহ সংশ্লিষ্টদের আগামী ৪ সপ্তাহের মধ্যে এই রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। জানা গেছে, শিমুলিয়ার ৬টি মৌজাকে কেন্দ্র করে গাজীপুর সিটি নির্বাচনে স্থগিতাদেশ এসেছে। এসব মৌজা হচ্ছে দক্ষিণ বড়বাড়ী, ডোমনা, শিবরামপুরের অংশ, পশ্চিম পানিশালার অংশ, পানিশালার অংশ ও ডোমনাগ।
এদিকে হাইকোর্ট কর্তৃক নির্বাচন স্থগিতের ঘোষণার পর নির্বাচন কমিশন গাজীপুরে নির্বাচনের সকল কার্যক্রম স্থগিত ঘোষণা করেন। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষের প্রধান আইনকর্মকর্তা অ্যাটর্নি জেনারেল এডভোকেট মাহবুবে আলম জানিয়েছেন লিখিত আদেশ হাতে পেলে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। আর রায় ঘোষণা জানার পর গাজীপুরে নির্বাচনের সমস্ত কার্যক্রম স্থগিত রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে।
জানা গেছে, সীমানা সংক্রান্ত জটিলতার কারণে সাভারের ১ নম্বর শিমুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এবিএম আজাহারুল ইসলাম সুরুজ হাইকোর্টে রিটটি দায়ের করেন। রিটে বলা হয়েছে, ২০১৩ সালে ১ নম্বর শিমুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) ছয়টি মৌজাকে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের অন্তর্ভুক্ত করা হয়। তবে ২০১৬ সালের ইউপি নির্বাচনে ওই ছয়টি মৌজাতেও ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনে ১ নম্বর শিমুলিয়া ইউপিতে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন আজহারুল ইসলাম। পরে ওই ছয়টি মৌজাকে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনে অন্তর্ভুক্তির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করেই হাইকোর্টে রিট দায়ের করেন তিনি। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন জিএম ইলিয়াস হোসেন কচি। শুনানিতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন আইনজীবী মোখলেসুর রহমান।
আদেশের কপি পাওয়ার পর আপিলের সিদ্ধান্ত : অ্যাটর্নি জেনারেল : এদিকে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেছেন, গাজীপুর সিটি নির্বাচন স্থগিতের বিষয়ে যৌক্তিক কারণ থাকতে পারে। আইন অনুযায়ীই আদেশ হয়েছে। তবে আদেশের কপি পাওয়ার পর আপিলের বিষয়ে আমরা সিদ্ধান্ত  নেব।
মাহবুবে আলম বলেন, ২০১৩ সালে সাভারের ছয়টি মৌজাকে (শিমুলিয়া ইউনিয়নের দক্ষিণ বড়বাড়ী, ডোমনা, শিবরামপুর, পশ্চিম পানিশাইল, পানিশাইল ও ডোমনাগ) গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের অধীনে অন্তর্ভুক্ত করে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। এরপর বিষয়টি নিষ্পত্তি করতে হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়। কিন্তু তা নিষ্পত্তি না হওয়ায় পুনরায় রিট দায়ের করা হলে আদালত গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন তিন মাসের জন্য স্থগিতের আদেশ দেন।
রিটকারী চেয়ারম্যান সুরুজ আওয়ামী লীগ নেতা : গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে হাইকোর্টের স্থগিতাদেশ এসেছে ঢাকা জেলার সাভার উপজেলার শিমুলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও সাভার উপজেলা আওয়ামী লীগের শ্রম ও জনশক্তি বিষয়ক সম্পাদক এবিএম আজাহারুল ইসলাম সুরুজের করা এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে। গাজীপুর সিটিতে আশুলিয়া থানার অধীন এই শিমুলিয়াকে অন্তর্ভুক্ত করার বিরোধীতা করে রিট করেছিলেন তিনি। এবিএম আজাহারুল ইসলাম সুরুজ ২০১৬ সালে ‘নৌকা’ প্রতীক নিয়ে ইউনিয়ন নির্বাচন করেন। এর আগে ২০১১ সালের নির্বাচনে তিনি গরুর গাড়ি মার্কা নিয়ে নির্বাচন করে বিজয়ী হন।
রিট প্রসঙ্গে গতকাল এবিএম আজাহারুল ইসলামের বক্তব্য হচ্ছে,‘ঘটনা হচ্ছে ছয়টি মৌজা নিয়ে। ২০১১ সালে আমি চেয়ারম্যান হই এই ছয়টি মৌজার ভোটেই। ২০১৬ সালেও আমি চেয়ারম্যান হই এই ছয়টি মৌজার ভোটেই। গেজেট শুধু গাজীপুরের। চৌকিদারের ট্যাক্স শিমুলিয়া ইউনিয়নের, ট্রেড লাইসেন্স এই ইউনিয়নের, বৃদ্ধভাতাসহ সরকারি যা যা আছে, সবই আমার শিমুলিয়া ইউনিয়নের।’
তিনি জানান, শুধু এইবার নয়, তিনি এর আগেও দু’বার গাজীপুর সিটিতে শিমুলিয়াকে অন্তর্ভুক্ত করার বিরোধীতা করে রিট করেছিলেন। তার ভাষ্য, আমাকে এর আগে খালি খারিজ করেছে, খারিজ করেছে। এবার আল্লাহ পাক আমার প্রতি সদয়, আমিই পাইছি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ