ঢাকা, মঙ্গলবার 8 May 2018, ২৫ বৈশাখ ১৪২৫, ২১ শাবান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

প্রতিভা অন্বেষণে এবার একাডেমি কাপ : সুজন

স্পোর্টস রিপোর্টার : কিশোর-তরুণদের ক্রিকেট প্রশিক্ষণের জন্য অনেক ক্রিকেট একাডেমি ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে ঢাকায়। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) তাই উদ্যোগী হয়েছে ঢাকার একাডেমিগুলোকে নিয়ে বিসিবি একাডেমি কাপের আয়োজন করতে। বিসিবি’র গেম ডেভেলপমেন্ট কমিটি আয়োজন করছে এই একাডেমি কাপ।  মোট ৩২টি একাডেমি অংশ নেবে এই টুর্নামেন্টে। ১৫ দিনের আসরটি ২০ মে শুরু হয়ে চলবে ৫ জুন পর্যন্ত। তার আগে ১২ মে টুর্নামেন্টের ড্র অনুষ্ঠিত হবে। ১৫ থেকে ১৮ বছর বয়সী কিশোররা সুযোগ পাবে এখানে খেলার। নক আউট পদ্ধতিতে টুর্নামেন্টটি হবে ৪০ ওভারের। বিকেএসপি, সিটি ক্লাব ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় মাঠ- এই তিন ভেন্যু আপাতত চূড়ান্ত। বিসিবি’র গেম ডেভেলপমেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদ সুজন গতকাল সোমবার মিরপুর স্টেডিয়ামে সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘পুরো দেশজুড়ে আমরা ছেলেদের মধ্যে একটা আগ্রহ তৈরি করতে চাই। এবারেরটা পাইলট প্রজেক্ট। আগামীতে আমরা এটা আরও বাড়ানোর চেষ্টা করবো। এরপর অন্য বিভাগগুলো থেকেও একটা-দুইটা করে একাডেমিকে আমন্ত্রণ জানাবো।’ সুজন বলেন, ‘এখানে একেবারে ফ্রেশ খেলোয়াড়রা খেলার সুযোগ পাবে। সিসিডিএমের অন্তর্ভূক্ত ক্রিকেটারদের বাইরে এবং বয়সভিত্তিক ক্রিকেটারদের বাইরের খেলোয়াড়রা এখানে খেলার সুযোগ পাবে।’ আর উদ্দেশ্যটাও পরিষ্কার করে দিলেন সাবেক এই অধিনায়ক, ‘আমাদের উদ্দেশ্য এখান থেকে ভালো মানের কিছু খেলোয়াড় তুলে এনে তাদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা। প্রায় ৫-৬ সপ্তাহের মতো ট্রেনিংয়ের ব্যবস্থা করা। যে চারটা দল সেমি ফাইনালে উঠবে, বিসিবি চেষ্টা করবে তাদের গেম ডেভেলপমেন্টের আওতায় নিয়ে আসার। মূল কথা, তরুন ক্রিকেটারদের উৎসাহিত করতেই আমাদের এমন উদ্যোগ।’ ক্রিকেট একাডেমিগুলো শুধু ব্যবসাকেন্দ্রিক হচ্ছে কিনা সেদিকেও নজর দিচ্ছে বিসিবি। সুজন এ নিয়ে বলেন, ‘অনুশীলন সুবিধা, লেভেল-১/২ কোচিং করা কোচ আছে কিনা, কয় বছর ধরে একাডেমি চলছে...। আমাদের চাওয়া পূরণ করতে পারে না এমন কোন একাডেমিকে আমরা এবার সুযোগ দেইনি। আমাদের চেষ্টা থাকবে কোনো একাডেমি যেন ব্যবসা কেন্দ্রিক না হয়। প্রতিষ্ঠানগুলো যেন ক্রিকেটার তৈরির কারখানা হতে পারে।’ প্রতিভা খুঁজে বের করতে নির্বাচকরাও চোখ রাখবেন এখানে সুজন বলেন, ‘ওখানে আমাদের নির্বাচকরা থাকবে কিংবা গেম ডেভেলপমেন্টের লোক থাকবে। তাদের কাজটা হবে ১৫-২০ জন কিংবা আরো বেশি তরুণ প্রতিভা খুঁজে বের করা।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ