ঢাকা, মঙ্গলবার 8 May 2018, ২৫ বৈশাখ ১৪২৫, ২১ শাবান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

বিশ্বকাপের জন্য থাকবে পর্যাপ্ত ব্যাকআপ ক্রিকেটার -আকরাম খান

স্পোর্টস রিপোর্টার : নিদাহাস ট্রফির পর দীর্ঘ বিরতীতে জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা। তবে জুনে আফগান সিরিজ দিয়েই আবার টাইগারদের ব্যস্ততা শুরু। হোম ও অ্যাওয়ে মিলিয়ে অনেকগুলো সিরিজ টাইগারদের। যে ব্যস্ততা চলবে ২০১৯ বিশ্বকাপ পর্যন্ত। কিন্তু হঠাত করেই একঝাঁক তারকা ক্রিকেটার যে ইনজুরিতে। তবে আশার কথা তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহীম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদরা সেরে উঠছেন দ্রুত। ফলে দেরাদুনে আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজে তাদের সবাইকে পাওয়া যাবে বলেই খবর। তবে ২০১৯ বিশ্বকাপ সামনে রেখে পর্যাপ্ত ব্যাক আপ ক্রিকেটার তৈরি রাখতে চাচ্ছে বিসিবি। গতকাল সোমবার বিসিবির এই ভাবনার কথা জানিয়েছেন ক্রিকেট অপারেশন্স বিভাগের প্রধান আকরাম খান। ক্লেমন ইনডোর ইউনি ক্রিকেটের একটি অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন বলেন তিনি। আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের আগে ১৩ মে শুরুর হচ্ছে প্রস্তুতি ক্যাম্প। স্কোয়াডও ঘোষণা হয়ে যাবে দ্রুত। সেই স্কোয়াডে বিশ্বকাপের পরিকল্পনার ছাপও কি থাকবে না? মন প্রশ্নে আকরাম বলেন, ‘শতভাগ থাকবে। এটার সাথে সাথে আমাদের আরেকটা প্ল্যান আছে।  যেহেতু আমাদের প্রচুর খেলা। খেলোয়াড়দের ইনজুরিতে পড়ার সম্ভাবনা আছে। ব্যাক আপ খেলোয়াড়ও আমাদের তৈরি রাখতে হবে। আমরা সবকিছু আলাপ আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নিচ্ছি। এজন্য আমাদের  স্কোয়াডটা লম্বা করার চেষ্টা করবো।’ সামনে জাতীয় দলের ব্যস্ততার মাঝে থাকছে ‘এ’ দলের সিরিজও। আর জাতীয় দলের বাইরের তারকারা থাকবেন এখানে। এই সিরিজগুলো জাতীয় দলের বাইরে থাকাদের জন্য হতে পারে ফেরার প্ল্যাটফর্ম, ‘‘এ’ টিমের দুটি সিরিজ হচ্ছে। যারা ব্যকআপ খেলোয়াড় আছে, যারা এখনো বাংলাদেশ দলে প্রতিষ্ঠিত হতে পারেনি, ওদের জন্য এটা ভালো একটা সুযোগ। এখানে যদি ভালো করতে পারে তবে বাংলাদেশ দলে  খেলার সম্ভাবনা থাকবে বেশি।’ জুনেই বাংলাদেশ সফরে আসবে শ্রীলংকা ‘এ’ দল। জুনে আফগানিস্তানের বিপক্ষে টি-টুয়েন্টি সিরিজ দিয়ে শুরু হবে জাতীয় দলের ব্যস্ততা। ভারতে আফগান সিরিজের পরই ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর। ব্যস্ত সূচির জন্য নিজের তৈরি করতে ১৩  মে শুরু হবে টাইগারদের প্রস্তুতি ক্যাম্প। কিন্তু এখনও দল ঘোষণা হয়নি। তবে বিসিবির ক্রিকেট অপারেশন্স বিভাগের চেয়ারম্যান আকরাম খান আভাসই দিলেন। তাড়াহুড়ো নয়, সময় নিয়েই চূড়ান্ত স্কোয়াড দিতে চাচ্ছে বোর্ড। দল ঘোষণা নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে অধিনায়ক আকরাম বলেন, ‘দেরি না। এখানে কিছু পরিকল্পনা আছে আমাদের।  যেমন মাননীয় বোর্ড প্রেসিডেন্ট সাহেব বলেছেন, বোলিংয়ে ক্যাম্প করানোর জন্য। সেটা একটা কারণ। আর যেহেতু আমরা প্র্যাকটিস শুরু করবো ১৩ তারিখ থেকে। সেহেতু আমাদের তিন-চার দিন আগেই টিম দিলে হয়। তাড়াহুড়া করছি না। আরো প্ল্যান করে সুন্দরভাবে কি করা যায় যেগুলো মাথায় এনে পরিকল্পনা করছি।’ সাম্প্রতিক সময়ে ঘরোয়া ক্রিকেটে নজর কেড়েছেন এমন তারকাদের নিয়ে হবে সেই বিশেষ বোলিং ক্যাম্প। আকরাম খান জানালেন, ‘এবার ঢাকা লিগ, বিসিএল এবং জাতীয় লিগে যেসব পেসার এবং স্পিনার ভালো করেছে তাদের নিয়ে ক্যাম্প করার জন্য বোর্ড প্রেসিডেন্ট বলেছেন। সেটা নিয়ে আমরা আলাদা ক্যাম্প করবো।’ দেরাদুনে আফগানিস্তানের বিপক্ষে টাইগাররা খেলবে টি-টুয়েন্টি সিরিজ। ম্যাচ সংখ্যা এখনো চূড়ান্ত নয়। তবে বাংলাদেশের প্রাথমিক ক্যাম্পটি হবে আসছে সকল সিরিজকে সামনে রেখেই। প্রাথমিক স্কোয়াডের সদস্য সংখ্যা নিয়ে আকরাম বলেন, ‘যেহেতু তিনটি ফরম্যাট খেলতে যাচ্ছে বাংলাদেশ টিম, সেহেতু স্কোয়াড লম্বাই হবে। যে কোনো সিরিজে টিম সাধারণত ১৫-১৬ জন হয়। সেটাই হবে, গত সিরিজগুলোতে যে রকম হয়েছে। ফরম্যাটের সাথে সাথে আপনার কিছু খেলোয়াড়ও পরিবর্তন হয়। সেটা করতেই হয়।’ 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ