ঢাকা, মঙ্গলবার 8 May 2018, ২৫ বৈশাখ ১৪২৫, ২১ শাবান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সবার চোখ এখন কেসিসি নির্বাচনের দিকে

খুলনা অফিস : গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন হাইকোর্টের আদেশে স্থগিত হয়ে যাওয়ায় এখন সারাদেশের মানুষের চোখ খুলনা সিটি করপোরেশন (কেসিসি) নির্বাচনের দিকে পড়েছে। কেসিসি নির্বাচনও স্থগিত হয়ে যায় কী না - এমন আশঙ্কাও সৃষ্টি হয়েছে ভোটারদের মধ্যে।  কৌতূহল আর আশঙ্কা মিলিয়ে সবাই তাকিয়ে আছেন আগামী ১৫ মে কেসিসি নির্বাচন কতটা সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে অনুষ্ঠিত হয় তার দিকে। তবে, খুলনা জেলা রিটার্নিং অফিসার মো.ইউনুচ আলী জানিয়েছেন, কেসিসি নির্বাচন স্থগিত হওয়ার কোনো কারণ আছে বলে তারা মনে করছেন না।
গত রোববার ভোট গ্রহণের নয় দিন আগে হাইকোর্টে এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন স্থগিত হয়ে যাওয়ায় কেসিসির নির্বাচনকে ঘিরে খুলনাসহ সারা দেশের মানুষের মধ্যে ব্যাপক  কৌতূহল সৃষ্টি হয়েছে। গতকাল সোমবার সারাদিন খুলনা মহানগরীর সর্বত্র মানুষের মুখে মুখে আলোচনার বিষয় ছিল গাজীপুরের মত কেসিসি নির্বাচনও স্থগিত হয়ে যায় কি না তা নিয়ে। এমনকি মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের কর্মী-সমর্থকারও নির্বাচন স্থগিত হওয়া না হওয়া নিয়েও তাদের আশঙ্কার কথা ব্যক্ত করেন।
নগরীর স্যার ইকবাল রোডের সেলুনের দোকানদার উজ্জ্বল বিশ্বাস বলেন, ‘নির্বাচনের আগ মুহূর্তে কারো রিটের কারণে যদি কেসিসি নির্বাচন স্থগিত হয়ে যায়, তাহলে প্রার্থীরা আর্থিক ও মানসিকভাবে অনেক ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। তাছাড়া সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে প্রথমবারের মত দলীয় প্রতীকে ভোট দেয়ার জন্য যারা অপেক্ষা করছেন সেই সব ভোটাররাও অনেক কষ্ট পাবেন।’
নগরীর ২১ নম্বর ওয়ার্ডের এক কাউন্সিলর প্রার্থীর লিফলেট বিতরণ করতে আসা কর্মী আলমগীর হোনের খান বলেন, এখন শুনছি, কেসিসি নির্বাচনও স্থগিত হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। যদি গাজীপুরের মত কেসিসি নির্বাচনও স্থগিত হয়ে যায় তাহলে আমাদের এতদিনের প্রচার-প্রচারণা ব্যর্থ হয়ে যাবে।
বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি-সিপিবি মনোনীত মেয়র প্রার্থী মিজানুর রহমান বাবু বলেন, গাজীপুরের মত কেসিসির নির্বাচনও স্থগিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। আর এটি হলে তা হবে খুবই দু:খজনক।
বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী নজরুল ইসলাম মঞ্জু বলেন, বর্তান সরকার যেখানে পরাজিত হওয়ার আশঙ্কা দেখে সেখানেই আদালতকে ব্যবহার করে নির্বাচন বন্ধ করে দেয়। খুলনায়ও পরাজয়ের আশঙ্কায় নির্বাচন নিয়ে ষড়যন্ত্র করছে তারা। বিএনপি সার্বিক পরিস্থিও ওপর নজর রাখছে। তবে, খুলনা সিটির নির্বাচন যথা সময়ে হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।
খুলনা  জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক এডভোকেট ফরিদ আহমেদ বলেন, কেসিসি নির্বাচন বন্ধের কোন আশঙ্কা নেই। কিন্তু কেউ রিট করলে হাইকোর্ট যদি নির্বাচন বন্ধ করে দেয় তাহলে কিছুই করার নেই। তবে, কেউ রিট করেছে কি-না সে ব্যাপারে তার জানা নেই বলে জানান তিনি।
এ ব্যাপারে খুলনা জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. ইউনুচ আলী বলেন, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মত খুলনা সিটি কর্পোরেশনে সীমান্ত সংক্রান্ত কোনো সমস্যা বা জটিলতা নেই। তাছাড়া কেসিসি নির্বাচন স্থগিত হওয়ার কোনো তথ্যও তার কাছে নেই বলেও জানান তিনি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ