ঢাকা, বৃহস্পতিবার 10 May 2018, ২৭ বৈশাখ ১৪২৫, ২৩ শাবান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

আজকের মধ্যে প্রজ্ঞাপন জারি না হলে রোববার কঠোর কর্মসূচি

কোটা বিষয়ে জাতীয় সংসদে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণের প্রজ্ঞাপনের দাবিতে গতকাল বুধবার কোটা সংস্কার আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের উদ্যোগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয় -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার : প্রধানমন্ত্রীর কোটা বাতিলের ঘোষণা আজ বৃহস্পতিবার প্রজ্ঞাপন আকারে প্রকাশ না হলে আগামী রোববার কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে। গতকাল বুধবার পূর্ব ঘোষিত মানববন্ধন শেষে এ কথা জানান কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনকারীরা। তারা বলেন, প্রধানমন্ত্রীর কোটা বাতিলের ঘোষণা প্রজ্ঞাপন আকারে বৃহস্পতিবার জারি না হলে রোববার সারাদেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।
গতকাল বেলা সাড়ে ১১টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে কয়েক হাজার শিক্ষার্থী অবস্থান নেন। পরে তারা বিক্ষোভ মিছিল করেন। মিছিলটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামনে থেকে শুরু হয়ে চারুকলা ঘুরে ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র (টিএসসি) গিয়ে শেষ হয়। টিএসসিতে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের উদ্যোগে এ মানববন্ধন পালিত হয়।
বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম-আহ্বায়ক নুরুল হক নূর বলেন, সরকারের ডাকে আমরা সাড়া দিয়েছি। ৭ মে’র মধ্যে প্রজ্ঞাপন জারির দাবি জানিয়েছিলাম আমরা। কিন্তু এমনটা না হওয়ায় ছাত্ররা বিক্ষুব্ধ। বাংলার ছাত্রসমাজ তাদের অধিকার আদায়ে আর ছাড় দেবে না। বৃহস্পতিবার প্রজ্ঞাপন জারি না করা হলে রবিবারে সারাদেশের কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলোয় কঠোর কর্মসূচি পালন করা হবে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী যখন কোটা বতিলের ঘোষণা দিয়েছিলেন, তখন আমরা তার বক্তব্যকে স্বাগত জানিয়েছি। আন্দোলন স্থগিত করে আনন্দ মিছিল করেছি। কিন্তু তার ঘোষণার ২৭ দিন পার হয়ে গেলেও আমরা প্রজ্ঞাপন পাইনি। ছাত্রদের সঙ্গে কেন এমন প্রহসন করা হচ্ছে?
মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন এবং যুগ্ম-আহ্বায়ক রাশেদ খান।
রাশেদ খান বলেন, বাংলার ছাত্র সমাজকে প্রতিশ্রুতি দিয়ে তা রক্ষা করা হয়নি। তাদের সঙ্গে নাটক করা হচ্ছে। বাংলার ছাত্র সমাজ নাটক মেনে নেবে না। বৃহস্পতিবার প্রজ্ঞাপন জারি করা না হলে ছাত্র সমাজ আবারও রাস্তায় নামবে।
হাসান আল মামুন বলেন, ছাত্র সমাজ যদি খেপে যায়, তবে সব অশুভ শক্তিকে ধ্বংস করে দেবে। প্রজ্ঞাপনের জন্যে সব কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র আন্দোলন হবে।
মানববন্ধনে ছাত্রছাত্রীরা বিভিন্ন দাবি সম্বলিত প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করে। সেখানে লেখা ছিল, কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপন কই? কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপন চাই, প্রজ্ঞাপন দিয়ে দিন, আমরা পড়ার টেবিলে বসতে চাই, আর নয় কালক্ষেপণ, দিতে হবে প্রজ্ঞাপন, কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপন দিন, ক্লাস-পরীক্ষায় ফিরতে দিন এবং শুধু মুখে নয়, লিখিত প্রজ্ঞাপন চাই।
রাবি রিপোর্টার: কোটা সংস্কার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণাকে দ্রুততম সময়ের মধ্যে প্রজ্ঞাপন প্রকাশের দাবি জানিয়ে মানববন্ধন করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। গতকাল দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্যারিস রোডে কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে এ মানববন্ধন করে তারা।
মানববন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী মোরশেদুল আলমের সঞ্চালনায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনটির রাবি শাখার আহ্বায়ক মাসুদ মোন্নাফ।
মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, 'যেদিন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সংসদে কোটা সংস্কার বাতিলের কথা বলেছিলেন সেদিন দেশের গোয়েন্দা সংস্থার লোকেরা কোন লিখিত ডকুমেন্ট ছাড়াই আমাদের নাড়ি নক্ষত্র বের করেছিলেন। রাশেদ ভাইয়ের বাবাকে উঠায়ে নিনে কেন? তাই অনতিবিলম্বে কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপন জারি করুন'।
এসময় বায়োকেমিস্ট্রি বিভাগের শিক্ষার্থী আরিফুজ্জমান, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও ইতিহাস বিভাগের শিক্ষার্থী সায়েম, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের জাকির, মার্কেটিং বিভাগের শিক্ষার্থী হাবিবুল্লাহ প্রমুখ বক্তব্য দেন। প্রায় সহস্রাধিক শিক্ষার্থী মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ