ঢাকা, বৃহস্পতিবার 10 May 2018, ২৭ বৈশাখ ১৪২৫, ২৩ শাবান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সারা দেশে বজ্রপাতে ২১ জনের মৃত্যু

সংগ্রাম ডেস্ক : গতকাল বুধবারও দেশের বিভিন্ন জেলায় বজ্রপাতে ২১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া দেশের বিভিন্নস্থানে কালবৈশাখী ঝড়ে সাধারণ জীবনযাত্রা ব্যাহত হচ্ছে। সুনামগঞ্জে অব্যাহত বৃষ্টিতে সুরমা নদীর পানি বেড়ে বিপদসীমার ৯ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এতে ফসলের ক্ষতির আশংকা করছেন কৃষকরা। শীর্ষনিউজ
ব্রাহ্মণবাড়িয়া : ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বজ্রপাতসহ ভারি বৃষ্টিপাত হয়েছে। টানা বৃষ্টিতে শহরের জীবন যাপনে প্রভাব পড়েছে। পাশাপাশি গ্রামাঞ্চলে ধান শুকাতে বিপাকে পড়েছেন কৃষকরা। তবে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর বলছে উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল কিংবা ঝড়বৃষ্টিতে ফসলের তেমন ক্ষতি হবেনা।
সুনামগঞ্জ : সুনামগঞ্জে পাহাড়ি ঢল আর বৃষ্টিতে সুরমা নদীর পানি অস্বাভাবিক গতিতে বেড়েছে। এ অবস্থায় হাওরের ফসল তলিয়ে যাওয়ার আশংকা করছেন কৃষকরা। পানি উন্নয়ন বোর্ড বলছে, পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকলে আগামী ৭২ ঘণ্টার মধ্যে ফসল রক্ষা বাঁধের সীমারেখা অতিক্রম করবে।
ঠাকুরগাঁও : কালবৈশাখী ঝড়ে ঠাঁকুরগাওয়ের বিভিন্ন এলাকায় গাছ, ঘরবাড়ি ও ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। শহরের সুপ্রিয় জুট মিলে বজ্রপাতে শটসার্কিট হয়ে আগুন লেগে যায়। পরে ফায়ার সার্ভিস আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এছাড়া ভোর থেকেই শহরে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।
ময়মনসিংহ : ময়মনসিংহের সদরে গরু চড়াতে গিয়ে বজ্রপাতে এক কৃষক মারা যান। এছাড়া জেলার পূর্ব ভালুকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চার শিক্ষার্থী বজ্রপাতের বিকট শব্দে অজ্ঞান হয়ে পড়েন। পরে ফায়ার সার্ভিস কমীর্রা তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। অন্যদিকে জেলার মুক্তাগাছার নতুর বাজার এলাকায় বজ্রপাতে ৮ জন আহত হয়। এদের মধ্যে ৬ জনের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এছাড়া মৌলভীবাজারে ঝড় আর বজ্রপাতের ভয়ে কাজে যেতে পারছেন না শ্রমিক ও দিন মজুররা।
সুনামগঞ্জ: সুনামগঞ্জে পৃথক স্থানে বজ্রপাতে দুই কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। নিহতরা হলেন- ধর্মপাশা উপজেলার সদর ইউনিয়নের দুর্বাকান্দা গ্রামের আব্দুর রহিমের  ছেলে জুয়েল আহমদ (১৬) ও শাল্লরা উপজেলার আটগাঁও ইউনিয়নের কাশিপুর গ্রামের ইসহাক আলীর  ছেলে আলমগীর মিয়া (২২)।
সিরাজগঞ্জ: সিরাজগঞ্জের কাজিপুর বজ্রপাতে সমতুল্লাহ (৫০) নামে এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় শাকিল মিয়া (১৫) নামে এক স্কুলছাত্র আহত হয়েছে। নিহত সমতুল্লাহ উপজেলার নাটুয়ারপাড়া ইউনিয়নের পানাগাড়ি গ্রামের বাসিন্দা।আহত শাকিল একই উপজেলার খাস রাজবাড়ি গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে।
গাইবান্ধা: গাইবান্ধার ফুলছড়িতে বজ্রপাতে মহর আলী (৩৫) নামে এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। মহর উপজেলার আলী উড়িয়া ইউনিয়নের কাবিলপুর গ্রামের মৃত আব্দুর রশিদ মিয়ার ছেলে।
মানিকগঞ্জ: মানিকগঞ্জের  দৌলতপুরে বজ্রপাতে ইয়াকুব আলী (৪৫) নামে এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। ইয়াকুব উপজেলার বাঁচামারা ইউনিয়নের হাচাদিয়া গ্রামের হাবেজ আলীর  ছেলে।
এছাড়া দৌলতপুরের কলিয়া ইউনিয়নের তালুকনগর এলাকায় বজ্রপাতে আশরাফুল ইসলাম অন্তর নামে এক স্কুলছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরো সাত স্কুলছাত্র।
রাজশাহী: রাজশাহীর তানোর উপজেলায় বজ্রপাতে দু’জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরো দু’জন।
নিহতরা হলেন- উপজেলার পাঁচন্দর ইউনিয়নের দুবইল নামোপাড়া গ্রামের সামসুদ্দীনের  ছেলে  সোহাগ আলী (১৮) ও বাতাসপুর গ্রামের  লোকমান আলী  ছেলে কৃষক আনছার আলী (৩০)। আহতদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।
ময়মনসিংহ: ময়মনসিংহ সদর উপজেলায় বজ্রপাতে আলাল উদ্দিন নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া ময়মনসিংহের পৃথক স্থানে বজ্রপাতে আরো ১২ জন আহত হয়েছেন। তাদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।
হবিগঞ্জ: হবিগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে বজ্রপাতে ধান কাটা শ্রমিকসহ ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে। এতে আহত হয়েছেন আরো ৯জন। তবে হতাহতদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।
কিশোরগঞ্জ-নারায়ণগঞ্জ: এছাড়া নারায়ণগঞ্জ ও কিশোরগঞ্জে একজন করে নিহতের খবর পাওয়া  গেছে। তবে তাদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ