ঢাকা, বৃহস্পতিবার 10 May 2018, ২৭ বৈশাখ ১৪২৫, ২৩ শাবান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

চীনে গিয়ে শি-এর সঙ্গে সাক্ষাৎ করলেন কিম

৯ মে, কেসিএন : উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন দুই মাসের মধ্যে দ্বিতীয়বারের মতো চীন সফরে গিয়ে প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন।

সোমবার ও মঙ্গলবার তারা চীনের উত্তরাঞ্চলীয় উপকূলীয় শহর দালিয়ানে সাক্ষাৎ করেছেন বলে উভয় দেশের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা জানিয়েছে। কিমের সফর শেষ হওয়ার পরই কেবল এই সফরের খবর প্রকাশ করা হয়।

চলতি মাসে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে কিমের বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে। পরিকল্পিত ওই বৈঠকের আগে চীনা প্রেসিডেন্টের সঙ্গে দেখা করলেন কিম।

এর আগে গত মাসে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে ইনের সঙ্গে শীর্ষ বৈঠকের আগেও মার্চে চীনে গিয়ে প্রেসিডেন্ট শিয়ের সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন উত্তর কোরিয়ার এ শীর্ষ নেতা।

জানামতে ২০১১ সালে ক্ষমতায় আসার পর সেটিই ছিল কিমের প্রথম বিদেশ সফর। ওই সফরে ট্রেনে চড়ে বেইজিং গেলেও এবার উত্তর কোরিয়ার নিকটবর্তী দালিয়ানে বিমানযোগে গিয়েছেন তিনি। ক্ষমতায় আসার পর জানামতে এটিই তার প্রথম আন্তর্জাতিক ফ্লাইট। সিনহুয়া জানিয়েছে, সফরে কিমকে ভোজে আপ্যায়িত করেন প্রেসিডেন্ট শি এবং ‘অর্থনৈতিক উন্নতির লক্ষে উত্তর কোরিয়ার কৌশলগত অবস্থান পরিবর্তনে’ চীনের সমর্থন আছে বলে জানান।

শি বলেন, “ কোরীয় উপদ্বীপকে পারমাণবিক অস্ত্রমুক্ত করণে উত্তর কোরিয়ার অবস্থানকে চীন সমর্থন করে এবং উপদ্বীপের ইস্যু নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও উত্তর কোরিয়ার বিরোধ সংলাপ ও পরামর্শের মাধ্যমে মিটিয়ে ফেলার বিষয়টিকেও সমর্থন করে।”

উত্তরে কিম বলেন, “যতদিন সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলো উত্তর কোরিয়ার প্রতি শত্রুতামূলক নীতি ও নিরাপত্তা হুমকি পরিহার করবে, ততদিন উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক (ক্ষমতার) কোনো প্রয়োজন নেই এবং পারমাণবিক অস্ত্রমুক্তকরণ উপলব্ধি করা যেতে পারে।” 

সিনহুয়ার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কিম শি-কে জানান, উপদ্বীপকে পারমাণবিক অস্ত্রমুক্ত রাখা উত্তর কোরিয়ার ‘ধ্রুব ও পরিষ্কার অবস্থান’ এবং উত্তর কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে সংলাপ পারস্পরিক বিশ্বাসের উপর দাঁড়াবে।

উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা জানিয়েছে, চীনের সঙ্গে উত্তর কোরিয়ার সম্পর্ক নতুন একটি উচ্চতায় পৌঁছানোয় কিম ‘অত্যন্ত খুশি’ হয়েছেন এবং কোরীয় উপদ্বীপের পরিস্থিতি পরিবর্তনে উত্তর কোরিয়া চীনকে আরও সক্রিয়ভাবে সহযোগিতা করবে।

দুই নেতা ‘তাদের হƒদয় খুলে দিয়ে উষ্ণ আলাপচারিতা করেছেন’ বলে উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা কেসিএনএ-র প্রতিবেদেনে বলা হয়েছে।

কিমের সফরসঙ্গী হিসেবে তার বোনা কিম ইয়ো জংও দালিয়ানে গিয়েছিলেন বলে জানিয়েছে কেসিএনএ।

চীনের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থায় উন্মুক্ত স্থানে হওয়া এক বৈঠকে প্রেসিডেন্ট শিয়ের সঙ্গে কিমের হাস্যরত এবং দুই নেতা সমুদ্রতীরের একটি রাস্তা ধরে হাঁটছেন এমন ছবি প্রকাশ করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ