ঢাকা,বুধবার 14 November 2018, ৩০ কার্তিক ১৪২৫, ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

কেনিয়ায় বাঁধ ভেঙে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪৭

পানির তোরে ভেসে যাওয়া এক শিশুর লাশের পাশে দুজন অধিবাসী।ছবি-এপি

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক:

কেনিয়ার রিফ্ট উপত্যকার সোলাই এলাকার কাছাকাছি একটি জলাধারের বাঁধ ভেঙে সৃষ্ট মারাত্মক বন্যায় ভেসে গেছে দুটি গ্রামের মানুষ, ঘর-বাড়ি ও আসবাবপত্রসহ সব কিছু। এতে অন্তত ৪৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ছাড়া এখনও অন্তত ৪০ জন নিখোঁজ আছে। ফলে নিহতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছে কর্তৃপক্ষ।খবর রয়টার্স ও এপির।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স এক প্রতিবেদনে বলেছে, রাজধানী নাইরোবি থেকে ১৯০ কিলোমিটার উত্তর-পশ্চিমের নাকুরু জেলায় বুধবার এ ঘটনা ঘটে। ওই জেলার রিফ্ট উপত্যকায় বাণিজ্যিকভাবে ফুলের চাষ হয়। সেখানকার একটি পাহাড়ে গোলাপ ফুলের বাগানের জন্য কৃত্রিম বাঁধ দিয়ে পানি সংরক্ষণ (জলাধার) করা হয়েছিল।

গত কয়েকদিনের বৃষ্টির কারণে বুধবার হঠাৎ করে বাঁধটি ভেঙে যায়। এতে আশপাশের দুটি গ্রাম প্লাবিত হয় এবং মানুষসহ সব কিছু ভেসে যায়।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাঁধটি যখন ভেঙে যায় তখন স্থানীয়রা রাতের খাবার খাচ্ছিল।এ সময় স্রোতের তোড়ে একের পর এক বাড়ী-ঘর বিধ্বস্ত হতে থাকে।

প্রসঙ্গত, দেশটিতে অন্তত সাড়ে তিন হাজার একর জমিতে বাণিজ্যিকভাবে ফুলের চাষ করা হয়। যা দিয়ে নেদারল্যান্ডস ও জার্মানি তথা ইউরোপের ফুলের চাহিদা মেটে।

স্থানীয় পুলিশ প্রধান জাফেত কিওকো বলেছেন, এ পর্যন্ত ৪৪ জন নিহতের খবর পাওয়া গেছে। মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে। আমরা এখনও উদ্ধার অভিযান চালাচ্ছি।

নাকুরুর গভর্নর লী কিনিয়াজুই টুইটারে বলেছেন, আরও ৪০ জন লোক নিখোঁজ রয়েছে। পূর্ব সতর্কতা হিসেবে পার্শ্ববর্তী আরেকটি জলাধার থেকে পানি সরিয়ে ফেলার সিদ্ধান্ত হয়েছে বলেও জানান তিনি।

উল্লেখ্য, গত বছর প্রচণ্ড খরার পর গত প্রায় দুই মাস থেকে পূর্ব আফ্রিকায় প্রবল বৃষ্টি হচ্ছে। এতে কেনিয়া, সোমালিয়া, ইথিওপিয়া ও উগান্ডার লাখ লাখ মানুষ সমস্যায় পড়েছে। ইতোমধ্যে বন্যায় বেশ কিছু লোক মারা গেছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ