ঢাকা, রোববার 13 May 2018, ৩০ বৈশাখ ১৪২৫, ২৬ শাবান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

আজ বাংলাদেশে আসছেন গর্ডন গ্রিনিজ

স্পোর্টস রিপোর্টার : সংক্ষিপ্ত এক সফরে আজ বাংলাদেশে আসছেন জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক কোচ গর্ডন গিনিজ। তবে তিনি মাশরাফি, সাকিবদের কোচ হতে আসছেন না, আসছেন ব্যক্তিগত এক সফরে।  ১৯৯৭ সালে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের আইসিসি ট্রফি’র সাফল্যের কারিগর ছিলেন গর্ডন গ্রিনিজ। মূলত সাবেক শিষ্য নান্নু, আকরাম, সুমন এবং তার সময়ের অর্থাৎ ১৯৯৭-১৯৯৯ পর্যস্ত বাংলাদেশ ক্রিকেটে তার সাবেক সহকর্মী এবং সগঠকদের সাথে দেখা করতে। অবশ্য আগ্রহটা তিনিই দেখিয়েছেন তাই নিষেধ করেনি বিসিবি। ব্যক্তিগত কাজে তিনি বর্তমানে মালয়েশিয়াতে অবস্থান করছেন। সেখানে তার সাথে দেখা হয়েছিল এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের সাবেক সিইও সৈয়দ আশরাফুল হকের সাথে। তার কাছে বাংলাদেশ সফরের আগ্রহের কথা জানা গ্রিনিজ। পরে আশরাফুল হক বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের সাথে আলোচনা করলে তিনি অস্বীকৃতি জানাননি। মালয়েশিয়া থেকে ৫ দিনের সফরে আজ সন্ধ্যায় গ্রিনিজের ঢাকায় অবতরণের কথা রয়েছে। এর পরদিন ১৪ মে তার সম্মানে হোটেল সোনারগাঁওয়ে নৈশভোজের আয়োজন করা হয়েছে। সেখানে সাবেক এবং টাইগারদের বর্তমানরা আড্ডায় বসবেন। এর মধ্য দিয়ে অবশ্য বিসিবি ১৭ বছর আগে গ্রিনিজের দেয়া সম্মানের অন্যরকম একটি প্রতিদানও চুকিয়ে ফেলার সুযোগ পাচ্ছে। ২০০১ সালে বাংলাদেশ ‘এ’ দল নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজে বুস্টা কাপে অংশ যখন নিচ্ছিলো, তখন বার্বাডোজে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে রিসেপশন দিয়েছিলেন গ্রিনিজ।  যেখানে মন্ত্রীসহ অনেক সম্মানী ব্যক্তিরাও এসেছিলেন। বাংলাদেশের কোচ হিসেবে সফল ভাবে দু’বছর কাটালেও শেষটা অবশ্য ভালো হয়নি ক্যারিবীয়ান এই গ্রেট গ্রিনিজের। ১৯৯৭ সালে আইসিসি ট্রফি জয়ের মাধ্যমেই ক্রিকেটে বাংলাদেশের উত্থান।

সেই আসরের কিছু সময় আগে আকরাম খান, আমিনুল ইসলাম বুলবুলদের দায়িত্ব নিয়েছিলেন তিনি। আইসিসি ট্রফি উপহার  দেয়ায় বাংলাদেশের সম্মানসূচক নাগরিকত্বও পান গ্রিনিজ। তবে গ্রিনিজের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক ছিন্ন হওয়াটা ছিল ট্রাজেডির মতো। ১৯৯৯ ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে বাংলাদেশের কোচ হয়েই গিয়েছিলেন। কিন্তু ইংল্যান্ড থেকে আর বাংলাদেশে ফেরা হয়নি গ্রিনিজের। পাকিস্তানকে হারানো ম্যাচের আগের দিন রাতে গ্রিনিজকে বরখাস্ত করেছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। অথচ পরদিনই তার চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা ছিল। তবে ২০০০ সালে বাংলাদেশের অভিষেক টেস্টে বাংলাদেশের পাসপোর্টেই ঢাকায় এসেছিলেন গ্রিনিজ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ