ঢাকা, শুক্রবার 18 May 2018, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ১ রমযান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

কবিতা

ছবিশ্রমিকের ঘাম  

কামাল আহসান

 

শ্রমিকের ছবি হাসে মালিকের ল্যাপটপে ; শ্রমেরা ভাসে না, 

কতো নদী ঢেউ ভরপুর; কারো কোন তুফান হয় না জানা। 

শ্রমিকের দাঁত;  যতো কম সাদা হোক নকল হয় না।

 

এটা কারখানার সামনের আলোরূপ; অপরূপ

শুভেচ্ছা ও ধন্যবাদের মতোই হাসে, 

ভাসে রাতের আলোতে হলুদাভ; চুপ,

সশ্রমের দোহাইরে ভালোবাসে শ্রমিকেরা খুব।

 

দহন ঘরের ভিতরের মাঝরাত হয় লেবুর মতোন

টকের রসালো গতি তার সব রাতে জমে

সব জলে থাকে সকল প্রকার লালাদের বিচরণ।

 

এই নিয়ে পোশাকের কারখানা বিশ্বময় হেঁটে চলে,

সাথে যায় শ্রমিকের ঘাম, গরম নি:শ্বাস;

ধবধবে লাগেজের মাঝ থেকে টাকা কথা বলে।

 

রেস্তোরাঁর রাত নামে কিলোপেট্রার প্রাচীন মুখে;

সব মালিকের ল্যপটপে ছবিশ্রমিক ভাসছে সুখে।

 

 

 

বাঁকা চাঁদের আশায়

নোমান সাদিক

 

তারিখ মাসের কোন হিসেব রাখি না

বসে আছি বাঁকা এক চাঁদের আশায়

বসে আছি কোন এক সুখসংবাদ

দৌড়ে এসে কেউ আমাকে জানায়

 

নোটিস, এ শহরে কেবল নোটিস

ঘরময় নোটিসের মাকড়শা জাল

কতযুগ হয়ে গেল জোছনা দেখি না

এইতো আমার রাত, এইতো সকাল

 

সবকিছু ফেলে দিয়ে তাই বসে আছি 

আজ কোন যুক্তির ধার ধারিনাই

বাঁকা এক চাঁদ আজ উঠুক আকাশে 

ছড়াক পৃথীবিতে তাঁর রোশনাই।

 

 

নাম তার কবিতা

শাহিদ উল ইসলাম

 

প্রসূতি মায়ের মত অপেক্ষার প্রহর

অথচ প্রসবিত হয় না সে

অসহ্য যন্ত্রণা নিয়ে ছটফট করি

বেদনায় বেদনাহত আমি।

একদিকে বেদনা

অন্যদিকে নতুন মুখ দেখার বাসনা

পাগলের মত প্রলাপ বকি

অথচ সে আসে না।

আমি অপেক্ষার প্রহর গুনছি

ছাপ্পান্ন হাজার বর্গমাইল অপেক্ষায় আছি

অপেক্ষায় আছি ঘাসফুল ফড়িং প্রজাপতি

অপেক্ষায় আছি পাহাড় নদী সাগর

অপেক্ষায় ফজর হতে এশার আজান

অতঃপর যে এলো

নাম তার কবিতা।

 

 

নিয়তির ক্রন্দন

সুজিত  হালদার

 

অবাধ্য নদীর মতো দুমড়ে মুচড়ে দিচ্ছ হৃদয়

পাড় ভাঙ্গা গতির মতো ভেঙে নিচ্ছ মনের অতল।

কালের আবহে ছোট্ট এ অন্তর ডুবে গেল 

কষ্টের নোনাজলে- উৎসুক সব স্বপ্ন নিয়ে।

আর তখনি আমার চারপাশ ঘিরে যন্ত্রণাগুলো 

দানা বাঁধলো; যা হবার নয় 

তার ভাবনায় নিয়তির ক্রন্দন।

শুধু শুধু দু:খকে নিমন্ত্রণ- শুধু শুধু ব্যথার বিবর্তন।

ক্ষয়ে ক্ষয়ে বয়ে যাচ্ছে দুচোখ নিদ্রা নিয়েছে ছুটি।

কি যে ভাবনায় পোড়ে বুক

কি যে অবাধ্যতা, ঘুমহীন রাত

কোমল চন্দ্রের আবাহন- ক্লান্ত দেহ নিবৃত অবসাদ

এ যেন দুর্দমনীয় বয়সী পালা-বদল।

 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ