ঢাকা, শুক্রবার 18 May 2018, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ১ রমযান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

টেস্ট বাঁচাতে যোগ হচ্ছে ভিন্ন কিছু নিয়ম

স্পোর্টস ডেস্ক : ওয়ানডে, টি-টোয়েন্টি, টি-টেনের এই ক্রিকেট বিশ্বে টেস্ট ক্রিকেটের ঐতিয্যময় সাদা রঙই যেন ফিকে হয়ে যাচ্ছে দিনে দিনে। তাই টেস্ট ক্রিকেট বাঁচানো ও এর জনপ্রিয়তা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি) গেল কয়েক বছর থেকেই নতুন নতুন নিয়মাবলী নিয়ে আসছে ক্রিকেটে।  এরই অংশ হিসেবে গত মে মাসে কলকাতায় অনুষ্ঠিত আইসিসির সাধারণ সভায় বেশ কিছু বিষয়ে প্রাথমিক আলোচনা করা হয়। সেখান থেকেই কিছু বিষয়ে আলোচনা হবে আগামী ২৮ ও ২৯ জুন ভারতের মুম্বাইয়ে বসতে যাওয়া বৈঠকেও। তবে মূলত জুনে আইসিসির টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপই এই বৈঠকের মূল এজেন্ডা। ২০১৯ সালের বিশ্বকাপের পরপরই টেস্ট খেলুড়ে তালিকার ৯টি দেশ নিয়ে মাঠে গড়াবে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ। যার ফাইনাল হবে ইংল্যান্ডের মাটিতে ২০২১ সালের ১০-১৪ জুন। বৈঠকে আলোচনা করার জন্য একটি কমিটি গঠিন করা হয়েছে যার প্রধান করা হয়েছে ভারতের সাবেক ক্রিকেটার ও কোচ অনিল কুম্বলেকে। সেখানে আলোচনায় থাকবে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের টস পদ্ধতি, পয়েন্ট পদ্ধতি, উইকেট ও পিচের ধরন ইত্যাদি সম্পর্কে।  মুম্বাইয়ের বৈঠকে যেসব প্রস্তাাবগুলো নির্বাচিত হবে সেগুলোই আলোচনা সাপেক্ষে অনুমোদন পাবে জুনে ডাবলিনের আইসিসির নির্বাহীদের দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে। যে বিষয়গুলোতে আলোচনা হবে আইসিসির মুম্বাই বৈঠকেঃ

দিবা-রাত্রির টেস্ট ঃ সম্প্রতি ভারত এক কথায় দিবা-রাত্রির টেস্ট খেলতে না বলে দিয়েছে অস্ট্রেলিয়াকে। কিন্তু টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ কারো সামনেই না বলার পথ খোলা রাখছে না। প্রতিটি আয়োজক বোর্ড একটি করে দিবা-রাত্রির ম্যাচ আয়োজন করতে পারবে এবং যাদের আমন্ত্রণ জানাবে তারা সেই ম্যাচ খেলতে বাধ্য থাকবে। সেক্ষত্রে একের অধিক দিবা-রাত্রির ম্যাচ হলে আমন্ত্রিত দল একটি না বলতে পারবে। তবে সে ক্ষেত্রেও কমপক্ষে একটি দুই দিনের দিবা-রাত্রির প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে হবে।

 টসঃ মূলত ঘরের মাঠে স্বাগতিক দেশ বেশি সুবিধে পায় বলেই এমন পথে হাঁটতে চাইছে ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় এই সংস্থাটি। টস না করে সফরকারী দেশ নির্ধারণ করবে তারা ফিল্ডিং করবে না ব্যাটিং। কেননা সম্প্রতি স্বাগতিক দেশগুলো দেশের মাঠ ও পিচকে পুরোপুরি নিজেদের মতো করে সাজিয়ে রাখে। ফলে সফরকারীদের অবস্থা হয় বেহাল।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ