ঢাকা, শনিবার 19 May 2018, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২ রমযান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

আদমদীঘিতে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী লাঠি খেলা অনুষ্ঠিত

আদমদীঘি (বগুড়া) সংবাদদাতা: বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার কুসুম্বী গ্রামে প্রতি বছরের ন্যায় এবারও অনুষ্ঠিত হয়েছে গ্রাম বাংলার প্রিয় ঐতিহ্যবাহী লাঠি খেলা। মেলায় আসা সাধারণ মানুষকে আনন্দ দিতে ও দর্শনার্থীদের আকৃষ্ট করতে গত শুক্রবার বিকেলে উপজেলার সদর ইউনিয়নের কুসুম্বী গ্রামের টাইগার ক্লাবের উদ্যোগে এ খেলার আয়োজন করা হয়। বাদ্যের তালে তালে নেচে নেচে লাঠি খেলে অঙ্গভঙ্গি প্রদর্শন করে লাঠিয়ালরা। খেলোয়াড়রা একে অপরের সঙ্গে লাঠি যুদ্ধে লিপ্ত হয়। লাঠি দিয়ে অন্যের আক্রমণ ঠেকাতে থাকেন। আর এরই মধ্যে নিজের চেয়ে বড় লাঠি নিয়ে অদ্ভুত সব কসরত দেখিয়ে উপস্থিত সবাইকে তাক লাগিয়ে দেন লাঠিয়ালরা। আর লাঠিয়াল দলের ক্ষুদে এক লাঠিয়াল উপজেলার ডুমুরীগ্রামের রাকিবুলের লাঠি খেলার কসরত দেখে অবির্ভূত হন প্রবীণ লাঠিয়ালরা। দল বেঁধে আগত দর্শকদের সালাম বিনিময় করেন। এসব দৃশ্য দেখে আগত দর্শকরাও করতালির মাধ্যমে খেলোয়াড়দের উৎসাহ দেন।
কালের বিবর্তনে হারিয়ে যাওয়া এ লাঠি খেলা দেখতে মেলা প্রাঙ্গণে হাজির হন নানা বয়সের মানুষ। ইট-পাথরের টুংটাং আওয়াজকে হার মানিয়ে কিছুটা হলেও পুরানো দিনের গ্রামীন চিত্ত বিনোদনের সুযোগ পান বয়ো-বৃদ্ধরা।
লাঠিয়াল করিম মোল্লা, রায়হান আলী, শাহিন আলম ও সামছুল বলেন, এ অঞ্চলের বিভিন্ন মেলা ও অনুষ্ঠানে দর্শনার্থীদের বাড়তি আনন্দ ও বিনোদন জোগাতে আমরা লাঠি খেলা দেখায়। এ খেলা আমাদের পূর্ব-পুরুষের।
আমরা আমাদের সন্তানাদিসহ অনেককেই এ খেলা শিখিয়েছি। যাতে তারাও এ খেলা দেখিয়ে মানুষকে আনন্দ দিতে পারে। তবে সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা পেলে গ্রামীণ ঐতিহ্যবাহী এ খেলাটি টিকে থাকবে, না হলে একদিন হরিয়ে যাবে। 
কুসুম্বী টাইগার ক্লাবের সভাপতি আইয়ুব হোসেন জানান, মেলায় আসা দর্শনার্থীদের শুধু আনন্দ দিতেই এই লাঠি খেলার আয়োজন করা হয়েছে এবং ভবিষ্যতেও করা হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ