ঢাকা, রোববার 20 May 2018, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ৩ রমযান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

দক্ষিণ বেদকাশি ইউনিয়নের ৩২ হাজার মানুষ গৃহহীন হওয়ার আশংকা

খুলনা অফিস : খুলনার কয়রা উপজেলার দক্ষিণ বেদকাশিতে গত শুক্রবার গভীর রাতে শুরু হওয়া শাকবাড়িয়া নদীর বেড়িবাঁধ ভাঙ্গন অব্যাহত রয়েছে। গতকাল শনিবার দুপুরের পর থেকে আরো দেড়শ’ ফুট জায়গায় নতুন করে ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। এই অংশটুকু ভেঙ্গে গেলে দক্ষিণ বেদকাশি ইউনিয়নের ৩২ হাজার মানুষ গৃহহীন হয়ে পড়বে বলে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আশংকা প্রকাশ করেছেন। ইতোমধ্যে জোড়শিং বাজারের বেড়ি বাঁধের অংশ বিশেষ ভেঙে যাওয়ায় ১৩টি গ্রাম পানিমগ্ন হয়ে পড়েছে। শুক্রবার হঠাৎ ১৫০ ফুট জায়গা ভেঙে নদী গর্ভে বিলিন হয়ে যায়। এর ফলে বাজারের লঞ্চ ঘাট, ৬টি দোকান ও ৩টি মৎস্য ডিপো ও লঞ্চঘাটের পল্টুন নদীর মাঝখানে চলে গেছে। আকষ্মিক এ ভাঙ্গনে ৪০ ফুট গভীরতা সৃষ্টি হয়েছে।
এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা গেছে, গত শুক্রবার ভোর রাতে জোড়শিং বাজারের বেড়িবাঁধ হঠাৎ নদী গর্ভে বিলিন হয়ে যায়। ভাঙনের কারণে বেড়িবাধের পার্শ্বে অবস্থিত ৬ টি দোকান ও ৩ টি মৎস্য ডিপো নদী গর্ভে বিলিন হয়ে গেছে। হঠাৎ রাতে ভাঙ্গনের কবলে পড়ায় অনেকের দোকানে থাকা মালামাল সরিয়ে নিতে না পারায় অনেক ব্যবসায়ীদের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এলাকবাসী চেষ্টা করেও ভাঙ্গন আটকাতে পারছেনা। এই সময় জরুরী ভিত্তিতে কাজ করা না হলে যে কোন মুহূর্তে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হওয়ার আশংকা রয়েছে।
জোড়শিং বাজারের মুদি ব্যবসায়ী শরিফুল ইসলাম বলেন, আইলায় সব হারিয়ে পাউবোর বেড়িবাঁধে কোন রকম একটি দোকান তৈরি করে ব্যবসা করে জীবন জীবিকা নির্বাহ করতাম। হঠাৎ নদী ভাঙ্গনে তা সব বিলীন করে দিয়েছে। এরপর নদী ভাঙ্গনরোধে কাজ করা হলে মনে হয় লোকালয়ে বসবাসের স্থানটুকু পেতাম পারতাম।
দক্ষিণ বেদকাশি ইউপি চেয়ারম্যান জিএম কবি শামসুর রহমান বলেন, জোড়শিং বাজারের বেড়িবাঁধ ভাঙ্গনের বিষয়টি পাউবোর উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে বার জানানো হয়েছে। তারপরও তাদের অনীহার কারণে আজকে সাধারণ মানুষের এই পরিস্থিতি। তিনি বলেন, গতকাল শনিবার দুপুরের পর থেকে আরো দেড়শ’ফুট এলাকা নতুন করে ভাঙ্গতে শুরু করেছে। এটি পুরোপুরি ভেঙ্গে গেলে প্রায় ৩২ হাজার মানুষ গৃহহীন হয়ে পড়বে। এছাড়া নদীর সন্নিকটে থাকা জুনিয়র প্রাইমারী স্কুল ও পোষ্ট অফিসসহ অন্যান্য দফতর নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যাবে। ভাঙ্গন ঠেকাতে  এই মুহুর্ত্যে জরুরী ভিত্তিতে ব্লক (ব-লক) ডাপিং অথবা পাটো পাইলিং দিয়ে বাঁধ সংস্কার করা প্রয়োজন। এছাড়া ঝুঁকিপূর্ণ অন্যান্য বেড়ী বাঁধগুলো বর্ষার আগেই মেরামত বা পুনঃনির্মাণ করা না হলে মারাত্মক ক্ষতির সন্মুখীন হবে এ অঞ্চলের মানুষ।
এ ব্যাপারে পাউবোর আমাদী সেকশন কর্মকর্তা মো. মসিউল আলমের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, জোড়শিং বাজারের বেড়িবাঁধ ভাঙ্গনের বিষয়টি উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। জরুরী ভিত্তিতে ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হবে।
কয়রা উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিমুল কুমার সাহা বলেন, জোড়শিং বাজারের বেড়িবাঁধ ভাঙ্গন রোধে জরুরী ভিত্তিতে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য পাউবো কর্তৃপক্ষকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।
কুয়েটে আজ থেকে গ্রীষ্মকালীন ও ৩ জুন
থেকে রমযানকালীন অবকাশ
খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুয়েট) আজ ২০ মে রোববার থেকে শুরু হচ্ছে গ্রীষ্মকালীন অবকাশ, চলবে ২ জুন পর্যন্ত। এসয় বিশ্ববিদ্যালয়ের দাপ্তরিক কার্যক্রম সকাল ৯ টা থেকে বিরতিহীনভাবে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত চলবে। এরপর ৩ জুন থেকে ৯ জুন পর্যন্ত চলবে রমযানকালীন অবকাশ। এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের দাপ্তরিক কার্যক্রম সকাল ৯ টা থেকে বিরতিহীনভাবে বিকাল ৩ টা পর্যন্ত চলবে। অবকাশকালীন সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল ক্লাস ও পরীক্ষা বন্ধ থাকলেও বিশ্ববিদ্যালয়ের দাপ্তরিক কার্যক্রম যথারীতি চালু থাকবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ