ঢাকা, মঙ্গলবার 22 May 2018, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ৫ রমযান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

রিমঝিম পুলিশ টাউন ও ইটালিয়ান সিটির প্রকল্প হাইকোর্টে অবৈধ ঘোষণা

স্টাফ রিপোর্টার: নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার ভেলাবো ইউনিয়নে অবস্থিত রিমঝিম পুলিশ টাউন ও ইটালিয়ান সিটির আবাসিক প্রকল্প অবৈধ ঘোষণা করে রায় দিয়েছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে, এই দু’টি প্রকল্পের জন্য ভূমির যে পরিবর্তন সাধন করা হয়েছে তা পূর্বের অবস্থানে ফিরিয়ে দিতে বলা হয়েছে।
গতকাল সোমবার হাইকোর্টের বিচারপতি সৈয়দ মোহাম্মদ দস্তগীর হোসেন ও বিচারপতি মো. আতাউর রহমান খানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ রায় ঘোষণা করেন।
আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন এডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার, সঙ্গে ছিলেন ব্যারিস্টার মরিয়ম খন্দকার। অন্যদিকে রিমঝিম পুলিশ টাউনের পক্ষে সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল ফিদা এম কামাল ও ইটালিয়ান সিটির পক্ষে ছিলেন আব্দুল মতিন মন্ডল। আর রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত তালুকদার।
পরে তৈমুর আলম খন্দকার সাংবাদিকদের বলেন, রূপগঞ্জের ভেলাবো ইউনিয়নের কয়েকটি মৌজাভূক্ত রিমঝিম পুলিশ টাউন ও ইটালিয়ান সিটি এই দুটি প্রকল্পে স্থানীয় কৃষি জমি জোর করে দখল করে ভরাট করা হয়। এ নিয়ে বিভিন্ন সময়ে জাতীয় দৈনিকে সংবাদ প্রকাশিত হয়। সেসব সংবাদের প্রেক্ষিতে স্থানীয় জনগণ পরিবেশ অধিদফতরে যোগাযোগ করলেও তারা কোনও ব্যবস্থা নেয়নি।
তিনি আরও বলেন, পরিবেশ অধিদফতর ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় বাদশাহ মিয়াসহ স্থানীয় পাঁচজন বাসিন্দা ২০১৭ সালের ২৩ অক্টোবর হাইকোর্টে একটি রিট দায়ের করেন। সেই রিটের প্রাথমিক শুনানি শেষে নদী, খাল, ডোবা, কৃষিজমিসহ জমি রক্ষায় ব্যর্থতাকে কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না এবং দুটি প্রকল্পের জন্য ভূমির যে পরিবর্তন সাধন করা হয়েছে তা পূর্বের অবস্থানে ফিরিয়ে দেয়ার নির্দেশ কেন দেয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে পরিবেশ মন্ত্রণালয়কে দুটি প্রকল্পের বিষয়ে একটি প্রতিবেদন দিতে বলা হয়।
তিনি বলেন, ২০১৭ সালের ৩০ নবেম্বর আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী পরিবেশ অধিদফতর হলফনামা আকারে প্রতিবেদন দাখিল করে। দাখিলকৃত প্রতিবেদনে এসব জমিকে নাল ও কৃষি জমি হিসেবে উল্লেখ করে বিস্তারিত শ্রেণিকরণ করা হয়। প্রতিবেদনে বলা হয়, রিমঝিম পুলিশ টাউন ও ইটালিয়ান সিটি কর্তৃপক্ষ পরিবেশ অধিদফতর থেকে অবস্থানগত ছাড়পত্র গ্রহণ করা ব্যতিরেকে কৃষি জমি ভরাট করে বাংলাদেশ পরিবেশ সংরক্ষণ আইন ১৯৯৫ (সংশোধিত ২০১০) এর ১২ (১) ধারা লঙ্ঘন করেছেন মর্মে প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হয়।
পরিবেশ অধিদফতরের এই প্রতিবেদনের উপর শুনানি শেষে আজ আদালত জারিকৃত রুল যথাযথ ঘোষণা করে এই রায় দেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ