ঢাকা, সোমবার 28 May 2018, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ১১ রমযান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ফিটনেসবিহীন পরিবহনে নানা সঙ্কট

খুলনা অফিস: খুলনা মহানগরীর রূপসা থেকে ফুলতলা রুটে শিক্ষার্থী বান্ধব হিসেবে পরিচিত নগর পরিবহণে রয়েছে নানা সঙ্কট। গাড়ি স্বল্পতা, ফিটনেসবিহীন পুরনো গাড়িসহ রয়েছে একাধিক সমস্যা।
জানা যায়, পরিবহণে যাত্রার শুরুতে মোটামুটি ফাঁকা থাকলেও পথের বাজার, আফিলগেট, চিড়িয়াখানা পার হয়ে ‘শিরোমণি বাসস্ট্যান্ড’ এ আসতেই ভিড় জমে যায়। বাদামতলা ছেড়ে ফুলবাড়িগেট আসতেই দেখা যাবে বাসটি যাত্রীদের ভিড়ে একাকার। এরপরে দৌলতপুর বাজার, বিএল কলেজ গেট নতুন রাস্তা হয়ে ডাকবাংলা থেকে শান্তিধাম, রয়্যেল মোড়, সরকারি মজিদ মেমোরিয়াল সিটি কলেজ, পিটিআই মোড়, কেসিসি উইমেন্স কলেজ রেখে রূপসা এসে থামে পরিবহণটি। এটাই নগর পরিবহণের সর্বশেষ স্টপেজ।
সরেজমিনে বিভিন্ন স্পট ঘুরে জানা যায়, ফিটনেসবিহীন লক্কর ঝক্কর স্বল্প সংখ্যক গাড়ি যাত্রী পরিবহণ করছে। গাড়ি কম থাকায় শিক্ষার্থীদের চাহিদা মেটাতে পারছেন না নগর পরিবহণ কর্তৃপক্ষ। শিক্ষার্থীরা দীর্ঘ সময় দাঁড়িয়ে থেকে গাড়ি না পেয়ে দ্বিগুণ কিংবা তিনগুণ ভাড়া দিয়ে মাহিন্দ্রা বা ইজিবাইকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যাচ্ছে। গাড়িগুলো পুরনো হওয়ায় ফিটনেসবিহীন হয়ে পড়েছে যা চলাচল অনুপযোগী। ফিটনেস বিহীন গাড়িতে ঘটে যেতে পারে যে কোনো সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনা।
কলেজ শিক্ষার্থী মো. আলামিন বলেন, ‘আমরা প্রায়ই দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করার পর নগর পরিবহণ না পেয়ে ইজিবাইকে যেতে বাধ্য হই। ফলে ইজিবাইকে দ্বিগুণ ভাড়া দিতে হয়।’
বিএল কলেজ ছাত্র মেহেদি হাসান বলেন, ‘আমি প্রতিদিন শিববাড়ি এসে অনেকক্ষণ অপেক্ষা করে হয়তো গাড়ি পাই তবে অধিকাংশ সময়ে ইজিবাইকে যেতে হয়।’
নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) এর কেন্দ্রীয় সদস্য ও খুলনা জেলা সাধারণ সম্পাদক এস এম ইকবাল হোসেন বিপ্লব বলেন, ‘নগর পরিবহণের গাড়িগুলো ফিটনেসবিহীন যা অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ। কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি করবো নগর পরিবহণের গাড়িগুলো ফিটনেসবিহীন গাড়ি বন্ধ করা হোক ও নগরীতে ফের দ্বিতল বাস সার্ভিস চালু করা হোক। তিনি আক্ষেপ প্রকাশ করে বলেন, নগরীর অধিকাংশ সড়ক দুর্ঘটনার মূল কারণ অবৈধ ইজিবাইক ও মাহিন্দ্রার ব্যাপারের কর্তৃপক্ষের খুব দ্রুত সিদ্ধান্ত নেয়া দরকার।
এ ব্যাপারে বিআরটিএ’র উপ-পরিচালক জিয়াউর রহমান বলেন, নগর পরিবহণের ফিটনেসের ব্যাপারে কর্তৃপক্ষের সাথে কথা হয়েছে। তারা খুব দ্রুত ব্যবস্থা নেবে বলেও আশ্বাস দিয়েছেন।
মোটরবাস মালিক সমিতির সভাপতি ও সাবেক এমপি গফ্ফার বিশ্বাষ নগর পরিবহণগুলো ফিটনেসবিহীন স্বীকার করে বলেন, আমরা খুব দ্রুত নতুন আরও ১০ থেকে ১৫টি গাড়ি এই রুটে নামাবো। তখন আর কোনো সমস্যা থাকবে না।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ