ঢাকা, সোমবার 28 May 2018, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ১১ রমযান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

কলারোয়া সোনারবাংলা কলেজের অধ্যক্ষ গ্রেফতার

সাতক্ষীরা সংবাদদাতা: জামায়াত সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে কলারোয়া সোনারবাংলা কলেজের   অধ্যক্ষ আশফাকুর রহমান বিপুকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার দুপুর ১২টার দিকে কলেজে কর্মরত অবস্থায় কলারোয়া থানা পুলিশ তাকে আটক করে। পরে অস্ত্র মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে তাকে আদালতে পাঠানো হয়।  
গ্রেফতারকৃত বিপু (৪৫) উপজেলার জালালাবাদ গ্রামের মৃত আলফার রহমানের পুত্র ও সোনাবাড়িয়া সোনারবাংলা কলেজের সাময়িক বরখাস্তকৃত অধ্যক্ষ।
কলারোয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বিপ্লব দেব নাথ জানান- ‘গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ জামায়াত নেতা আশফাকুর রহমান বিপুকে সোনাবাড়িয়া কলেজের সামনের রাস্তা থেকে গ্রেফতার করা হয়। সেসময় তার কাছে লুকিয়ে রাখা অবস্থায় একটি দেশীয় পাইপগান ও ২ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়।  এ ঘটনায় অস্ত্র আইনে তার বিরুদ্ধে কলারোয়া থানায় একটি মামলা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে এর আগেও ৯টি নাশকতার মামলা রয়েছে বলে পুলিশ জানায়।’
পুলিশ জানায়- গ্রেফতারকৃত আশফাকুর রহমান বিপু ছাত্রজীবনে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রশিবিরের ক্যাডার ছিলো। ১৯৯৫ সালে ছাত্র সংঘর্ষে বোমা বিষ্ফোরণে তার একটি হাত বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। তখন থেকে তিনি হাতকাটা বিপু নামে পরিচিত ছিলো।
অধ্যক্ষ আশফাকুর রহমান বিপুর স্ত্রী একই কলেজে ভূগোল বিভাগের প্রভাষক সোখিনা খাতুন জানান,তার স্বামীকে বুধবার অফিস কক্ষ থেকে সাদা পোশাকে কয়েকজন ব্যক্তি তুলে নিযে যায়। পরে কলেজ কর্তৃপক্ষ জানান,তার স্বামীকে পুলিশ ধরে নিয়ে গেছে।
বুধবার কলারোয়া কলেজের ভাইস প্রিন্সিপাল ও  জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি প্রতিনিধি দল কয়েকটি বিষয়ে তদন্ত করতে সোনারবাংলা কলেজে যায়। প্রতিষ্ঠানটির সভাপতি উপজেলা চেয়ারম্যান প্রতিনিধি দলটির সামনে হাজির হতে বহিষ্কারকৃত অধ্যক্ষ আশফাকুর রহমান বিপুকে উপস্থিত থাকতে চিঠি দেয়। গত ১২ মে বিপুর স্ত্রী সোখিনা খাতুনের কাছে এ চিঠিটা দেয়া হয়।
 টিঠির জবাব দিতে বুধবার বোর্ডের প্রতিনিধি দলের মুখোমুখী হতে কলেজে যান বিপু। এসময় বোর্ডের প্রতিনিধি দলের সামনে থেকে বিপুকে আটক করে পুলিশ বলে তার স্ত্রীর অভিযোগ। তবে কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মঞ্জুয়ারা জানান, আটকের বিষয় তিনি কিছুই জানেন না।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ