ঢাকা, বুধবার 30 May 2018, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ১৩ রমযান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

মাশরাফি নির্বাচন করবেন - পরিকল্পনামন্ত্রী

স্পোর্টস রিপোর্টার : আবার আলোচনায় মাশরাফি মর্তুজা। এবার পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, জাতীয় দলের ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মর্তুজা আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হতে পারেন। গতকাল ঢাকার শেরেবাংলা নগরে একনেকের সভা শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন। মন্ত্রী বলেন, ‘মাশরাফি নির্বাচন করতে পারেন, করলে আপনারা ভোট দেবেন। তিনি বলেন, আগামী নির্বাচনে সবাই তাকে সহায়তা করবেন। মাশরাফি কোনো দল থেকে নির্বাচন করবেন- সাংবাদিকরা জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ‘যেকোনো দল থেকে করতে পারেন’। মাশরাফি যদি বিএনপি থেকে নির্বাচন করেন সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, যদি বিএনপি থেকেও তিনি দাঁড়ান তারপরও তাকে সহায়তা করবেন। মাশরাফি ভালো মানুষ। মন্ত্রী বলেন, ‘মাশরাফি বিপিএলে আমার দলের (বিপিএলে) ক্যাপ্টেন ছিল। সবকিছুতে ওর নিজের একটা মতামত থাকে এবং ও সেটা থেকে বের হয় না, নিজের মধ্যেই থাকে। এটা ভালো গুণ।’ আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, কোন আসন থেকে নির্বাচন করবেন সেটি এখন বলা যাবে না। খেলার মাঝে থেকেও নির্বাচন করা যায়। যেমন আমিও করেছি। আমি তো এখনো খেলার মধ্যেও আছি। তিনি বলেন, আমার ভোট ব্যংক হলো যারা ক্রিকেট পছন্দ করেন। আমি যখন নির্বাচন করি ৪৮ বছর বয়সে, তখন আকরাম খানসহ সবাই আমার নির্বাচনী এলাকায় গিয়েছেন। এখন মাশরাফি, সাকিব অনেক কম বয়সে নির্বাচন করবে। আমি ক্রিকেটের শীর্ষ পদে ছিলাম, আবার পদত্যাগও করেছি। আমি পদত্যাগ না করলে ক্রিকেট শেষ হয়ে যেতো। আইসিসিতে খারাপ লোকগুলো এখন আর নেই, এটা আমাদের সবার বিজয়। পরিকল্পনামন্ত্রীর বক্তব্যের বিষয়ে তাৎক্ষণিক কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি মাশরাফির। নড়াইলের সন্তান মাশরাফি ক্রিকেটের পাশাপাশি নিজের এলাকায় জনকল্যাণমূলক কাজও করছেন। গত বছর ‘নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশন’ নামে একটি প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলেন তিনি। পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের এক মন্তব্যের পর থেকে সারা দেশে ওই আলোচনা ছিল, জাতীয় নির্বাচনে অংশ নেবেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। অবশ্য মাশরাফি ও সাকিবের রাজনীতিতে আসার গুঞ্জন বেশ কিছুদিন থেকেই শোনা যাচ্ছে। পরিকল্পনামন্ত্রীর কথার পর অনেকে ধরেই নিয়েছে, এই দুই তারকা ক্রিকেটার রাজনীতিতে আসছেনই। তবে বিকেলে ভিন্ন কথাই বলেছেন মুস্তফা কামাল। তিনি একটি জাতীয় দৈনিককে জানান, ‘আমি দলের পক্ষ থেকে বা কোনো বিষয়ে নিশ্চিত হয়ে কিছুই বলিনি। তাঁরা নির্বাচন করবে কি না, আমি জানি না। মানুষের মুখে অনেক দিন থেকেই শুনে আসছি মাশরাফি নির্বাচন করবে। সে জন্যই মাশরাফির একজন ভক্ত হিসেবে আমি বলেছি, ও যদি নির্বাচন করে, তাহলে সবাই যেন তাকে ভোট দেন।’ আওয়ামী লীগ থেকে মাশরাফির মনোনয়ন পাওয়ার সম্ভাবনা আছে কি না এমন প্রশ্নে পরিকল্পনামন্ত্রীর পাল্টা প্রশ্ন, ‘আমি মনোনয়ন দেয়ার কে? আমি তো কেউ না।’ মাশরাফি নির্বাচন করবেন, এমন কোনো নিশ্চিত তথ্যও তাঁর কাছে নেই, ‘মাশরাফি নির্বাচন করবে কি না, এ ব্যাপারে নিশ্চিত কোনো খবর আসলেই আমার কাছে নেই। আমিও আপনাদের মতোই লোকমুখে শুনেছি ও নির্বাচন করবে। মাশরাফির সঙ্গে আমার যোগাযোগই নেই। তাঁর মতামত না নিয়ে আমি কীভাবে বলি মাশরাফি নির্বাচন করবে? এটা বলার আমি কেউ না।’ তবে মুস্তফা কামাল ব্যক্তিগতভাবে মনে করেন, মাশরাফি-সাকিব কারওই এবার নির্বাচন করার সুযোগ নেই। কারণ দুজনই এখনো খেলার মধ্যে আছেন, ‘সাকিব, মাশরাফি দুজনই খেলার মাঠে আছে। মাশরাফি তো নিজেই বলেছে  সে ২০১৯ বিশ্বকাপ পর্যন্ত খেলতে চায়। যদি তাঁরা ক্রিকেট খেলে তাহলে নির্বাচন কীভাবে করবে? তারপরও তারা করতে চাইলে সেটা তাদের ব্যাপার।’ 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ