ঢাকা, বুধবার 30 May 2018, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ১৩ রমযান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ট্রাস্ট ব্যাংকের এমডি-ডিএমডিকে জিজ্ঞাসাবাদ

স্টাফ রিপোর্টার : ইউরোপা গ্রুপের বিভিন্ন শিল্প প্রতিষ্ঠানের নামে ঋণ কেলেঙ্কারির অভিযোগে ট্রাস্ট ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ও উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ (ডিএমডি) তিনজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গতকাল মঙ্গলবার সকাল ৯টা থেকে দেড়টা পর্যন্ত দুদক প্রধান কার্যালয়ে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।
দুদকের এক কর্মকর্তা জানান, অভিযোগ অনুসন্ধান কর্মকর্তা ও দুদকের উপ-পরিচালক মো. সামছুল আলমের নেতৃত্বে ব্যাংকটির এমডি ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ইশতিয়াক আহমেদ চৌধুরী, ডিএমডি আবু জাফর হেদায়তুল ইসলাম এবং ইভিপি অ্যান্ড সিআরএম সৈয়দ মনছুর মোস্তফাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।
জিজ্ঞাসাবাদে অনুসন্ধান দলের সদস্য ও দুদকের সহকারী পরিচালক গুলশান আনোয়ার প্রধানও অংশ নেন।এর আগে ইউরোপা গ্রুপের বিভিন্ন শিল্প প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ঋণের নামে শত কোটি টাকা লোপাটের অভিযোগ অনুসন্ধানের অংশ হিসেবে গত রোববার গ্রুপের মালিক সেলিম চৌধুরীকে জিজ্ঞাসাবাদ করে দুদক। সেলিম চৌধুরী এক সময় বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের দল ‘ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্সের’ মালিক ছিলেন। সেলিম চৌধুরীর মালিকানাধীন বিভিন্ন শিল্প প্রতিষ্ঠানের নামে অগ্রণী ব্যাংক, ট্রাস্ট ব্যাংক এবং রূপালী ব্যাংকের চারটি শাখা থেকে শত কোটি টাকার ঋণ নিয়ে আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়ার পর দুদক এই অনুসন্ধান শুরু করে। অগ্রণী ব্যাংকের পুরানা পল্টন শাখার সাবেক এক ব্যবস্থাপকের সহায়তায় ভুয়া জাতীয় পরিচয়পত্র ও জাল কাগজপত্র দেখিয়ে ব্যাংকগুলোতে অ্যাকাউন্ট খুলে ওই অর্থ আত্মসাৎ করা হয় বলে অভিযোগ পেয়েছেন দুদক কর্মকর্তারা। গত বছরের ২৫ জুলাই এ অনুসন্ধান শুরুর পর সেলিম চৌধুরী ছাড়াও ব্যাংক সংশ্লিষ্ট বেশ কয়েকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে দুদক।
ইতোমধ্যে ইউরোপা গ্রুপের প্রতিষ্ঠান এম আর গ্লোবাল লিমিটেড, পদ্মা এগ্রো ট্রেডারস লিমিটেড ও ইউরোপা ফুড অ্যান্ড বেভারেজের ওপর পরিচালিত অডিট রিপোর্ট ও লেনদেন সংক্রান্ত বিভিন্ন নথিপত্রও সংগ্রহ করেছেন দুদক কর্মকর্তারা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ