ঢাকা, রোববার 3 June 2018, ২০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ১৭ রমযান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

মাদক বিরোধী অভিযান অব্যাহত নেশার দ্রব্য উদ্ধার ॥ বহু গ্রেফতার

চট্টগ্রাম ব্যুরো: চট্টগ্রামে কোতওয়ালী থানা পুলিশ বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে ৩০০০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, ১টি মোবাইল ব্যাগ ও ১টি মোটরসাইকেলসহ ৩জনকে গ্রেফতার করেছে।
কোতওয়ালী থানার এসআই/মোঃ হারুন অর রশিদ ফোর্সসহ থানা এলাকায় কোতোয়ালী থানাধীন ২৮৯ আশরাফ আলী রোডস্থ পূরবী সিনেমা হলের কাছে ছায়ানীড় নামাক বিল্ডিংয়ের গেইটের সামনে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করা কালে ৩০০০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, ০১টি মোবাইল ব্যাগ ও ০১টি মোটরসাইকেলসহ মোঃ ফয়েজুল আলম (৩৮), মোঃ সাহাদাৎ হোসেন খোকন (৩৭), রূপনা আক্তার (৩০) দেরকে সকাল ৯.১৫ টায় গ্রেফতার করে। আসামীরা বিভিন্ন পেশার আড়ালে মাদক ব্যবসা পরিচালনা করছে।
উল্লেখ্য আসামী মোঃ ফয়েজুল আলম (৩৮) নিজেকে দৈনিক মুক্তদেশ সংবাদপত্রের সাংবাদিক বলে পরিচয় দেয়। এছাড়াও আসামী রূপনা আক্তার এর স্বামী হাসানুল হক গত ১০ এপ্রিল ২০০০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট সহ পুলিশ কর্তৃক হাতেনাতে আটক হয়ে বর্তমানে জেল হাজতে আছে।
কুষ্টিয়া
কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার পল্লীতে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে দুই মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে। সোমবার (২৮ মে) দিবাগত রাত ৩টার দিকে উপজেলার বোয়ালিয়া ইউনিয়নের শেহালা মাঠে এ ঘটনা ঘটে।
দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজগর আলী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
নিহতরা হলেন, উপজেলার রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়নের সীমান্ত সংলগ্ন মুন্সিগঞ্জ গ্রামের রেজাউল ইসলামের ছেলে মুকাদ্দেস আলী (৪২) ও একই উপজেলার প্রাগপুর বাজারের মৃত ইয়াকুব আলীর ছেলে ফজলুর রহমান ওরফে টাইটেল (৪৮)।
কুষ্টিয়ায় এক হাজার ৭৬৯ রাউন্ড ১২ বোর শর্টগানের গুলি ও দুইটি বন্দুকসহ দুই যুবককে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)-১২ এর সদস্যরা। সোমবার রাত ৯টার দিকে র‌্যাব-১২ এর পক্ষ থেকে সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য জানানো হয়েছে।
আটক যুবকরা হলেন, সদর উপজেলার উদিবাড়ী এলাকার মৃত রুস্তম আলী শেখের ছেলে জিন্নাহ (৩৭) এবং থানাপাড়া এলাকার মৃত আব্দুল আলীমের ছেলে সাজ্জাদুর রহমান টপি (৩৫)। তারা দুজনেই অস্ত্র ব্যবসায়ী বলে জানায় র‌্যাব।
র‌্যাব-১২ জানায়, রবিবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-১২ জেলা শিক্ষা অফিসের সামনে অভিযান চালিয়ে অস্ত্র ব্যবসায়ী জিন্নাহকে ১০০ রাউন্ড ১২ বোর শর্টগানের কার্তুজসহ আটক করা হয়। পরে তার দেওয়া তথ্যমতে রাতে র‌্যাব সদর থানাপাড়ার সাজ্জাদুর রহমান টপি বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ১ হাজার ৬শ ৬৯ রাউন্ড ১২ বোর শর্টগানের গুলি ও দেশে তৈরি দুইটি একনলা বন্দুক উদ্ধার করা হয়।
এ ব্যাপারে কুষ্টিয়া সদর থানায় অস্ত্র আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও জানায় র‌্যাব।
সৈয়দপুর (নীলফামারী)
মাদক বিরোধী অভিযানে নীলফামারীর সৈয়দপুরের উত্তরা আবাসন প্রকল্পে মঙ্গলবার (২৯ মে) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে চার মাদকসেবীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃতরা হচ্ছে তছলিমের ছেলে শামীম (২০), ইসাহাক আলীর ছেলে ওয়াসিম (৩৫), মুন্নার ছেলে সনু (২৮) ও নজরুল ইসলামের ছেলে রেজাউল করিম (৩০)।
নীলফামারী পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আশরাফ হোসেনের নেতৃত্বে সৈয়দপুর থানা পুলিশসহ রিজার্ভ পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ওই আবাসন প্রকল্পটি ঘিরে ফেলে। এরপর অভিযান চালিয়ে চারজন মাদকসেবীকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃতরা সকলেই উত্তরা আবাসন প্রকল্পের বাসিন্দা। অভিযান শেষে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আশরাফ হোসেন জানান, মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে। গোটা নীলফামারী জেলায় কোন মাদক ব্যবসায়ী ও সেবী গ্রেপ্তারের পুলিশি চেষ্টা অব্যাহত থাকবে।
নেত্রকোনা
নেত্রকোনার নিয়মিত মাদক বিরোধী অভিযানের অংশ হিসেবে ২৯ (মে) মঙ্গলবার সকালে মাদক সেবন ও মাদক রাখার অপরাধে একজনকে কারাদন্ড প্রদান করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত ।
জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মঈনউল ইসলামের নির্দেশে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত করে নিবার্হী ম্যাজিস্ট্রেট জনাব সাখাওয়াত জামিল সৈকত।
এ সময় নেত্রকোনা সদরের বাহাদুরপুর গ্রামের মোঃ ফজলু মিয়া (৬৫) কে গাঁজা সেবনরত অবস্থায় ১৫০ গ্রাম গাজাসহ আটক করে।
নীলফামারী
নীলফামারীর ডিমলায় মা-ছেলেসহ তিন মাদক বিক্রেতাকে গ্রেফতার করেছে ডিমলা থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃতদের মঙ্গলবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়।
পুলিশ জানায় সোমবার গভীর রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার ঝুনাগাছ চাপানী ইউনিয়নের দক্ষিণ সোনাখুলী গ্রামে অভিযান চালিয়ে মাদক ব্যবসায়ী সামিনা বেগম (৫০), তার দুই ছেলে সাদেকুল ইসলাম(২২) ও বাচ্চা বাউকে (১৮) ১০ পিস ইয়াবা, ২শত গ্রাম গাঁজা সহ গ্রেফতার করা হয়।
ডিমলা থানার ওসি মফিজ উদ্দিন শেখ জানান গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।
সাপাহার (নওগাঁ)
নওগাঁ জেলার সীমান্তবর্তী উপজেলা সাপাহার। এই উপজেলায় মাদকের ভয়াবহতা অন্য উপজেলা থেকে কম। এবার উপজেলাকে মাদক মুক্ত করতে পুলিশ বিশেষ অভিযানে নেমেছে।
গত কয়েকদিন ধরে সাপাহার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শামসুল আলম শাহ সঙ্গীয় ফোর্স সহ একযোগে মাদক ব্যবসায়ী ও সেবনকারীদের চিহ্নিত করে অভিযান শুরু করেছে। বেশ কয়েকজন মাদক ব্যবসায়ী ও সেবনকারীকে আটক করেছে পুলিশ।
এই অভিযানে মাদক ব্যবসায়ীরা পালাতে শুরু করেছেন। কয়েক দিনের ব্যবধানে দেশের বিভিন্ন স্থানে র‌্যাব ও পুলিশের অভিযানে মাদক ব্যবসায়ী বন্দুকযুদ্ধে নিহতের ঘটনায় সাপাহারে মাদক ব্যবসায়ী ও সেবনকারীদের ভেতরে এক ধরনের আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে।
মুন্সীগঞ্জ
মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে ছয় মাকদ সেবী প্রত্যেককে ছয় মাস করে বিনাশ্রম কারাদন্ড দেওয়া হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট এ দন্ডাদেশ দেন।
দন্ডপ্রাপ্ত আসামী উপজেলার পলাশপুর আশ্রয়ন প্রকল্পের মোঃ আব্দুর রহিম এর পুত্র মোঃ রাহাত (৩৫), মৃত শেখ জলিল উদ্দিন এর পুত্র মোঃ ইসমাইল শেখ (৬০) ও মোঃ খলিল এর সহধর্মীনি মোসাঃ কুলছুম বেগম(৫০)। সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার সিরাজদিখান (সার্কেল) আসাদুজ্জামান এর নেতৃত্বে অফিসার ইনচার্জ আবুল কালামসহ থানার অন্যান্য অফিসার ফোর্সের সহায়তায় চলমান বিশেষ অভিযান পরিচালনা কালে পলাশপুর আশ্রয়ন কেন্দ্র প্রকল্প এলাকায় তল্লাশী করে আসামীদের কাছ থেকে ২৫ পুরিয়া গাঁজা উদ্ধার করা হয়। পরে উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তানবীর মোহাম্মদ আজিম ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে তাদের ছয় মাস করে কারা দন্ড প্রদান করেন।
নেত্রকোনা
নেত্রকোনা শহরে সোমবার গভীররাতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে একই পরিবারের দুই নারীসহ ৪ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে নেত্রকোনা মডেল থানা পুলিশ।
এ সময় তল্লাশি চালিয়ে তাদের কাছ থেকে ৫শ ৭২ গ্রাম হেরোইন ও ২শ ৯২ পিছ নেশা জাতীয় ইনজেকশান উদ্ধার করা হয়।
গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গ্রেফতারকৃত একাধিক মামলার আসামি মাদক বিক্রেতা নেত্রকোনা শহরের বর্শীকুড়া এলাকার দুলাল খানের
স্ত্রী রানী খান (৪৫), ছেলে অনিক খান (২০), পুত্রবধূ শারমিনা আক্তার (১৯) কে নিজ বাড়ী থেকে ৩শ ৪২ গ্রাম হেরোইন ও ২শ ৯২ পিছ নেশা জাতীয় ইনজেকশানসহ গ্রেফতার করা হয়।
অপরদিকে শহরের বারহাট্টা রোড এলাকায় অভিযান চালিয়ে মাদক ব্যবসায়ী মনিরুজ্জামান হীরাকে ২শ ৩০ গ্রাম হেরোইনসহ গ্রেফতার করে।
নেত্রকোনা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বোরহান উদ্দিন খান জানান, মাদক বিরোধী অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন এলাকায় মাদকসেবী ও বিক্রেতাদের গ্রেফতার করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।
দিনাজপুরের হিলিতে পুলিশ মাদক বিরোধী বিশেষ অভিযান চালিয়ে মাদকদ্রব্য সহ ১৪ জন নারী ও পুরুষ মাদক বিক্রেতাকে আটক করেছে।
এসব মাদক বিক্রেতাদের আটক করে পরের দিন দিনাজপুর জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।
হিলি সাকেলের সহকারী পুলিশ সুপার আখিউল ইসলাম জানান, মাদকের বিরুদ্ধে চলো যাই যুদ্ধে এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে  শুক্রবার রাতে  উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় মাদক বিরোধী  অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণে গাঁজা, ইয়াবা, ইনজেকশন, ফেন্সিডিল, মদসহ ৩ জন নারী ও ১১ পুরুষসহ ১৪ জন বিক্রেতাকে আটক করেছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ