ঢাকা, মঙ্গলবার 5 June 2018, ২২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ১৯ রমযান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ঈদে দ্বিগুণ ফ্রিজ বিক্রির টার্গেট মার্সেলের

 

ঈদুল ফিতর ও বিশ্বকাপ ফুটবলকে কেন্দ্র করে চাঙ্গা হয়ে উঠেছে দেশের ইলেকট্রনিক্স পণ্যের বাজার। এর সঙ্গে যোগ হয়েছে অসহনীয় গরম। ফলে উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে ফ্রিজ ও এসির চাহিদা। আর এই বাড়তি চাহিদা পূরণে এগিয়ে রয়েছে দেশীয় কোম্পানিগুলো। বিশেষ করে দেশব্যাপী মার্সেল পণ্যের চাহিদা ও বিক্রি ব্যাপক বেড়েছে। গত রমযানের তুলনায় এবার মার্সেল ফ্রিজ, এয়ার কন্ডিশনার এবং এলইডি টেলিভিশনের বিক্রি ৪০ শতাংশ বেড়েছে। প্রবৃদ্ধির এই ধারাবাহিকতায় এবারের ঈদে দ্বিগুণ ফ্রিজ বিক্রির টার্গেট নিয়েছে মার্সেল।

সংশ্লিষ্টদের মতে, ফ্রিজ, টিভি কিংবা এসির মতো পণ্য কিনতে গেলে তিনটি বিষয় বিবেচনায় নিতে হয়। পণ্যের উচ্চমান, সাশ্রয়ী মূল্য এবং বিক্রয়োত্তর সেবা। এসব বিবেচনায় বিদেশি ব্র্যান্ডের তুলনায় দেশীয় ব্র্যান্ডের প্রতিক্রেতাদের আকর্ষণ বেশি। বিশেষ করে মার্সেল পণ্যের প্রতি ক্রেতাদের আস্থা এখন শতভাগ।

মার্সেলের বিপণন বিভাগের প্রধান ড.মো. সাখাওয়াত হোসেন জানান, গত ঈদের তুলনায় এবার ঈদে দ্বিগুণ ফ্রিজ বিক্রির টার্গেট নিয়েছেন তারা। এই ঈদে মার্সেলের টার্গেট ৩০ হাজার ইউনিট ফ্রিজ বিক্রি করা। যা গত ঈদে ছিল ১৫ হাজার। ইতোমধ্যে ফ্রিজ বিক্রিতে ৪০ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জিত হয়েছে। বিক্রয়ের এই ধারা অব্যাহত থাকলে ঈদের অনেক আগেই লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবে বলে তিনি আশাবাদী। মার্সেল পণ্যের প্রতি ক্রেতাদের এই আস্থার কারণ হিসেবে তিনি বলেন, মার্সেল ফ্রিজের উচ্চ গুণগতমান, রকমারি ডিজাইন ও অসংখ্য কালার, সাশ্রয়ী মূল্য এবং এক বছরের রিপ্লেসমেন্ট গ্যারান্টিসহ কম্প্রেসারে সর্বোচ্চ ১০ বছরের ওয়ারেন্টি সুবিধা। সর্বোপরি বিশ্বের সর্বোচ্চ প্রযুক্তির সেরা পণ্যের নিশ্চয়তা প্রদান।

এছাড়াও, বিক্রয়োত্তর সেবাকে অনলাইনের আওতায় আনতে দেশব্যাপী পরিচালিত ডিজিটাল ক্যাম্পেইন মার্সেল পণ্যের চাহিদা বৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখছেন বলে জানান তিনি। এই ক্যাম্পেইনের আওতায় মার্সেল শোরুম থেকে ক্রেতারা ফ্রিজ, টিভি, এসি কিনে রেজিস্ট্রেশন করলেই পাচ্ছেন আরেকটি ফ্রিজ, টিভি বা এসি সম্পূর্ণ ফ্রি কিংবা আমেরিকা ও রাশিয়া ভ্রমণের সুযোগ। ওইসব সুবিধা নাপেলেও মিলছে ১ হাজার টাকা পর্যন্ত নিশ্চিত নগদ ছাড়। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ