ঢাকা, বুধবার 6 June 2018, ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২০ রমযান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

জিমির হ্যাটট্রিকে আবারো শীর্ষে মোহামেডান

স্পোর্টস রিপোর্টার: গ্রীন ডেল্টা ইন্সুরেন্স  প্রিমিয়ার ডিভিশন হকি লিগের শিরোপা লড়াই জমে উঠেছে। মোহামেডানের পর মেরিনার্সকে হারিয়ে শিরোপা লড়াইয়ে ফিরে এসেছে আবাহনী মেরিনার্সের হারে আর সোনালী ব্যাংককে হারিযে আবারো পয়েন্ট টেবিলে এককভাবে শির্ষে উঠে এসেছে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। গতকাল মঙ্গলবার মওলানা ভাসানী জাতীয় হকি স্টেডিয়ামে অনুষ্টিত দিনের প্রথম ম্যাচে রাসেল মাহমুদ জিমির হ্যাটট্রিকে সোনালী ব্যাংককে ৬-০ গোলের সহজ পার্থক্যে হারিয়েছে  মোহামেডান। লিগের প্রথম পর্বে সোনালী ব্যাংককে ৮-২ গোলে হারিয়েছিল মোহামেডান। জয়ের প্রয়োজনীয়তা নিয়ে খেলতে নেমে ম্যাচের সপ্তম মিনিটে গুরজিন্দর সিংয়ের ফিল্ড গোলে এগিয়ে যায় মোহামেডান। ১৬ মিনিটে নিখুঁত হিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন ভারতের এই ফরোয়ার্ড। ২৮ মিনিটে রাব্বী সালেহীনের গোলে ব্যবধান আরও বাড়িয়ে বিরতিতে যায় মোহামেডান। দ্বিতীয়ার্ধে টানা তিন গোল করেন জিমি। ৪২ ও ৫২ মিনিটের ফিল্ড গোলে মোহামেডানের ত্রয়োদশ জয় অনেকটাই নিশ্চিত করেন জাতীয় দলের এই ফরোয়ার্ড। ৬৭ মিনিটে হ্যাটট্রিক পূরণ করেন জিমি। পেনাল্টি কর্নারে শামসের সিং ঠিকঠাক পুশ করতে পারেননি। সোনালী ব্যাংকের এক ডিফেন্ডার বল পাওয়ার পর তা ছুটে গিয়ে কেড়ে নেন গুরজিন্দর। ভারতের এই ফরোয়ার্ডের বাড়ানো বল রিভার্স হিটে ঠিকানায় পৌঁছে দেন জিমি। চলতি লিগে এটি তার সপ্তম হ্যাটট্রিক।

আশা বাঁচিয়ে রাখল আবাহনী :

প্রিমিয়ার লিগ হকির প্রথম পর্বে মেরিনার ইয়াংসের কাছে হেরে শিরোপা দৌড় থেকে পিছিয়ে পড়েছিল আবাহনী। সুপার ফাইভে গতবারের চ্যাম্পিয়নদের হারিয়েই আশা বাঁচিয়ে রাখল মাহবুব হারুনের দল। একই স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় ম্যাচের শুরুতে পিছিয়ে পড়ার পর মেরিনার্সকে ২-১ গোলে হারায় আবাহনী। প্রথমার্ধের শেষ দিকে এগিয়ে যায় মেরিনার্স। পুস্কর ক্ষীসা মিমোর পুশ রেজাউল করিম বাবু স্টপ করার পর মামুনুর রহমান চয়ন হিট ফিরে আসে। 

এরপর বাবুর ফিরতি হিটে ফরহাদ আহমেদ সিটুল আলতো টোকায় লক্ষ্যভেদ করেন।দ্বিতীয়ার্ধে সমতায় ফেরে আবাহনী। ৪৪ মিনিটে ডান দিক থেকে আশরাদ হোসেনের বাড়ানো বল সারোয়ার হোসেনের স্টিক ঘুরে পেয়ে যান রোমান সরকার। সুযোগ কাজে লাগাতে ভুল হয়নি এই মিডফিল্ডারের।৫১ মিনিটে গোলরক্ষক অসীম গোপ সার্কেলের মধ্যে সারোয়ারকে ফাউল করলে পেনাল্টি স্ট্রোক পায় আবাহনী। আশরাফুল ইসলাম দলকে এগিয়ে নেন। শেষ দিকে আবাহনীর রক্ষণে চাপ দিয়ে একাধিক পেনাল্টি কর্নারের সুযোগ পেলেও কাজে লাগাতে পারেননি মেরিনার্স।এদিকে লিগের ১৫ ম্যাচ খেলে শেষে আবাহনী ৩৯ পয়েন্ট নিয়ে যৌথভাবে মোহামেডানের সাথে শির্ষে রয়েছে। তবে মোহামেডান এক ম্যাচ কম খেলেছে। অপরদিকে মেরিনার্সের সংগ্রহ ৩৬ পয়েন্ট। আগামীকাল বৃহস্পতিবার সুপার ফাইভের শেষ ম্যাচে মোহামেডানের মুখোমুখি হবে মেরিনার্স। এ ম্যাচে জয় পেলেই শিরোপা জিতবে মোহামেডান। আর মোহামেডান হারলে তিন দলেরই পয়েন্ট হবে সমান ৩৯। তখন আবাহনী, মোহামেডান ও মেরিনার্সকে নিয়ে হবে প্লে-অফ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ