ঢাকা, বৃহস্পতিবার 7 June 2018, ২৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২১ রমযান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

চৌগাছা পৌরসভায় ৯ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা 

চৌগাছা (যশোর) সংবাদদাতা : যশোরের চৌগাছা পৌরসভার উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত সোমবার সন্ধ্যায় শহরের ডিভাইন সেন্টার সভাকক্ষে এই বাজেট সভা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। সভায় ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের জন্য ৮ কোটি ২০ লক্ষ ৬৫ হাজার ১শ ৩৫ টাকার বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে। চৌগাছা পৌর মেয়র নূর উদ্দিন আল মামুন হিমেলের সভাপতিত্বে ও পৌর সচিব গাজী আবুল কাশেমের পরিচালনায় ইফতার পূর্ব বাজেট সভা ও ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য মনিরুল ইসলাম মনির। বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন চৌগাছা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইবাদত হোসেন, চৌগাছা থানার অফিসার ইনচার্জ খন্দকার শামীম উদ্দিন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ স¤পাদক ও ফুলসারা ইউপি চেয়ারম্যান মেহেদী মাসুদ চৌধুরী, পৌরসভার সহকারী প্রকৌশলী মুজিবর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা শাহাজান কবীর, যশোর জেলা পরিষদ সদস্য দেওয়ান তৌহিদুর রহমান। অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মাস্টার সিরাজুল ইসলাম, ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম মিয়া, সিংহঝুলি ইউপি সাবেক চেয়ারম্যান রেজাউর রহমান রেন্দু, অধ্যক্ষ ড. মুস্তানিচুর রহমান লাড্ডু, অধ্যক্ষ রফিকুল ইসলাম কবির, অধ্যক্ষ রেজাউল ইসলাম, অধ্যক্ষ শহিদুর রহমান শহীদ, মাস্টার কামাল আহমেদ, চৌগাছা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ স¤পাদক আবুল কাশেম, পৌর কাউন্সিলর আতিয়ার রহমান, সাইদুর রহমান, আনিছুর রহমান, হাসানুর রহমান, আব্দুর রহমান, জোসনা খাতুন, সাবিনা খাতুন, জোহরা খাতুন, আনিছুর রহমান, গোলাম মোস্তফা, সিদ্দিকুর রহমান প্রমুখ।

সভায় মেয়র নূর উদ্দিন আল মামুন হিমেল পৌরসভার ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের জন্য ৮ কোটি ২০ লক্ষ ৬৫ হাজার ১৩৫ টাকার বাজেট ঘোষণা করেন। বাজেটে মোট রাজস্ব আয় ধরা হয়েছে ৩ কোটি ২৭ লক্ষ ৫৭ হাজার ১৭৫ টাকা এবং রাজস্ব ব্যয় ধরা হয়েছে ২ কোটি ৮৮ লক্ষ ৮৮ হাজার ৫০০ টাকা। উদ্বৃত্ত থাকবে ৩৮ লক্ষ ৬৮ হাজার ৬৭৫ টাকা। বিগত বছরের উদ্বৃত্ত ছিল ৯ লক্ষ ৩৯ হাজার ১৭৫ টাকা।

এছাড়া উন্নয়ন ব্যয় ধরা হয়েছে ৪ কোটি ৯৩ লক্ষ ৭ হাজার ৯৬০ টাকা। বাজেট সভায় নতুন অর্থ বছরে হোল্ডিং ট্যাক্সের আদায়ের লক্ষ্য ধরা হয়েছে ৩৭ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা। বিগত অর্থ বছরে চৌগাছা পৌরসভায় হোল্ডিং ট্যাক্স আদায় হয় ১৯ লক্ষ ৭২ হাজার ৯৪৪ টাকা। হাট-বাজার ইজারা থেকে ১ কোটি ৫০ লক্ষ ৬০ হাজার, অন্যান্য আয় ধরা হয়েছে ৬৩ লক্ষ ৭ হাজার ৫০০ টাকা। রাজস্ব আয়ের অন্য অর্থ আসবে ভূমি হস্তান্তর কর থেকে ৪৫ লক্ষ টাকা, ইমারত নির্মাণ, পুনঃ নির্মাণের নক্সা অনুমোদন হতে ৬ লক্ষ ৫০ হাজার, ট্রেড লাইসেন্স খাত থেকে ১৫ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা। এ সময় অনুষ্ঠানে সাংবাদিক, ব্যবসায়ী, সূধীজনসহ নানা শ্রেণী পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ