ঢাকা, শুক্রবার 8 June 2018, ২৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২২ রমযান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

কবিতা

যদি আমি তোমাকে

তাসনীম মাহমুদ

 

হে প্রথম প্রভাতের কাঁচা রোদ্দুর--!

যদি আমি তোমাকে ভালো না বাসতাম

যদি তোমার সাথে আমার 

আত্মিক বা আদর্শিক  কোনো সম্পর্ক গড়ে না উঠতো

কিংবা তোমাকে যদি আমি পরজনমে 

জান্নাতবাসীদের মিছিলে দেখতে না চাইতাম

অথবা তোমাকে দেওয়া প্রতিজ্ঞায় 

কোনো অবমূল্যায়ন 

আমার বিবেক করে বসত কখনো

তাহলে;

আমি নষ্ট মানুষ হয়ে পৃথিবীর প্রতিটি ঘাটে ঘাটে

নষ্ট মানুষের গান গাইতাম!

 

স্মৃতি খুবলে দ্যাখো

অনাকাক্সিক্ষত রিংটোনের সূত্র ধরে

আজ আমি কাক্সিক্ষত মঞ্জিলের দরোজায় দাঁড়িয়ে

আর একটু সময় বাকি প্রবেশের।

 

অথচ; কি আশ্চর্য! একটি পুরনো শকুন

শিকল টেনে দিতে চায়।

কিন্তু সে-তো জানেনা

রুদ্ধ দ্বারে প্রবেশের মানচিত্র কেবল আমার পিঞ্জরে!

 

কেননা; হে প্রথম প্রভাতের কাঁচা রোদ্দুর--!

যদি আমি তোমাকে ভালো না বাসতাম

তথাপি; যদি আমি তোমার কুসুম-কোমল অন্তরের

বীজ না হতাম

তবে জেনে রেখো,--

আমাকে ফিরে যেতে হতো

অবশ্যই আমি ফিরে যেতাম

যেখানে আমার পৈত্রিক নিবাস

পৈত্রিক মর্যাদা,

ভৈরবের শিরদাঁড়া হয়ে এখনো দাঁড়িয়ে রয়েছে ঠায়।

 

তওবা 

মোহাম্মদ ইসমাইল 

 

খাস দিলে এসো তওবা করি;

নফ্স নামের আর ঐ-রিপুটাকে আত্ম-শুধরি!

পবিত্র মাহে রমজানেরই ঐ-রহমতেরি দোরগোড়ায়-

হে আল্লাহ্!আজ আমি দু'হাত তোলে তোমার কাছে 

সেই মাগফেরাতটুকু চাই;

যে সিয়াম সাধনার বলে আমি তোমার কাছে নাজাত পাই!

মুক্তি পাই!!

আহা! মুক্তি নামের ও' রুহুতে ঐ-শান্তি পাই,

যেন শক্তি খুঁজে পাই!  

 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ