ঢাকা, শুক্রবার 8 June 2018, ২৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২২ রমযান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা

 

চুয়াডাঙ্গা সংবাদদাতা: চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার লোকনাথপুর বাসস্ট্যান্ডের পাশে একটি মাঠের ভেতর নির্জন এলাকায় এমএস ফুড প্রোডাক্টস আরএমকে ফুড প্রোডাক্টস নামের একটি নকল ওরস্যালাইন এবং সফট ড্রিংকস পাউডার কারখানার সন্ধান পেয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত রোববার দুপুরে কারখানায় অভিযান চালায়। জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থ্যা(এনএসআই)র সহযোগিতায় চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসন এ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে। অভিযানে কারখানা থেকে স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর ৫০ কার্টুন ওরস্যালাইন, টেস্টি স্যালাইন, অরেঞ্জ সফট ড্রিংকস পাউডার, ডাব সফট ড্রিংকস পাউডার, সফট ড্রিংকস পাউডার তৈরির সরঞ্জাম, ৫০ বস্তা নি¤œমানের লবন ও কেমিক্যাল জব্দ করা হয়। সেই সাথে সফট ড্রিংকস পাউডার তৈরির দুটি মেশিন, একটি ক্রাশ মেশিন, একটি বিলিন্ডার, একটি প্যাকেজিং মেশিন সিলগালা করে দেয়া হয়। এসময় ওই কারখানার মালিক চুয়াডাঙ্গার কবরস্থান পাড়ার জহুরুল ইসলাম মঞ্জুকে ২ লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৩ মাসের কারাদন্ড এবং উৎপাদন বন্ধের নির্দেশ দেয়া হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক সহকারী কমিশনার পাপিয়া আক্তার জানান, দামুড়হুদার লোকনাথপুর বাসস্ট্যান্ডের পাশে একটি মাঠের ভেতর নির্জন এলাকায় জহুরুল ইসলাম মঞ্জু নামের এক ব্যক্তি এমএস ফুড প্রোডাক্টস ও আরএমকে ফুড প্রোডাক্টস নামে একটি নকল সফট ড্রিংকস পাউডার এবং ওরস্যালাইন তৈরির কারখানা গড়ে তোলে। দীর্ঘদিন ধরে ওই কারখানায় হুবহু এসএমসির আদলে তৈরি মোড়কে অনুমোদনহীন ওরস্যালাইন, নিউ টেস্টি স্যালাইন, অরেঞ্জ সফট ড্রিংকস পাউডার ও ডাব সফট ড্রিংকস পাউডার উৎপাদন ও বাজারজাত করে আসলেও তার কোনো অনুমোদন ছিল না।

কালিয়াকৈর

গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার সফিপুর বাজারে বিভিন্ন দোকানে অভিযান চালিয়ে জরিমানা আদায় করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। সোমবার দুপুরে কালিয়াকৈরের সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শাহ মোহাম্মদ শামসুজ্জোহার নেতৃত্বে এ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হয়। 

সফিপুর বাজারে প্লাষ্টিকের বস্তায় চাউল রাখার অপরাধে ৪ চাল ব্যবসায়ীকে ৭২ হাজার, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার রাখার অভিযোগে ৪ হোটেল মালিককে ৪৪ হাজার এবং কৌশলে ওজনে কম দেয়ায় ৩ মাংস বিক্রেতা ৬ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। 

ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শাহ মোহাম্মদ শামসুজ্জোহা জানান, বিভিন্ন চাউলের দোকানে প্লাষ্টিকের বস্তায় চাল রাখা হচ্ছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে সফিপুর বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। এসময় সফিপুর বাজারে গিয়ে এর সত্যতা পেয়ে সফিপুর বাজারের সোহেল ট্রেডার্স, মাসুমা খাদ্য ভান্ডার, বৃষ্টি খাদ্য ভান্নার, মদিনা খাদ্য ভান্নারা কে ৭২ হাজার, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার রাখার দায়ের তিন তারা হোটেল, ভি আইপি সুইট মিট, ভাই ভাই হোটেল এবং ইমাম মুসলিম হোটেল মালিককে ৪৪ হাজার এবং ওজনে কম দেয় রফিকুল ইসলাম, আলমগীর ও আব্দুল খালেক ৬ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। অভিযানে ধার্যকৃত জরিমানারা টাকা নগদ আদায় করা হয়েছে বলেও তিনি। 

এসময় গাজীপুরের মুখ্য পাট পরিদর্শক মোহাম্মদ ফাইজুল্লাহ, কালিয়াকৈর থানা পুলিশসহ উপজেলা ভূমি অফিসের অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ