ঢাকা, রোববার 10 June 2018, ২৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২৪ রমযান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ঘোষিত সময়ের মধ্যে অধিকাংশ শ্রমজীবী মানুষ বেতন বোনাস পায়নি -মিয়া গোলাম পরওয়ার

বাংলাদেশ শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সভাপতি সাবেক এমপি অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার বলেছেন, ২০ রমযানের মধ্যে শ্রমিকদের বেতন বোনাস পরিশোধের যে দাবি শ্রমিক সংগঠনগুলো করে আসছিল এবং সরকারের  যে নির্দেশনা ছিল ত অমান্য করেছে অধিকাংশ  তৈরি পোশাক কারখানা। এতে করে বিভিন্ন কল কারখানায় বিশৃংলা  তৈরী হয়েছে এবং শ্রমজীবী মানুষের দুর্ভোগ বেড়েছে।
গতকাল শনিবার শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশন ট্রেড ইউনিয়ন কমিটি যৌথ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি তিনি কথা বলেন। কমিটির আহবায়ক এস এম লুৎফর রহমানের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন লস্কর মোহাম্মদ তসলিম, কবীর আহমেদ, আতিকুর রহমান, আব্দুস সালাম, মনসুর রহমান,আলমগীর হোসাইন,আব্দুল্লাহ বাছির।
মিয়া গোলাম পরওয়ার আশংকা প্রকাশ করে বলেন, শেষ পর্যন্ত সব শ্রমিক ঈদ বোনাস পাবেন কি না সেটি নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে। তিনি দাবি করেন, শতাধিক কারখানা গত আগস্ট মাসের বেতন দেয়নি। আবার অধিকাংশ কারখানাই চলতি মাসের ১৫ দিনের বেতন দেওয়ার কোনো প্রকার আশ্বাস দেয়নি। সরকারের ঘোষিত সময় সীমার মধ্যে বোনাস পরিশোধ না করার জন্য তদারকি না থাকা ও বিজিএমইএর উদাসীনতাকে তিনি দায়ী করেন।
মিয়া গোলাম পরওয়ার একটি তথ্য উল্লেখ করে বলেন, কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের হিসাব অনুযায়ী, সারা দেশে সাড়ে তিন হাজারের বেশি পোশাক কারখানা আছে। এর মধ্যে গাজীপুর ও নারায়ণগঞ্জেই আছে ১ হাজার ৪২০টি। তবে  অধিকাংশ কারখানা মালিকই বোনাস দেননি। তিনি আরো বলেন, ১০ শতাংশ কারখানাও এখন পর্যন্ত বোনাস দেয় নি। আর অধিকাংশ কারখানা তো চলতি মাসের ১৫ দিনের বেতন দেওয়ার চিন্তাভাবনাই করছে না। এ জন্য তিনি সরকারের তদারকির অভাবকে দায়ী করে বলেন, সরকার কেবল দায়সারাভাবে সময়সীমার ঘোষণাই দেয়। তিনি শ্রমজীবী মানুষের কষ্ট ও মানবিক দিক বিবেচনা করে এই ঈদে সবাইকে শ্রমজীবী মানুষের পাশে দাড়ানোর আহবান জানান। প্রেসবিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ