ঢাকা, সোমবার 11 June 2018, ২৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২৫ রমযান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

‘পবিত্র কুরআনই জাগতিক সব সমস্যা থেকে মুক্তি লাভের একমাত্র পাথেয়’

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির চট্টগ্রাম মহানগরী উত্তর’র উদ্যোগে ছাত্রদের মাঝে কুরআন বিতরণ করছেন প্রধান অতিথি কেন্দ্রীয় সাহিত্য সম্পাদক সালাহ উদ্দিন আইউবী -সংগ্রাম

চট্টগ্রাম ব্যুরো : বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির’র কেন্দ্রীয় সাহিত্য সম্পাদক সালাহ উদ্দিন আইউবী বলেন মানবজাতির হেদায়াতের মহাগ্রন্থ আল-কুরআন নাযিল করেছেন মানুষের সকল প্রকার সমস্যা দূর করার জন্যেই। এই একটি মাত্র গ্রন্থ দিয়ে আমাদের প্রিয় নবী (স.) খুন, হত্যা, রাহাজানিতে ভরা মক্কার আইয়্যামে জাহেলিয়াতকে দূর করে সেখানে তৎকালীন পৃথিবীর সর্বশ্রেষ্ঠ আলোকিত সমাজ-রাষ্ট্র গড়তে সক্ষম হয়েছিলেন। কুরআনে এমন কোন দিক নেই যার সমাধান মানুষ পেতে পারেনা। কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাস, মানবজাতির সমস্যা সমাধানের জন্য সৃষ্টিকর্তা অনুগ্রহ করে যে বিধান দিয়েছেন তা আমরা বেমালুম ভুলে কতিপয় মানুষের তৈরি করা মতবাদ দিয়ে দৈনন্দিন জীবন পার করার ব্যর্থ প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। এর দরুণ আমাদের পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্রে নানা রকম বৈষম্য এবং অশান্তি প্রতিনিয়ত পাইকারি হারে বেড়ে চলেছে। অসহায় মানুষের প্রতি সমাজ, রাষ্ট্র কিংবা সামর্থবান মানুষের যথার্থ দায়বদ্ধতা না থাকায় এরা উপেক্ষিত থাকছে বারংবার। তাই সমাজে প্রচলিত অন্যায়, অশান্তি ও বৈষম্য থেকে মুক্তি লাভের একমাত্র পথ কুরআনের ভিত্তিতে সমাজ ব্যবস্থা কায়েম করা। কুরআন নাযিলের পরই এ মহাবিশ্বের শাসকেরা যতদিন এর ভিত্তিতে রাষ্ট্র পরিচালনা করেছিলেন ততদিন রাষ্ট্রে সব রকম শান্তি ও সমৃদ্ধি বিরাজিত ছিল যা ইতিহাস আমাদের চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দেয়। এজন্য ন্যায়-ইনসাফ ভিত্তিক সমাজ গঠন করতে হলে ব্যক্তি ও রাষ্ট্রীয় জীবনে কুরআনের চর্চা-বাস্তবায়নের কোন বিকল্প নেই।  চট্টগ্রাম মহানগরী উত্তর শিবিরের উদ্যোগে ছাত্রদের মাঝে কুরআন বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি সম্প্রতি এসব কথা বলেন। নগর উত্তর শিবির নেতা কামাল হোসাইন’র পরিচালনায় এতে আরো বক্তব্য রাখেন নগর উত্তর সভাপতি আহমেদ সাদমান সালেহ, আমান উল্লাহ, আবু জোবায়ের, আহসান উল্লাহ প্রমুখ।  নগর উত্তর সভাপতি আহমেদ সাদমান সালেহ বলেন কুরআনের ভিত্তিতে রাষ্ট্র পরিচালনা করতে শাসক শ্রেণির মানসিক দৈন্যতার কারণে সমাজ থেকে অপরাধ ও অপরাধী নির্মূল করতে ব্যর্থ হচ্ছে। এতে করে বিভিন্ন খারাপ কাজে জড়িতদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্র যথাযথ ব্যবস্থা নেয়ার বিপরীতে ক্ষমতার গদি ধরে রাখার স্বার্থে উল্টো তাদেরকেই লালন পালন করতে হচ্ছে। সরকারের নির্দেশ পালন করতে যেয়ে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী নিজেরাই নিজেদের গড়ে তোলা সুনাম-সুখ্যাতি বিসর্জন দিচ্ছে। সমাজে শান্তি-স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে তিনি কুরআনের ভিত্তিতে রাষ্ট্র পরিচালনার জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানান। অনুষ্ঠানে শিবির নেতৃবৃন্দ উপস্থিত শতাধিক ছাত্রদের হাতে পবিত্র কুরআন তুলে দেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ