ঢাকা, মঙ্গলবার 12 June 2018, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২৬ রমযান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ইফতারীর পূর্ব মুহূর্তে পুলিশ সম্পূর্ণ অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করেছে -রফিকুল ইসলাম খান

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরার সদস্য ও নিলফামারী জেলা শাখার সাবেক আমীর অধ্যক্ষ আজিজুল ইসলাম এবং নিলফামারী সদর উপজেলা শাখার কর্মপরিষদ ও মজলিসে শূরার সদস্য আবদুল মালেককে গত রোববার ইফতারির পূর্ব মুহূর্তে পুলিশের অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করার ঘটনার তীব্র নিন্দা এবং প্রতিবাদ জানিয়ে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা রফিকুল ইসলাম খান বলেন, জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরার সদস্য ও নিলফামারী জেলা শাখার সাবেক আমীর অধ্যক্ষ আজিজুল ইসলাম এবং নিলফামারী সদর উপজেলা শাখার কর্মপরিষদ ও মজলিসে শূরার সদস্য আবদুল মালেককে গত ১০ জুন ইফতারীর পূর্ব মুহূর্তে পুলিশ সম্পূর্ণ অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করেছে। তিনি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।
গতকাল সোমবার দেয়া বিবৃতিতে তিনি বলেন, অধ্যক্ষ আজিজুল ইসলাম একজন প্রবীণ শিক্ষাবিদ এবং জনপ্রিয় ও  শ্রদ্ধেয় ব্যক্তি। তার জনপ্রিয়তায় ভীত হয়েই সরকার তাকে এবং আবদুল মালেককে রাজনৈতিকভাবে হয়রাফন করার হীন-উদ্দেশ্যেই গ্রেফতার করেছে। তাকে গ্রেফতার করার মধ্য দিয়ে সরকারের ফ্যাসিবাদী আচরণই অত্যন্ত নগ্নভাবে প্রকাশিত হয়েছে। সরকারের এ ধরনের স্বৈরাচারী কর্মকা-ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে সোচ্চার হওয়ার জন্য তিনি দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান।
সকল প্রকার হয়রানি বন্ধ করে অধ্যক্ষ আজিজুল ইসলামসহ সারা দেশে জামায়াতে ইসলামীর গ্রেফতারকৃত সকল নেতা-কর্মীকে আসন্ন পবিত্র ঈদুল ফিতরের পূর্বেই নিঃশর্তভাবে মুক্তি দেয়ার জন্য তিনি সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ