ঢাকা, মঙ্গলবার 12 June 2018, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২৬ রমযান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ঈদের আগে খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে নতুন কর্মসূচি ঘোষণা

স্টাফ রিপোর্টার : পবিত্র ঈদুল ফিতরের আগেই বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করেছে দলটি। গতকাল সোমবার দুপুরে নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সাংবাদিক সম্মেলনে দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী আহমেদ এই কর্মসূচি ঘোষণা করেন। আগামী ১৪ জুন (বৃহস্পতিবার) সারাদেশে জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি প্রদানের এ কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দেন তিনি।
রিজভী আহমেদ বলেন, গুরুতর অসুস্থ দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে যে তাচ্ছিল্য ও অবহেলা চলছে, তাতে গভীর আশঙ্কা হয় সরকার মহাচক্রান্তে লিপ্ত। ইউনাইটেড হাসপাতালে উন্নতমানের চিকিৎসার দাবি উপেক্ষা করে সরকার তাকে পিজি হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়ার কথা বলছে। সেখানে তো সব দলবাজ চিকিৎসক। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের তো আগেই সেখান থেকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে।
বিএনপির এই নেতা বলেন, আমরা আবারও জোরালো দাবি করছি-কালবিলম্ব না করে এই মুহূর্তে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে তার পছন্দানুযায়ী বিশেষায়িত ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করা হোক। ঈদুল ফিতরের আগেই তাকে নিঃশর্ত মুক্তি দেয়া হোক।
 এদিকে কারাবন্দী বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে হাসপাতালে নেয়া হবে এই খবরে সোমবার সকালে মহিলা দলের নেতাকর্মীদের নিয়ে নাজিম উদ্দিন রোডের কারা ফটকে যান সংগঠনটির কেন্দ্রীয় সভানেত্রী আফরোজা আব্বাস।  কিন্তু যথাযথ মাধ্যমে সেখানে না যাওয়ায় পুলিশ তাদের সেখান থেকে সরিয়ে দেয়। সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মহিলা দলের ২০/২২ জনকে সঙ্গে নিয়ে পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন সড়কের পুরনো কারাগারের সামনের সড়কে লাইন ধরে দাঁড়ান মহিলা দলের নেত্রীরা। এর ১০/১৫ মিনিট পর পুলিশ তাদের সরিয়ে দেয়।
মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস সাংবাদিকদের বলেন, ম্যাডাম অসুস্থ, তাই এসেছি। দেখা করতে চাই, কিন্তু দেখা করতে পারছি না। তবে আফরোজা আব্বাসকে উদ্দেশ করে কর্তব্যরত পুলিশ কর্মকর্তা সানোয়ার হোসেন বলেন, ওয়ার্কিং ডে, তাই এখানে দাঁড়ানো যাবে না।’ এ সময় মহিলা দলের অন্য এক নেত্রী বলেন, আমরা কিছু করব না। এক পাশে দাঁড়িয়ে থাকব শুধু।
প্রসঙ্গত, গেল শনিবার কারাগারে খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন তার ব্যক্তিগত চার চিকিৎসক। সেখান থেকে বেরিয়ে কারা ফটকের সামনে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক এফএম সিদ্দিকী সাংবাদিকদের জানান, খালেদা জিয়া ‘মাইল্ড স্ট্রোক’ করেছিলেন বলে ধারণা তার।
এরপর খালেদা মাইল্ড স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়েছেন কি না তা নিশ্চিত হতে তাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে নেয়া হবে বলে গতকাল জানান আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক। তবে কখন তাকে হাসপাতালে নেয়া হবে সে বিষয়ে কিছু জানাননি তিনি।
উল্লেখ্য, দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় গত ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদ- দেন ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫ এর বিচারক ড. আখতারুজ্জামান। রায়ের পর খালেদা জিয়াকে রাজধানীর নাজিমউদ্দিন রোডের সাবেক কেন্দ্রীয় কারাগারে রাখা হয়েছে। বর্তমানে সেখানেই বন্দী রয়েছেন তিনি। এ মামলায় অন্য আসামি খালেদা জিয়ার বড় ছেলে তারেক রহমানকে ১০ বছরের কারাদ- দেয়া হয়। বিএনপি নেতারা বলে আসছেন কারাগারে ভালো নেই তাদের দলনেতা। তবে আওয়ামী লীগ শুরু থেকেই তা অস্বীকার করে আসছেন আওয়ামী লীগ নেতারা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ