ঢাকা, মঙ্গলবার 12 June 2018, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২৬ রমযান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

অভ্যন্তরীণ কোন্দলের জেরে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ছাত্রলীগ নেতা গুলীবিদ্ধ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সংবাদদাতা : অভ্যন্তরীণ কোন্দলের জের ধরে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রতিপক্ষের গুলীতে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সম্পাদক সাইদুল ইসলাম শান্ত গুলীবিদ্ধ হয়েছেন। গত শনিবার সন্ধ্যায় জেলা ট্রাক মালিক গ্রুপের ইফতার মাহফিলে এ ঘটনা ঘটে। সাইদুল ইসলাম শান্তÍ ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর এলাকার পূর্ব মেড্ডার অহিদ মিয়ার ছেলে এবং জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মোঃ মাসুম বিল্লাহ’র চাচাতো ভাই। তাঁর বুকে দুইটি গুলী লেগেছে। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে একটি বিদেশী পিস্তল ও দুই রাউন্ড গুলীসহ তিন ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। অপর দিকে গুলীবর্ষণের ঘটনায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লিমন আল স্বাধীনকে সংগঠন থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে ও পৌর ছাত্রলীগের কার্যক্রম স্থগিত ঘোষণা করা হয়। গত শনিবার রাতে জেলা ছাত্রলীগের এক জরুরি সভায় এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয় বলে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাৎ হোসেন শোভন নিশ্চিত করেছেন। 

ছাত্রলীগের একাধিক নেতা-কর্মীর সাথে কথা বলে জানা গেছে, শনিবার সন্ধ্যায় পৌর এলাকার মেড্ডা ট্রাক টার্মিনালে জেলা ট্রাক মালিক গ্রুপের ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এতে স্থানীয় সংসদ সদস্য র.আ.ম. উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী প্রধান অতিথি ছিলেন। ইফতার মাহফিল চলাকালে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মোঃ মাসুম বিল্লাহ সেখানে গিয়ে ছাত্রলীগে অনেক বেয়াদব ঢুকে গেছে বলে অভিযোগ তুলেন। এ নিয়ে তার সাথে উপস্থিত কয়েকজন ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীর কথা কাটাকাটি হয়। ইফতারের কিছুক্ষণ আগে মোকতাদির চৌধুরী এমপি অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করার কয়েক মিনিট পর সাইদুল ইসলাম শান্ত গুলীবিদ্ধ হন।

জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মোঃ মাসুম বিল্লাহ অভিযোগ করে বলেন, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লিমন আল স্বাধীন উত্তেজিত হয়ে এ ঘটনা ঘটান। তবে লিমন আল স্বাধীন তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাসুম বিল্লাহ ইফতার মাহফিলে গিয়ে উচ্চবাচ্য শুরু করলে এ নিয়ে বাগবিতন্ডা হয়। এরই এক পর্যায়ে শান্ত আক্রমণের শিকার হন। আহত শান্তকে প্রথমে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতাল ও পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় প্রেরণ করা হয়। এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) মোঃ জিয়াউল হক গতকাল রবিবার বিকেল ৫টায় জানান, এ ঘটনায় এখনো থানায় মামলা হয়নি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। তিনি বলেন, এ ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে একটি বিদেশী পিস্তল, দুই রাউন্ডগুলীসহ তিন ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

আখাউড়ায় মাদক ব্যবসায়ির বাড়িতে সুরঙ্গ : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় বিল্লাল হোসেন নামে এক মাদক ব্যবসায়ীর বাড়িতে সুরঙ্গের সন্ধান পেয়েছে পুলিশ। ওই সুরঙ্গ ব্যবহার করেই মাদক ব্যবসা পরিচালনা করা হতো বলে তথ্য দিয়েছে মাদক ব্যবসায়ীর স্ত্রী। একই সাথে ওই সুরঙ্গটি ঘর থেকে পালানোর পথ হিসেবেও ব্যবহার করা হতো। উপজেলার মনিয়ন্দ ইউনিয়নের জয়পুর গ্রামের মাদক ব্যবসায়ী বিল্লাল হোসেনের বাড়িতে সুরঙ্গের খবরে এলাকায় তোলপাড় চলছে। এলাকাবাসী জানান, মাদক ব্যবসা করে কয়েক বছরেই কোটিপতি হয়ে গেছেন বিল্লাল। 

আখাউড়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ আরিফুল আমিন জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার বিকেলে বিল্লাল হোসেনের বাড়িতে অভিযান চালানো হয়। অভিযান চালানোর সময় একটি ঘরের মেঝেতে ঢাকনা দেখে সন্দেহ হয় পুলিশের। ওই ঢাকনা খুলতেই দেখা যায় সুরঙ্গ পথ। সুরঙ্গের নীচে বৈঠকখানার মতো রয়েছে। যেখানে বৈঠক করার পাশাপাশি রাখা হতো মাদক। এছাড়া ওই সুরঙ্গ দিয়ে ঘর থেকে পালানো যায়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ