ঢাকা, মঙ্গলবার 12 June 2018, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২৬ রমযান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

রায়গঞ্জে যৌতুকলোভী পরিবারের নির্যাতন ॥ গৃহবধূকে ন্যাড়া

রায়গঞ্জ (সিরাজগঞ্জ) সংবাদদাতা: সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জে এক পাষন্ড স্বামী, শ্বশুর, শ্বাশুড়ি ও ননদ মিলে অতিরিক্ত যৌতুকের দাবিতে গৃহবধুকে মারপিট করে ন্যাড়া করে ঘরে আটকে রাখার ঘটনা ঘটেছে। এ ব্যাপারে গৃহবধু বাদী হয়ে গত মঙ্গলবার রায়গঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে। ভূক্তভোগী গৃহবধুর বাবা-মা ও পুলিশ জানায়, বগুড়ার ধুনট উপজেলার খাদুলি গ্রামের আবু তাহেরের কন্যা বিথী (২০ ক রায়গঞ্জ উপজেলার সরাই হাজিপুর গ্রামের ইসমাইল সেখের পুত্র জাহাঙ্গীরের সাথে গত ৩ সেপ্টেম্বর ২০১৬ সালে ২ লাখ টাকা কাবিন মূলে বিয়ে দেয়। বিয়ের পর থেকেই যৌতুকলোভী স্বামী প্রতিনিয়তই অতিরিক্ত যৌতুক দাবি করে স্ত্রীকে পাষবিক নির্যাতন করে আসছিল। এই এক পর্যায় ৩১ মে বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টার দিকে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে পাষন্ড স্বামী, শ্বশুর, শ্বাশুড়ি, ননদ গৃহবধুর নিজঘরে আটক রেখে শারীরিক নির্যাতনের পর মধ্যযুগীয় কায়দায় বিথীর মাথা ল্যাড়া করে দেয়। এরপর নির্যাতিত গৃহবধু সুকৌশলে ফোনে তার পিতা-মাতাকে বিষয়টি অবগত করে। খবর পেয়ে অসহায় পিতা-মাতা মেয়েকে উদ্ধার করতে ছুটে আসে মেয়ের শ্বশুর বাড়িতে। সুকৌশলী শ্বশুর, শ্বাশুড়ি মেয়েকে আটক রেখে বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা চালায়। এদিকে স্থানীয় গ্রাম্য মাতব্বর আব্দুর রাজ্জাক খান ভিকটিমকে উদ্ধার করার চেষ্টায় ব্যর্থ হয়। উপায়ন্তর না পেয়ে অসহায় পিতা-মাতা বিষয়টি থানা-পুলিশকে অবগত করে। এরপর ভিকটিম উদ্ধার হলে গতকাল মঙ্গলবার বিকাল ৩টায় বিথী বাদী হয়ে স্বামী জাহাঙ্গীর, শ্বশুর ইসমাইল, শ্বাশুড়ি জাহানারা ও ননদ আসমাকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করে। রায়গঞ্জ থানা মামলা নং-০২/০৬-১৮। এ ব্যাপারে রায়গঞ্জ থানার তদন্ত ওসি শহিদুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ভিকটিম নিজেই বাদী হয়ে ৪ জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেছে। এ খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়ায় জনসাধারণের মধ্যে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ