ঢাকা, বুধবার 13 June 2018, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২৭ রমযান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

যথাযোগ্য মর্যাদায় পবিত্র লাইলাতুল ক্বদর পালিত

স্টাফ রির্পোটার : যথাযোগ্য মর্যাদা ও ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশসহ আশপাশের দেশসমূহে গতকাল মঙ্গলবার রাতে পবিত্র লাইলাতুল ক্বদর পালিত হয়েছে। মহিমান্বিত এ রাতে মুসলমানগণ নফল নামায,  দোয়া, কুরআন তেলাওয়াত, মিলাদ, জিকির, আযকারসহ বিভিন্ন ইবাদত পালন করেছে। মুসলমানগণ আল্লাহর কাছে জীবনের গোণাহ মাফের জন্য তাওবা করেছে এবং নানা সমস্যার সমাধান চেয়ে মহান আল্লাহর কাছে দোয়া করেছে।
পবিত্র লাইলাতুল ক্বদর উপলক্ষে বিভিন্ন মসজিদ, মাদরাসা, খানকা ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে বিশেষ কর্মসূচি পালন করেছে। ইসলামিক ফাউন্ডেশনসহ ধর্মীয় সংগঠনসমূহ ওয়াজ মাহফিল ও আলোচনা সভার আয়োজন করেছিল। পবিত্র লাইলাতুল ক্বদর উপলক্ষে প্রেসিডেন্ট আব্দুল হামিদ এডভোকেট, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া পৃথক পৃথক বাণী দিয়েছেন। জাতীয় ও আঞ্চলিক সংবাদপত্রসমূহ বিশেষ নিবন্ধ প্রকাশ করেছে এবং বাংলাদেশ টেলিভিশন, বাংলাদেশ বেতার ও বেসরকারি রেডিও ও টিভি চ্যানেলসমূহ বিশেষ বিশেষ অনুষ্ঠান প্রচার করেছে।
উল্লেখ্য, গোটা রমযানের মর্যাদা বৃদ্ধি পেয়েছে পবিত্র লাইলাতুল ক্বদরকে ঘিরে। আর এই লাইলাতুল ক্বদর সম্পর্কে পবিত্র কুরআন ও হাদীসে অনেক বর্ণনা এসেছে। তবে কোথাও নির্দিষ্টভাবে লাইলাতুল ক্বদরের রাত নির্ধারণ করা হয়নি। হাদীসে বলা হয়েছে রমযানের শেষ দশকের বেজোড় রাতে লাইলাতুল ক্বদর তালাশ করার জন্য। বিশিষ্ট হাদীস বিশারদ ও ফিকাহ শাস্ত্র বিশারদগণ বিভিন্ন যুক্তি দিয়ে ধারণা করেছেন যে পবিত্র লাইলাতুল ক্বদর রমযানের ২৭ তারিখ রাতেই হতে পারে। এ জন্য এ রাতকে লাইলাতুল ক্বদর হিসেবে মুসলমানগণ পালন করে থাকে। আর সুনির্দিষ্টভাবে এ রাতকে চিহ্নিত করতে না পারায় এ রাতের মর্যাদা হাসিল করার জন্য মোমিন বান্দাহগণ ইতিক্বাফে বসেন। এ রাতে পবিত্র কুরআন নাযিল হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ