ঢাকা, বুধবার 13 June 2018, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২৭ রমযান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

আওয়ামী লীগ শুধু মেয়র মান্নানকে নয় গোটা নগরবাসীকে নির্যাতন করেছে -হাসান উদ্দিন সরকার

গাজীপুর সংবাদদাতা : গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ধানের শীষ প্রতীকে ২০ দলীয় জোট মেয়রপ্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা হাসান উদ্দিন সরকার বলেছেন, গাজীপুর নগরবাসীর প্রতিটি দুর্ভোগই মেয়র অধ্যাপক এমএ মান্নানের নির্যাতনের কথা স্মরণ করিয়ে দেয়। আওয়ামী লীগ শুধু মেয়র মান্নানকেই নির্যাতন করেনি বরং প্রকারান্তরে গোটা নগরবাসীকে নির্যাতন করেছে। আজকে সামান্য বৃষ্টি এলেই এই নগর তলিয়ে যায়। মেয়র মান্নান নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী সর্বপ্রথম জলাবদ্ধতা নিরসনের উদ্যোগ নিয়েছিলেন। তাকে সেই উদ্যোগ বাস্তবায়নের সুযোগ দিলে আজকে জলাবদ্ধতায় নগরবাসীর এই দুর্ভোগ থাকতো না।
হাসান উদ্দিন সরকার গতকাল মঙ্গলবার টঙ্গীতে নিজ বাস ভবনে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে এসব কথা বলেন। হাসান সরকার মঙ্গলবার নিজ বাস ভবনেই দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে নির্বাচনী আলোচনা করেন। দুপুরে নির্বাচনী এলাকার বাইরে বাঘের বাজার এলাকায় নিজের সাবাহ গার্ডেনের প্রতিবেশী দরিদ্রদের মধ্যে জাকাতের কাপড় বিলি করেন।
হাসান সরকার আরো বলেন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মিথ্যা মামলায় নির্মমভাবে কারানির্যাতন করা হচ্ছে। তিনি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লেও তার চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হচ্ছে না। অথচ চিকিৎসা প্রতিটা নাগরিকের মৌলিক অধিকার। বেগম খালেদা জিয়ার সাথে একজন সাধারণ নাগরিকের মতোও আচরণ করছে না এই জালিম সরকার। সাবেক দুই বারের প্রধানমন্ত্রীর চিকিৎসার জন্য আজকে দাবী উত্থাপন করতে হয়; এর চেয়ে লজ্জার আর কি হতে পারে। অথচ দেশে মহা উৎসবে দুর্নীতি ও লুটপাট চলছে। কোন বিচার হচ্ছে না। সাধারণ মানুষও কোন ন্যায় বিচার পাচ্ছে না। দেশে বিচারের নামে চলছে প্রহসন। মানুষের ভোটাধিকারও হরণ করা হচ্ছে। গুম, খুন, জুলুম, নির্যাতন, দুঃশাসনে অতিষ্ঠ মানুষ প্রতিবাদের ভাষা হারিয়ে ফেলছে। অতি শোকে মানুষ পাথর হয়ে গেছে। এ অবস্থায় মানুষ ব্যালট প্রয়োগের সুযোগ পেলে সমুচিত জবাব দেবে।
তিনি আরো বলেন, যারা রোজা থেকেও ক্ষমতা পাকাপোক্ত করার জন্য মিথ্যা কথা বলে এবং যারা তাদেরকে সহযোগিতা করে প্রত্যেককেই মহান আল্লাহর দরবারে জবাবদিহী করতে হবে। তিনি বলেন, সরকারি দলের মেয়রপ্রার্থী ও মন্ত্রী-এমপিরা আচরণবিধি লঙ্ঘন করলেও কোন ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না। অভিযোগ দিয়েও কোন কাজ হচ্ছে না। তারা সব কিছুই করছে। আমাদেরকে ইফতার ও জাকাতের মতো দান খয়রাতের কাজেও বাধা দেওয়া হচ্ছে।
হাসান সরকার আরো বলেন, মেয়র মান্নানকে বরখাস্ত করে আওয়ামীলীগ নিজেদের লোক দিয়ে উন্নয়নের নামে লুটপাট করেছে। তা না হলে নগরীর চিত্র আজ এমন হতো না। জনগণকে দেয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের জন্য মেয়র মান্নানের আন্তরিকতার কোন কমতি ছিল না। তিনি দীর্ঘ আইনী লড়াইয়ে জেল থেকে মুক্তি পেয়েই অগ্রাধিকার ভিত্তিতে রাস্তা-ঘাট সংস্কারসহ বিভিন্ন অবকাঠামো উন্নয়নের জন্য প্রায় পৌনে চার শত কোটি টাকার উন্নয়ন প্রকল্পের টেন্ডার আহ্বান করেছিলেন। কিন্তু সেই টেন্ডার স্থগিত করে তাকে কাজ করতে দেয়া হয়নি। বর্তমানে নগরবাসীর যে দুর্ভোগ এর জন্য মেয়র মান্নান নয়, বরং আওয়ামীলীগই শতভাগ দায়ী। তিনি ভোটারদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনারা নির্বিঘেœ কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিন। আপনাদের মূল্যবান ভোটে আমি নির্বাচিত হলে আওয়ামীলীগের লুটপাটের খায়েশ আর পূরণ হবে না। আমার দীর্ঘ দিনের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ, মাদক ও দুর্নীতিমুক্ত একটি নগরি উপহার দিতে চাই। আমি কথা দিলাম, আপনাদের আমানতের কোন খেয়ানত করবো না, আপনাদের প্রতিটি পয়সা যথাযথভাবে আমানতের সাথে খরচ করবো।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ