ঢাকা, বুধবার 13 June 2018, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২৭ রমযান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

এমপিও’র সুনির্দিষ্ট ঘোষণা না আসলে রাজপথে ঈদ

গতকাল মঙ্গলবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীদের উদ্যোগে চাকরি জাতীয়করণের দাবিতে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করা হয় -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার: এমপিওর দাবিতে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন নন-এমপিও শিক্ষকরা। পুলিশী বাধা উপেক্ষা করে নন-এমপিও শিক্ষকরা তৃতীয় দিনেও জাতীয় প্রেসক্লাবের বিপরীত পাশে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন। পবিত্র ঈদুল ফিতরের আগে সুনির্দিষ্ট ঘোষণা না আসলে রাজপথে ঈদ পালনের ঘোষণা দিয়েছেন আন্দোলনকারী শিক্ষক-কর্মচারীরা।
আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে গতকাল মঙ্গলবার নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিক্ষক-কর্মচারী ফেডারেশনের সভাপতি অধ্যক্ষ গোলাম মাহমুদুন্নবী ডলার বলেন, আমরা এমপিওভুক্তির দাবিতে শান্তিপূর্ণ আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছি। কিন্তু পুলিশ প্রেসক্লাবের সামনে বসতে দিচ্ছে না। বলছে আন্দোলন করতে সরকারের অনুমতি নিয়ে আসতে। আন্দোলনের জন্য সরকার অনুমতি কাউকে দেয় না। পুলিশ আন্তরিক নয় বলে কর্মসূচি পালনে বাধা দিচ্ছে। এ কারণে প্রেসক্লাবের মূল সড়কের বিপরীত পাশে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছি। আমরা আমাদের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালনে পুলিশের সহায়তা কামনা করছি।
শিক্ষক নেতারা বলেন, শিক্ষামন্ত্রীর আশ্বাসে আমাদের বিশ্বাস নেই। তিনি অনেকবারই এমন আশ্বাস দিয়েছেন। উনার ইচ্ছাও নেই এমপিও করার। একটা জনতুষ্টির জন্য উনি এমন আশ্বাস দেন। সময় হলে তা আবার ভুলে যান। এ কারণে গতকাল সোমবার শিক্ষামন্ত্রী আমাদের বাড়ি ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানালে আমরা তা প্রত্যাখ্যান করি।
তারা বলেন, বিনা বেতনে শিক্ষকতা করতে করতে চাকরির বয়স প্রায় শেষ হয়ে আসছে। তারপরও সরকারের শুভবুদ্ধির উদয় হচ্ছে না। আমাদের মেধা আর শ্রমে গড়া শিক্ষিত জাতির ক্রেডিট নিচ্ছে সরকার। কিন্তু তাদের কারিগররা অভূক্ত। এভাবে চলতে পারে না। আমাদের কাছে পড়া-লেখা করে আমাদের ছাত্ররা আজ বড় বড় অফিসার। কিন্তু আমরা অভূক্ত রয়েই গেছি। আর কতোদিন! বর্তমানে আমাদের সামাজিক মর্যাদা ধোলায় মিশে গেছে। পরিবার ও সমাজের কাছে আজ আমরা সবচেয়ে অবহেলিত। এভাবে বেঁচে থাকা যায়না।
ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ ড. বিনয় ভূষণ রায় বলেন, শিক্ষামন্ত্রী গত ১০ বছর ধরে বলে আসছেন বাজেটে বরাদ্দ থাকলে এমপিওভুক্ত করা হবে। অথচ মন্ত্রী নতুন করে মিথ্যাচার করছেন যে বাজেটে বরাদ্দ জরুরি বিষয় নয়। এভাবে আর কতোবার প্রতারিত হবো। এমপিওভুক্তির সুনির্দিষ্ট বক্তব্য বা গেজেট প্রকাশের ঘোষণা না আসলে শিক্ষক-কর্মচারীরা রাজপথে পবিত্র ঈদুল ফিতর পালন করবেন।
উল্লেখ্য, এমপিওভুক্তির দাবিতে নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা গত বছরের ২৬ ডিসেম্বর থেকে প্রেসক্লাবের সামনে লাগাতার কর্মসূচি শুরু করেন। নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিক্ষক-কর্মচারী ফেডারেশনের ডাকে টানা ওই অবস্থান ও অনশনের একপর্যায়ে গত ৫ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে তার তৎকালীন একান্ত সচিব সাজ্জাদুল হাসান প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে সেখানে গিয়ে তাদের দাবি পূরণের আশ্বাস দেন। প্রধানমন্ত্রীর প্রতি সম্মান দেখিয়ে শিক্ষক-কর্মচারীরা আন্দোলন কর্মসূচি স্থগিতের ঘোষণা দেন। এরপর সরকারের বিভিন্ন পর্যায় থেকে বলা হয়েছে আসন্ন অর্থবছরে নতুন বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হবে। কিন্তু অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত গত ৭ জুন যে বাজেট প্রস্তাব করেন সেখানে তিনি নতুন এমপিওভুক্তির বিষয়ে সুস্পষ্ট কিছু বলেননি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ