ঢাকা, বুধবার 13 June 2018, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২৭ রমযান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

জামায়াত মনোনীত এডভোকেট মোয়াযযমের ব্যাপক গণসংযোগ

বরিশাল অফিস : বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে ২০ দলীয় জোটের সমর্থন প্রত্যাশা করছে জামায়াতে ইসলামী। সে লক্ষ্যে তারা গত কয়েকমাস যাবত মেয়র পদে দলীয় প্রার্থী দলীয় মনোনয়ন দিয়ে নগরীর প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে নিজস্ব নির্বাচন পরিচালনা কমিটি গঠন করেছে। প্রতিদিন বিভিন্ন পেশাজীবীদের সাথে দফায় দফায় মতবিনিময় সভা করছেন তারা। এলক্ষ্যে গতকাল মঙ্গলবার নগর জামায়াতের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির এক জরুরি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচন পরিচালনা কমিটির প্রধান সম্বয়ক বরিশাল মহানগর জামায়াতের নায়েবে আমীর শিক্ষাবিদ অধ্যক্ষ আমিনুল ইসলাম খসরু দৈনিক সংগ্রামকে জানান, আজকের বৈঠক থেকে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র পদে আনুষ্ঠানিক ভাবে ২০ দলের প্রার্থী হিসাবে মহানগর জামায়াতের আমীর ও ২০ দলীয় জোটের সদস্য সচিব এডভোকেট মোয়াযযম হোসাইন হেলালকে প্রার্থী করার দাবি জানানো হবে। তিনি বলেন, এব্যাপারে স্থানীয় জোট নেতাদের আনুষ্ঠানিক ভাবে অবহিত করে জোটের বৈঠক ডাকার আহ্বন জানানো হবে।
এদিকে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের বিগত নির্বাচনগুলোতে জামায়াতে ইসলামী জোটের স্বার্থে বিএনপির প্রার্থীকে সমর্থন দিয়ে গেলেও এবার আর তেমনটি থাকছেনা। কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় জামায়াত নেতাকর্মীদের সিদ্ধান্তের আলোকে এখানে জামায়াতে ইসলামীর মেয়র প্রার্থী হচ্ছেন দলের কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও বরিশাল মহানগর জামায়াতে ইসলামীর আমীর সাবেক ছাত্র নেতা ও বিশিষ্ট আইনজীবী এডভোকেট মোয়ায্যম হোসাইন হেলাল।
জামায়াতে ইসলামীর মহানগর শাখা নায়েবে আমীর ও দলের সিটি নির্বাচন সমন্বয়ক শিক্ষাবিদ অধ্যক্ষ আমিনুল ইসলাম খসরু এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, ‘আমরা বরিশালে এককভাবে নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমরা প্রত্যাশা করবো ২০ দলীয় জোটের পক্ষ থেকে এবার আমাদের প্রার্থীকে সমর্থন দেয়া হবে। কারণ জোটের স্বার্থে আমরা বিগত নির্বাচনগুলোতে বিএনপিকে সমর্থন দিয়েছিলাম। এবার আমরা বিএনপি সহ ২০দলীয় জোটের অন্য শরিকদের সমর্থন আমরা প্রত্যাশা করি।
অধ্যক্ষ খসরু আরো বলেন, সংগঠনের সদস্যরদর সরাসরি ভোটে এখানে দলের মেয়র প্রার্থী হিসেবে চুড়ান্ত হয়ে আছেন বরিশাল মহানগর জামায়াতের আমীর জননেতা এডভোকেট মোয়ায্যম হোসাইন হেলাল। নির্বাচন কমিশন থেকে দলীয় প্রতীকে আমাদের প্রার্থীতা গ্রহণ করা না হলে আমরা স্বতন্ত্রভাবে একক নির্বাচন করবো’। নগরীর প্রতিটি ওয়ার্ডে জামায়াতে ইসলামীর শক্তিশালী কমিটি রয়েছে দাবী করে অধ্যক্ষ খসরু আরো বলেন, নগরীর ৩০টি ওয়ার্ডের সভাপতি সম্পাদকগণ মতামত দিয়ে আমাদের প্রার্থী চূড়ান্ত করেছেন। মেয়র পদ ছাড়াও নগরীর বেশকয়েকটি ওয়ার্ডে জামায়াতে ইসলামী তাদের কাউন্সিলর প্রার্থী চূড়ান্ত করে কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।
জামায়াত প্রার্থী এডভোকেট মোয়ায্যম হোসাইন হেলাল বরিশাল ২০ দলীয় জোটের সদস্য সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। বিগত ১০ বছরে রাজনৈতিক কারণে প্রায় ১৮টি মামলায় তাকে আসামী করা হয়েছে। রাজনৈতিক এসকল মামলার কারণে তাকে অসংখ্যবার জেলে যেতে হয়েছে। তিনি রাজনৈতিক নেতাদের মধ্যে সমসায়িককালে সবচেয়ে বেশী নির্যাতনের স্বীকার। এছাড়াও তিনি বরিশাল বারের পেশাদার আইনজীবী হিসেবে তার সুনাম রয়েছে।
ছাত্রজীবনে তিনি ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় অফিস সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮১ সালে বিএম কলেজ ছাত্রসংসদ (বাকসু) নির্বাচনে ভিপি এবং ১৯৮৯ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রসংসদ (ডাকসু) নির্বাচনে পরিবহন সম্পাদক পদে ইসলামী ছাত্রশিবিরের মনোনীত প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করেন এডভোকেট মোয়ায্যম হোসাইন হেলাল। 
এদিকে ২৯ মে বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পরদিন থেকে প্রায় প্রতিদিনই নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সভাসহ বিভিন্ন সেক্টরের পেশাজীবীদের সাথে মতবিনিময় সভা করেছে বরিশাল মহানগর জামায়াত। এসব সভায় মেয়র পদে দলীয় প্রার্থী এডভোকেট মোয়ায্যম হোসাইন হেলালের পক্ষে কাজ করার জন্য ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে ভোটকেন্দ্র কমিটিও গঠন করা হয়। একই সাথে নগরীর ৫টি ওয়ার্ডে নিজেদের কাউন্সিলর প্রার্থীর পক্ষে সক্রিয়ভাবে কাজ করার জন্য নেতাকর্মীদেরকে নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ