ঢাকা, বুধবার 13 June 2018, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২৭ রমযান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ঈদের পর থেকে খুলনা মহানগরীর সড়কে জ্বলবে স্বয়ংক্রিয় বাতি

খুলনা অফিস: বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী এবং নবায়নযোগ্য জ্বালানিতে উৎসাহ বাড়াতে খুলনা মহানগরীর সড়কে স্থাপন করা হবে সোলার এলইডি ও নন এলইডি সড়কবাতি। ইন্টারনেটের মাধ্যমে এসব বাতি জ্বালানো, বন্ধ করা এবং আলো কমানো এবং বাড়ানোর ব্যবস্থা থাকবে। বৃহস্পতিবার ২ হাজার ৯২৪টি বাতি খুলনা সিটি করপোরেশনে (কেসিসি) এসে পৌঁছেছে। গতকাল রোববার বৈদ্যুতিক পোল আনা হয়েছে। প্রায় ৩০০ কেজি ওজনের একেকটি পোল ও সড়ক বাতি কেসিসির অ্যাসফল্ট প্লান্ট এলাকায় সংরক্ষণ করা হচ্ছে। ঈদের পর থেকে নগরীর ৫৬ কিলোমিটার সড়কে এসব বাতি স্থাপন করা হবে।
কেসিসি থেকে জানা গেছে, সোলার স্ট্রিট লাইট প্রোগ্রাম ইন সিটি কর্পোরেশন প্রকল্পের আওতায় দেশের ৮টি শহরে একযোগে এই বাতি স্থাপন করা হবে। খুলনার অংশে ৫৬ কিলোমিটার সড়কে এই বাতি লাগানো হবে। এতে ব্যয় হবে ২২ কোটি ৫০ লাখ টাকা। প্রকল্পের আওতায় ৩৩ কিলোমিটার সড়কের একপাশে ১ হাজার ৩১৯টি বাতি এবং ১৭ কিলোমিটার সড়কের দুই পাশে ৭০৫টি বাতি লাগানো হবে। চীনে তৈরি এই লাইট ও বৈদ্যুতিক পোল ইতোমধ্যে খুলনায় এসে পৌঁছেছে।
এছাড়া দুই কিলোমিটার সড়কে ৭৭টি সোলার স্ট্রিট লাইট লাগানো হবে। সৌর বিদ্যুতের মাধ্যমে এই লাইট জ্বলবে। সোলার লাইট মূলত পরীক্ষামূলকভাবে লাগানো হচ্ছে। এই বাতি কার্যকর হলে পরবর্তীতে এই সংখ্যা আরও বাড়ানো হতে পারে।
এ ব্যাপারে খুলনা সিটি করপোরেশনের নির্বাহী প্রকৌশলী জাহিদ হোসেন শেখ জানান, সোডিয়াম সড়কবাতির স্থলে বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী সড়কবাতি স্থাপন করা হচ্ছে। এতে থাকবে রিচার্জেবল লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারি এবং সোলার প্যানেলের মাধ্যমে ব্যাটারিটি সূর্যালোকের পাশাপাশি মাইক্রোইউএসবি পোর্টের মাধ্যমেও চার্জ করার ব্যবস্থা। ইন্টারনেটের মাধ্যমে সড়ক বাতিলগুলো নিয়ন্ত্রণ করা যাবে। এজন্য সন্ধ্যা থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত আলোর তীব্রতা বাড়ানো এবং মধ্যরাতের পর আলো কমানোর ব্যবস্থা থাকবে। নগর ভবনে বসেই নগরীর কোন সড়কে বাতি বিকল তা জানা যাবে এবং নিয়ন্ত্রণ করা যাবে। এই বাতি স্থাপনে নগরীর সৌন্দর্য বাড়বে।
তিনি জানান, নগরীর প্রধান সড়কগুলোর মাঝে ডিভাইডারে বৈদ্যুতিক পোল বসানো হবে। কেডিএ এভিনিউ, ডাকবাংলা থেকে জোড়াগেট, রয়েল মোড় থেকে রূপসা মোড়, দৌলতপুর থেকে রেলিগেট, জলিল স্মরণী ও মজিদ স্মরণীতে দুই পাশেই বাতি থাকবে। অন্য সড়কগুলোয় একপাশে বাতি লাগানো হবে। আর কয়েকটি স্থানে সোলার লাইট লাগানো হবে। এর মধ্যে শিববাড়ি মোড়ে চারটি, আট থানায় আটটি এবং রূপসাঘাট সংলগ্ন এলাকা, রূপসা সেতু, রয়্যাল মোড়, গল্লামারী মোড়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, সোনাডাঙ্গা বাসস্ট্যান্ড, সোলার পার্ক, গোয়ালখালী মোড়, নতুন রাস্তার মোড়, দৌলতপুর, কুয়েটে দুইটি করে সোলার বাতি স্থাপন করা হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ