ঢাকা, বুধবার 13 June 2018, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, ২৭ রমযান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ভাইস চেয়ারম্যানের কান্ড!

আগৈলঝাড়া (বরিশাল) সংবাদদাতা : আগৈলঝাড়ায় প্রধান শিক্ষিকাকে ম্যানেজ করে ক্ষমতার অপব্যবহার করে নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অর্ধ লক্ষাধিক টাকার গাছ বিক্রি করে দিয়েছেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান  ও যুবলীগ নেতা জসীম সরদার। এ ঘটনায় স্কুল ম্যানেজিং কমিটিসহ এলাকায় তীব্র ক্ষোভ ও অসন্তোষের সৃষ্টি হয়েছে। খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার সহকারী দুই জন শিক্ষা কর্মকর্তা ঘটনাস্থল গিয়ে তারও ভাইস চেয়ারম্যানের মাধ্যমে প্রভাবিত হয়ে অবৈধভাবে বিক্রি করা গাছ জব্দ না করে অভিযুক্তদের সাফাই বক্তব্য নিয়ে ফিরেছে। কাটা গাছ জব্দ করেছেন ইউএনও।
উপজেলার পশ্চিম সুজনকাঠী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভূমি দাতা ও সাবেক সদস্য ওই গ্রামের পরিমল রায় জানান, তার বাবা স্কুল প্রতিষ্ঠার সময় অন্তত ২০ বছর আগে ২৮ শতক জায়গা দান করেন। এছাড়াও স্থানীয় চিত্ত রঞ্জন মল্লিকও ৮শতক জায়গা দান করেন। তার কমিটির সময় স্কুল চত্তরে লাগানো হয় বিভিন্ন প্রজাতির গাছ।
তিনি আরও বলেন, বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান জসীম সরদার ম্যানেজিং কমিটি তার আজ্ঞাবহ প্রধান শিক্ষিকা স্মৃতিকণা দাসকে ম্যানেজ করে নিজের ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে স্কুল কমিটির কোন সভা না করে; এমনকি বিদ্যলয়ের কাউকে না জানিয়ে বিনা কারণে স্কুল চত্তরের কমপক্ষে অর্ধ লক্ষাধিক টাকা মূল্যের ২টি মেহগনি ও ৯টি চাম্বল গাছ তার ফুফাতো ভাই ফরহাদ মিয়ার কাছে বিক্রি করে দিয়েছেন। ক্রেতা ফরহাদ মিয়া বুধবার থেকে গাছ কেটে নেয়া শুরু করলে সভাপতি বা প্রধান শিক্ষিকা বিষয়টি প্রশাসনের সংশ্লিষ্টদের অবহিত করেননি। জানা গেছে, চলতি মাঠ জরিপে বিদ্যালয়ের নামে ১৫০২ খতিয়ানে তিনটি দাগে ২৬.৬৬ শতক জায়গা রেকর্ড হয়। সরকারী নিয়মানুযায়ী পূর্বে ৫৫ শতক, তার পর ৫২ শতক ও বর্তমানে ৩৩ শতক জমি থাকার বাধ্য বাধকতা থাকলেও বর্তমানে ওই স্কুলে জায়গা রয়েছে ২৬.৬৬ শতক। যা বিদ্যালয় স্থাপনে পরিপত্র পরিপন্থী।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ