ঢাকা, বুধবার 20 June 2018, ৬ আষাঢ় ১৪২৫, ৫ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজর
Online Edition

চীনে বিভিন্ন শহরজুড়ে বাইসাইকেলের পাহাড়!

বাই সাইকেল বর্তমান সময়ে খুবই জনপ্রিয়। বিশেষ করে তরুণ সমাজের কাছে। শারীরিক ব্যায়ামের পাশাপাশি সময়ও বাঁচায় এই বাহনটি। অতি দ্রুত যেকোন স্থানে যাওয়া যায়। এশিয়ার, ইউরোপের দেশগুলোতে বাইসাইকেল এখন অনেক জনপ্রিয়। তবে চীনে বাইসাইকেল সবসময়ই খুব জনপ্রিয় একটি বাহন।
এটি শুধু বাহন হিসেবেই নয়, দেশটি এই খাতে বেশ বিনিয়োগও করছে। প্রথিবীর প্রায় দেশেই তাদেও তৈরী সাইকেল এখন জনপ্রিয়। তবে ইদানীং বাইসাইকেল শেয়ারিং অ্যাপ এতটাই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে যে বহু নতুন কোম্পানি সেখানে এই ব্যবসায় যুক্ত হয়েছে।
কিন্তু তার ফল হল চীনের শহর গুলোর রাস্তায় এত বেশি বাইসাইকেল চলতে শুরু করলো যে তা নিয়ে কর্তৃপক্ষকে রীতিমতো বেগ পেতে হচ্ছিলো। শুধু বেইজিং শহরেই প্রায় ২৫ লাখের মতো নতুন বাইসাইকেল যুক্ত হল। রাস্তার ধারে যত্রতত্র সেগুলো রেখে যাচ্ছিলেন ব্যবহারকারীরা।
চীনের বেশ কিছু শহর তাই প্রায় ১৫ টি অ্যাপের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করার পর এখন বাইসাইকেলের জায়গা হয়েছে রাস্তার ধারে। পরিত্যক্ত বাইসাইকেলের রীতিমতো পাহাড় তৈরি হয়েছ অনেক জায়গায়।
সবচাইতে জনপিয় অ্যাপ মোবাইলের ফ্লোরিয়ান বনেহ বলছেন, আরো গোছালো পদ্ধতি বেরকরা জন্য কাজ করছেন তারা। তিনি বলছেন, নতুন যেকোনো খাতে যেমন হয়, আমাদের এই উদ্যোগকে নিয়ে ব্যাপক উত্তেজনা রয়েছে। আমরা কাজ করতে করতে শিখছে কিন্তু কাজ শিখে ওঠার আগেই কেবলই জনপিয় হয়ে ওঠা এই ব্যবসা কি খুব দ্রুতই পড়তে শুরু করলো। ফ্লোরিয়ান বনেহ তা মনে করছেন না।
তিনি বলছেন, শহরের কর্তৃপক্ষ অবশ্যই আমাদের সমর্থন করছেন। কারণ বাইসাইকেল যানজট দুর করে, এটি দূষণ রোধ করে এবং একই সাথে এটি স্বাস্থ্যে জন্যেও উপকারী। কিন্তু কিভাবে এই ব্যবসাটি একটি নিয়মতান্ত্রিক কাঠামোর মধ্যে হবে সেটি করা আমাদের দায়িত্ব। যেমন তার একটা নমুনা হল রাস্তায় যত্রতত্র সাইকেল পার্ক করে গেলে ব্যবহারকারীদের অপরাধের জন্য শাস্তি আর নিয়মকানুন মেনে কাজ করলে তার জন্য পুরস্কার।
যেমন বিনামূল্যে রাইড অথবা মূল্যহ্রাস। কিন্তু যতদিন গোছালো পদ্ধতি তৈরি না হচ্ছে ততদিন রাস্তার ধারে জং ধরতে বসেছে হাজার হাজার বাইসাইকেল।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ