ঢাকা, রোববার 18 November 2018, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

খুলনায় বাস খাদে পড়ে নিহত ৫

খুলনা অফিস : খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলার বরাতিয়া এলাকায় যাত্রীবাহী একটি বাস খাদে পড়ে পাঁচজন নিহত হয়েছে।  এতে ১৫-২০জন আহত হয়েছে । আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কের ওই এলাকায় একটি বাসকে ওভারটেক করতে গিয়ে এ দুর্ঘটনাটি ঘটে।  নিহতদের মধ্যে তিনজনের নাম জানা গেছে। তারা হলেন-কয়রার কালনা গ্রামের শাহিনুর গাজী, মোস্তফা গাজী ও শরীফুল ইসলাম। 

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুপুর পৌণে একটার দিকে বাসটি (সাতক্ষীরা-জ ১৪-০০৮৮) অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে পাইকগাছা থেকে খুলনায় আসছিল। পথে খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কের ডুমুরিয়ার বরাতিয়া এলাকায় এলে একটি ট্রাককে সাইড দিতে গিয়ে খাদে পড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই পাঁচজন মারা যায়। বাসের সকলের কমবেশী আহত হয়েছে। বাসটিতে আসা অধিকাংশ যাত্রী ছিল শ্রমিক। তারা দিনমজুর হিসেবে খুলনায় কাজ করতে আসেন।

ডুমুরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাবিল হোসেন জানান, ‘দুর্ঘটনা কবলিত বাসটি কয়রা থেকে যাত্রী নিয়ে খুলনায় আসছিল। মৌমিতা পরিবহন নামের বাসটির নম্বর সাতক্ষীরা জ ০৪-০০৮৮। বাসটি বরাতিয়া এলাকায় পৌঁছালে ব্রেক ফেল হয়। এ সময় চালক বাসটির নিয়ন্ত্রণ হারায়। ফলে বাসটি পার্শ্ববর্তী খাদে পড়ে উল্টে যায়। স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় পুলিশ দুর্ঘটনা কবলিত যাত্রীদের উদ্ধার চালায়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সদস্যরাও উদ্ধার কাজে অংশ নেয়।’

তিনি জানান, ঘটনাস্থল থেকে পাঁচ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এদের মধ্যে তিন জনের পরিচয় জানা গেছে। তারা হলেন-কয়রা উপজেলার কালনা এলাকার ওহিদ গাজীর ছেলে শাহিনুর গাজী (৪০), কয়রা উপজেলা সদরের লুৎফর রহমানের ছেলে শারিফুল ইসলাম (৩৫) ও কয়রা সদরের মোস্তফা গাজী (৩৫)।

পুলিশের এই কর্মকর্তা আরও জানান, আহত অবস্থায় ১৫ জনকে উদ্ধার করে চুকনগর ও ডুমুরিয়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। উদ্ধারকৃত পাঁচটি লাশের অন্যগুলোর পরিচয় জানার চেষ্টা চলছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশগুলো খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ