ঢাকা, শুক্রবার 22 June 2018, ৮ আষাঢ় ১৪২৫, ৭ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

কোস্টারিকার বিপক্ষে জয়ের জন্যই মাঠে নামবে ব্রাজিল

ব্রাজিল       কোস্টারিকা

স্পোর্টস রিপোর্টার : রাশিয়া বিশ্বকাপে নিজেদের শুরুটা ভালো করতে পারেনি ফেভারিট ব্রাজিল। প্রথম ম্যাচেই ব্রাজিল ড্র করেছে সুইজারল্যান্ডেরর সাথে। প্রথম ম্যাচে পয়েন্ট হারানো ব্রাজিল আজ আবার মাঠে নামছে। আজকের প্রতিপক্ষ কোস্টারিকা। প্রথম ম্যাচে ব্রাজিল ড্র করলেও কোস্টারিকা প্রথম ম্যাচে হেরেছে সার্বিয়ার কাছে। ফলে টিকে থাকতে হলে এই ম্যাজে জয় চাই দু-দলেরই। ‘ই’ গ্রুপে এখন পর্যন্ত একটি করে ম্যাচ খেলে একমাত্র সার্বিয়াই জয় পেয়েছে। তবে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে কোস্টারিকার বিপক্ষে আজ জয়ের টার্গেট নিয়েই মাঠে নামবে ব্রাজিল। সেন্ত পিতার্সবুর্গ স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ছয়টায় ম্যাচটি শুরু হবে। প্রথম ম্যাচে পয়েন্ট খোয়ানোর কারণে চাপে থাকা ব্রাজিলের এখনো মূল ভরসা নেইমার। তবে ইনজুরির আশংকায় থাকা নেইমার যদি কোনো কারণে মাঠে নামতে ব্যর্থ হন তখন তার ভূমিকাটি বর্তাবে কুতিনহোর ওপর। তবে এখন পর্যন্ত ব্রাজিলকে বিশ্বকাপের লড়াইয়ে ফেরানোর জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন নেইমার। কোস্টারিকার বিপক্ষে জয় ছাড়া কিছু ভাবছেনা তারা। তাই আজ নেইমারকে নিয়ে মাঠে নামবে ব্রাজিল দল। যদিও প্রথম ম্যাচে সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেন নি বিশ্বের সবচেয়ে দামী ফুটবলার নেইমার। তবে ১-১ গোলে ড্র হওয়া ম্যাচে ১০ বার ফাউলের শিকার হয়েছেন নেইমার। বিশ্বকাপের বিগত ২০ বছরের ইতিহাসে কোনো একজন খেলোয়াড় এত ফাউলের শিকার হননি। এর পর গত মঙ্গলবার দলীয় অনুশীলনে যোগ না দেয়ায় নেইমারকে ঘিরে শংকা বাড়তে থাকে। তবে সেন্ত পিতার্সবার্গের আসন্ন ম্যাচের ৪৮ ঘন্টা আগে তিনি আবারো অনুশীলনে ফেরায় আপাতত স্বস্তি এসেছে সেলেকাও সমর্থকদের মাঝে। দীর্ঘ তিনমাস ইনজুরিতে কাটানো নেইমারকে নিয়ে এর আগমুহুর্ত পর্যন্ত ছিল চরম উৎকন্ঠা। পায়ের ভেঙ্গে যাওয়া হাড়ে অস্ত্রোপাচারের পর সুইজাল্যান্ডের বিপক্ষের ম্যাচটিই ছিল আনুমানিক চার মাসের মধ্যে নেইমারের প্রথম কোন প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে অংশগ্রহণ। গত ফেব্রুয়ারিতে প্যারিস সেন্ট জার্মেইয়ের হয়ে ক্লাব ফুটবলে অংশ গ্রহণের সময় এই গুরুতর ইনজুরিতে পড়েছিলেন নেইমার। তবে প্রথম ম্যাচে সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে ব্রাজিল সমর্থকরা নেইমারের চমক দেখতে চেয়েছিল। কিন্তু তাদের রক্ষণভাগে কেনোভাবেই ভাঙন ধরাতে পারেননি নেইমার। বরং ব্রাজিলের হয়ে শুরুতে প্রথম গোলটি করেছিলেন কুতিনহো। এই ম্যাচে যদি নেইমার পুরো ফিটনেস লাভ করতে ব্যর্থ হন তাহলে আবারো কুতিনহোকেই এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে ব্রাজিলকে। অবশ্য ব্রাজিলের বিশ্বকাপ জয়ের স্বপ্নটিও আবর্তিত হচ্ছে নেইমার ও কুতিনহোকে ঘিরে। শঙ্কা কাটিয়ে আবার ব্রাজিলের অনুশীলনে ফিরেছেন নেইমার। ফলে কোস্টারিকার বিপক্ষে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে তার খেলতে না পারা নিয়ে যে শঙ্কা জেগেছিল, আবার অনুশীলনে ফেরার মধ্যদিয়ে সেই শঙ্কা মুছে গেছে অনেকটাই। তাছাড়া নেইমার মুখের ভাষাতেই বুঝিয়ে দিয়েছেন, কোস্টারিকার বিপক্ষে তিনি খেলবেন। কোস্টারিকার বিপক্ষে ম্যাচটি সামনে রেখে পিএসজি তারকা সতীর্থদের সঙ্গে অনুশীলন করেছেন পুরো দমে। অনুশীলনে নেইমারের মধ্যে কোনো রকম জড়তা ছিল না বলেই জানা গেছে। যার অর্থ একটাই, কোস্টারিকার বিপক্ষে খেলতে তার কোনো সমস্যা নেই। তিনি খেলবেন। ব্রাজিলিয়ান ফুটবল কনফেডারেশনের কাছে দল নিয়ে আশার কথা জানালেন নেইমার, ‘আমি আশা করি সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচের চেয়ে দারুণ খেলব আমরা। জিততে চাই আমরা। আরও ভালো খেলতে চাই। কোস্টারিকার ভিডিও ফুটেজ আমরা দেখেছি। তবে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার আমাদের মতো করে খেলা।’ তবে ব্রাজিল জাতীয় দলের পক্ষ থেকে নেইমারের খেলার বিষয়ে নিশ্চিত ঘোষণা দেওয়া হয়নি। তবে ব্রাজিলের ফুটবল কনফেডারেশন নিজেদের অফিসিয়াল টুইটার পেজে একট পোস্টের মাধ্যমে নেইমারের অনুশীলনে ফেরার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। পোস্টটিতে নেইমারের অনুশীলনের ভিডিও আপ করেছে তারা। পোস্টের নিচে ক্যাপশনে লিখেছে, ‘সোচিতে এই বুধবার সে অনুশীলন করেছে। বিশ্বকাপের দ্বিতীয় ম্যাচের প্রস্তুতি হিসেবেই কঠোর অনুশীলন করে যাচ্ছে দল।’ ব্রাজিল ফুটবল কনফেডারেশনের এই টুইটই বলছে, নেইমারের খেলার বিষয়ে আত্মবিশ্বাসী তারা। নেইমারের কণ্ঠেও মাঠে নামার স্পষ্ট ইঙ্গতই। কোস্টারিকার বিপক্ষে ম্যাচটি নিয়ে কথা বলতে গিয়ে তিনি শুনিয়েছেন আত্মবিশ্বাসী গান। স্পষ্ট করেই বলেছেন, ‘আশা করি প্রথম ম্যাচের চেয়ে আমরা ভালো খেলব এবং জয় পাব। কোস্টারিকার খেলার ফুটেজ আমরা দেখেছি। তবে নিজেদের খেলাটা খেলতে পারাটাই গুরুত্বপূর্ণ। আমরা চেষ্টা করব সেরা খেলাটা খেলতে।’ নেইমারের এই কথাই প্রমাণ করে কোস্টারিকার বিপক্ষে খেলার ব্যাপারে তিনি অন্তত শঙ্কিত নন। নেইমারকে নিয়ে কুতিনহো বলেন, ‘নেইমার হচ্ছেন বিশ্বের সেরা ফুটবলারদের একজন। তিনি দলে থাকা মানে আমাদের জন্য ইতিবাচক দিক। তিনি খুবই গুরুত্বপুর্ন। সারাক্ষণ খেলার ক্ষেত্র সৃস্টি করে দেন।’ চার বছর আগে এই কোস্টারিকা ইংল্যান্ড, ইতালী ও উরুগুয়েকে হারিয়ে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে খেলেছিল। জয়ের মাধ্যমে নিজেদের চাপমুক্ত করার ম্যাচে ব্রাজিল পেয়েছে একটি শক্তিশালী প্রতিপক্ষ কোস্টা রিকাকে। যারা ১৯৬০ সালের পর ১০ মোকাবিলায় একবার মাত্র ব্রাজিলকে হারাতে পেরেছিল। তবে এবারের আসরের প্রথম ম্যাচে সার্বিয়ার কাছে ১-০ গোলে হেরে যাওয়ায় এই ম্যাচটিও তাদের জন্য বাঁচা-মরার লড়াইয়ে পরিণত হয়েছে। অবশ্য বিশ্বকাপের লড়াইয়ে নামার আগে অনুশীলন ম্যাচেও বেশ বড় ব্যবধানে বেলজিয়াম ও ইংল্যান্ডের কাছে হেরেছে কোস্টারিকা। তবে অধিনায়ক ব্রায়ান রুইজ মনে করেন সুইজারল্যান্ডের দৃস্টান্ত অনুসরণ করে তারাও আপসেট ঘটাতে পারবে। স্পোর্টিং লিসবনের এই স্ট্রাইকার বলেন, ‘সুইজারল্যান্ড মধ্যমাঠে ব্রাজিলকে চেপের রেখেছিল। সবাই জানে এই মধ্যমাঠ থেকেই ব্রাজিলের আক্রমণভাগের ভীত রচিত হয়। আমাদেরকে খুব দ্রুত বলের দখল নিতে হবে এবং প্রতি আক্রমণ রচনা করতে হবে।’

ব্রাজিল দল:

গোলরক্ষক : এলিসন (১), ক্যাসিও (১৬), এডারসন (২৩)

রক্ষণ ভাগ : ড্যানিলো (১৪), ফাগনার (২২), মার্সেলো (১২), ফিলিপে লুইস (৬), মিরান্ডা (৩), মারকুইনহোস (১৩), থিয়াগো সিলভা (২), জেরোমেল (৪)।

মধ্য মাঠ: ক্যাসেমিরো (৫), ফার্নান্দিনহো (১৭), পাওলিনহো (১৫), রেনাটো অগাস্টো (৮), ফ্রেড (১৮), ফিলিপ কুটিনহো (১১), টাইসন (২১), ডগলাস কস্তা (৭)।

আক্রমন ভাগ : নেইমার (১০), উইলিয়ান (১৯), গ্যাব্রিয়েল জেসুস (৯), রবার্তো ফিরমিনো (২০)। কোচ: তিতে

কোস্টারিকা:

গোলরক্ষক: কাইলর নাভাস (২১), প্যাট্রিক পেম্বারটন (১৮, লিওনেল মোরেইরা(২৩)।

রক্ষন ভাগ: ক্রিস্টিয়ান গাম্বোয়া (১৬), ইয়ান স্মিথ (৪), রোনাল্ড মাতারিতা (২২), ব্রায়ান ওভিডো (৮), অস্কার দুয়ার্তে (৬), জিয়ানকার্লো গঞ্জালেজ (৩), ফ্রান্সিসকো কালভো (১৫), কেন্ডাল ওয়াটসন (১৯), জনি এ্যাকোস্টা (২)।

মধ্য মাঠ: ডেভিড গুজম্যান (২০), ইয়েলতসিন তেইয়েদা (১৭), চেলসো বর্গেস (৫), র‌্যান্ডল আজোফেইফা (১৪), জোহান ভেনেগাস (১১), রন্ডি ওয়ালেচ (১৩), ক্রিস্টিয়ান বোলানোস (৭)।

আক্রমণ ভাগ: ড্যানিয়েল কলিন্ডার্স (৯), ব্রায়ান রুইজ (১০), জোয়েল ক্যাম্পবেল (১২), মার্কে উরেনা (২১)।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ