ঢাকা, শুক্রবার 22 June 2018, ৮ আষাঢ় ১৪২৫, ৭ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

নাইজেরিয়ার সামনে আজ আলোচিত আইসল্যান্ড 

স্পোর্টস রিপোর্টার : রাশিয়া বিশ্বকাপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে আজ মুখোমুখি হচ্ছে নাইজেরিয়া ও আইসল্যান্ড। গ্রুপ- ডি’র এই ম্যাচে নিজেদের টিকিয়ে রাখার মিশনে মাঠে নামবে দল দু’টি। শক্তির বিচারে আইসল্যান্ডের থেকে নাইজেরিয়া এগিয়ে থাকলেও ভয় আছে আইসল্যান্ডকে নিয়ে। কারণ নিজেদের প্রথম ম্যাচে হট ফেভারিট আর্জেন্টিনার সাথে ড্র করে পয়েন্টে ভাগ বসিয়েছে আইসল্যান্ড। ফলে প্রথম ম্যাচে ক্রোয়েশিয়ার কাছে হার দিয়ে শুরু করা নাইজেরিয়ার সামনে আজও কঠিন পথ। টিকে থাকতে হলে আজ দলটিকে জয়ী হতেই হবে। কিন্তু প্রথম ম্যাচে নিজেদের শক্তি প্রদর্শন করা আইসল্যান্ডও প্রস্তুত জয়ের জন্য। ফলে ম্যাচটা যে কঠিন ম্যাচ হবে তা বলাই যায়।

বাংলাদেশ সময় রাত নয়টায় ভলগোগ্রাদে ম্যাচটি শুরু হবে। প্রথম ম্যাচেই হট ফেবারিট আর্জেন্টিনাকে ১-১ গোলে রুখে দিয়ে সারা বিশ্বের আলোচনায় পরিণত হয়েছে আইসল্যান্ড। অন্যদিকে ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে ২-০ গোলে পরাজিত নাইজেরিয়া এই ম্যাচে জয় ভিন্ন অন্য কিছুই ভাবছে না। সুপার ঈগলস খ্যাত নাইজেরিয়ান কোচ গার্নট রোহর যে দল নিয়ে রাশিয়া এসেছে তা এবারের টুর্নামেন্টের সবচেয়ে ছোট বয়সী দলের রেকর্ড গড়েছে। দলের খেলোয়াড়দের গড় বয়স ২৫। বিশ্বকাপে সব মিলিয়ে এ পর্যন্ত খেলা ১৩টি ম্যাচে নাইজেরিয়ার জয়ের সংখ্যা মাত্র একটি। ২০১৪ বিশ্বকাপে নাইজেরিয়া নক আউট পর্বে উঠেছিল। চার বছর আগে ঐ ম্যাচে ফ্রান্সের কাছে পরাজিত হয় বিদায় হয় আফ্রিকান জায়ান্টদের। কিন্তু এবার ক্রোয়েটদের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে ২-০ গোলের পরাজয়ে বিশ্বকাপের শুরুটা ভাল হয়নি। ম্যাচে মিডফিল্ডার ওগেনেকারো এতেবোর আত্মঘাতি গোল ও লুকা মড্রিচের পেনাল্টিতে ক্রোয়েশিয়ার জয় নিশ্চিত হয়। মাত্র ১৯ বছর বয়সী গোলরক্ষক ফ্রান্সিস উজোহো প্রথম ম্যাচে মূলত নিজেকে মেলে ধরতে পারেনি। রোহর বলেন, ‘মাঝে মাঝে সেট পিসগুলোতে আমরা একেবারেই সাদাসিধে ছিলাম। যে কারনে তা কাজে আসেনি। এই বিষয়টি নিয়ে আমরা কাজ চালিয়ে যাচ্ছি।’ এদিকে লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনাকে আটকে দিয়ে আইসল্যান্ড যেন আত্মবিশ্বাসের তুঙ্গে রয়েছে। কোচ হেইমির হলগ্রিমসনও যেন পুরো বিষয়টি কিছুতেই বিশ্বাস করতে পারছেন না। মেসি অবশ্য ম্যাচের পরে অভিযোগ করে বলেছিলেন পুরো ম্যাচে আইসল্যান্ড মোটেই খেলতে চায়নি। কিন্তু এই ধরনের সমালোচনায় কর্ণপাত করতে নারাজ প্রথমবারের মত বিশ্বকাপের মূল মঞ্চে খেলতে আসা নরডিক মিনোসরা। মেসির পেনাল্টি আটকে দিয়ে সারা বিশ্বের নায়কে পরিণত হওয়া গোলরক্ষক হ্যাসেন হালডরসন বলেছেন, আমরা যদি আক্রমনাত্মক খেলতামও ৫-০ গোলে পরাজিত হতাম তবে হয়ত সে আরো বেশি খুশি হতো। সকলের আলাদা আলাদা মতামত থাকতেই পারে। কিন্তু এসব নিয়ে আমার মাথা ঘামাচ্ছি না। ৩৪ বছর বয়সী এই গোলরক্ষক আরো বলেছেন, ভোলগোগ্রাদে নাইজেরিয়ার বিপক্ষে ম্যাচটি হয়ত আরো কিছুটা উন্মুক্ত হবে। নাইজেরিয়াকে পরাজিত করা সহজ হবেনা। তারা বেশ দ্রুতগতির দল ও আর্জেন্টিনার থেকে তারা আরো বেশি সরাসরি খেলতে পছন্দ করে। 

বিভিন্ন দিক থেকেই এটা ভিন্ন একটি ম্যাচ হবে। রোহর বিশ্বাস করেন প্রতিদ্বন্দ্বীতামূলক গ্রুপটিতে তার দলের এখনো সামনে এগিয়ে যাবার সম্ভাবনা রয়েছে, ‘আমরা আইসল্যান্ডের থেকে মাত্র এক পয়েন্ট পিছিয়ে আছি। সব কিছুই আমাদের দখলে রয়েছে। সে কারণেই ইতিবাচক মানসিকতা নিয়েই আমরা খেলতে নামবো। ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে হারের থেকে আমরা শিক্ষা নিয়েছি ও ভাল কিছু করার চেষ্টা করছি। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ