ঢাকা, রোববার 24 June 2018, ১০ আষাঢ় ১৪২৫, ৯ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

তিউনিসিয়াকে হারিয়ে বেলজিয়াম দ্বিতীয় রাউন্ডে বেলজিয়াম

* বেলজিয়াম ৫ : তিউনিসিয়া ২
কামরুজ্জামান হিরু: বিশ্বকাপের দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলা নিশ্চিত করলো বেলজিয়াম। ‘জি’ গ্রুপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে তিউনিসিয়াকে ৫-২ গোলের সহজ পার্থক্যে হারিয়ে জয়ের ধারা অব্যাহত রেখেছে রেড ডেভিলরা। গত ম্যাচের মত এদিন ও আক্রমণভাগে জ্বলে উঠেছিলো হ্যাজার্ড, ডি ব্রুয়েন, মারটেন্স, লুকাকু। তাদের মুহুমুহু আক্রমণে রক্ষণভাগ নিয়েই ব্যস্ত সময় কাটাতে হয়েছে আফ্রিকান দেশটিকে। শক্তি সামর্থ্যে অনেক পিছিয়ে থাকলেও বেলজিয়ানদের সঙ্গে ভালোই লড়াই করেছে তিউনিসিয়া। যদিও রেড ডেভিলদের সঙ্গে শেষ পর্যন্ত আর পেরে ওঠেনি তারা। আক্রমণ পাল্টা আক্রমণে খেলা শুরু হলেও প্রথমার্ধে বেলজিয়াম ৩-১ গোলে এগিয়েছিল। বিজয়ী দলের আক্রমণ ভাগের ফুটবলার রোমেলু লুকাকু ও এডিন হ্যাজার্ড দু’টি করে গোল করেন। এ ছাড়া অপর গোলটি করেন বাতশুয়াই। অপরদিকে তিউনিসিয়ার পক্ষে ব্রন ও খাজরি গোল করে পার্থক্য কমিয়ে আনেন।
মস্কোর স্পার্টাক স্টেডিয়ামে জয়ের প্রয়োজনীয়তা নিয়েই মুখোমুখি হয়েছিলো বেলজিয়াম ও তিউনিসিয়া। গ্রুপের প্রথম ম্যাচে বেলজিয়াম ৩-০ গোলে পানামোকে হারিয়েছে। আর প্রথম ম্যাচে শক্তিশালী ইংল্যান্ডের বিপক্ষে শেষ সময়ের গোলে হেরেছিল তিউনিসিয়া। বেলজিয়ামের বিপক্ষে ম্যাচেও আফ্রিকান দলটির পারফরম্যান্স ছিল উজ্জ্বল। কিন্তু ম্যাচের শুরু থেকেই তিউনিসিয়ার রক্ষণভাগের দখল অনেকটাই নিয়ে নেয় বেলজিয়াম। ৫ মিনিটে পেনাল্টি গোলে এগিয়ে যায় ইউরোপের দেশটি। হ্যাজার্ডকে ডি বক্সের একদম লাইনে ফাউল করেন বেন ইউফেফ। রেফারি সঙ্গে সঙ্গে পেনাল্টির সিদ্ধান্ত দেন। স্পট কিক থেকে গোল করে দলকে প্রথমবারের মতো এগিয়ে দেন চেলসি তারকা এডিন হ্যাজার্ড। ম্যাচের ১৬ মিনিটে আবারো এগিয়ে যায় বেলজিয়াম। মার্টেনসের বাড়ানো বল দখলে নিয়ে ডি বক্সের সামান্য বাইরে থেকে কোণাকুণি শটে গোলটি করেন লুকাকু ২-০। কিন্তু এই গোলের ঠিক দুই মিনিট পরেই এক গোল শোধ দেয় তিউনিসিয়া। খাজরির সেট পিস থেকে দুর্দান্ত হেডে দলের হয়ে এক গোল শোধ দেন ব্রন। এক গোল দিয়ে বেশ উজ্জীবিত হয়ে খেলতে থাকে তিউনিসিয়া। প্রথমার্ধের অতিরিক্ত সময়ের তিন মিনিটের মাথায় মুনিয়ারের বাড়ানো ক্রসে গোলরক্ষকের মাথার উপর দিয়ে দারুণ ট্যাপ ইনে ম্যাচে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন লুকাকু। এই গোলের মাধ্যমে বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ গোলদাতার (৪ গোল) তালিকায় যুগ্মভাবে শীর্ষে উঠে আসলেন লুকাকু। ৩-১ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় বেলজিয়াম।
দ্বিতীয়ার্ধেও আক্রমণের ধারা অব্যাহত রেখে গোল ব্যবধান আরো বাড়িয়ে নেয় অল রেডরা। ৫১ মিনিটে অ্যাল্ডারওয়েল্ডের কাছ থেকে বল পেয়ে ম্যাচে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন এডিন হ্যাজার্ড ৪-১। ৭৬ মিনিটে ডি বক্সের ভেতর হ্যাজার্ডের পরিবর্তে নামা বাতশুয়াই গোলরক্ষককে পরাস্ত করে উন্মুক্ত গোলবারে শট নিলেও গোললাইন থেকে তা রক্ষা করেন। ৮০ মিনিটে আবারো গোলের সুযোগ নষ্ট করেন বাতশুয়াই। ডি বক্সের ভেতর কারাসকোর শট গোলরক্ষক রুখে দিলে রিবাউন্ড থেকে বল গোলবারে মারেন বাতশুয়াই। তবে শেষ পর্যন্ত আশাহত হননি বাতশুয়াই। ম্যাচের ৯০ মিনিটে গোলের দেখা পান তিনি। তেলেমানসের বাড়ানো দূরপাল্লার বাড়ানো ক্রসে দারুণ শটে গোল করেন বাতশুয়াই ৫-১। ম্যাচের অতিরিক্ত সময়ের শেষ মিনিটে তিউনিসিয়ার হয়ে আরেকটি সান্ত¡না সূচক গোল করেন খাজরি। ৫-২ গোলের জয়ে দ্বিতীয় রাউন্ড নিশ্চিত করলো বেলজিয়াম অন্যদিকে দুই হারে বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিল তিউনিসিয়া।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ