ঢাকা, রোববার 24 June 2018, ১০ আষাঢ় ১৪২৫, ৯ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট এক হাজারেরও বেশি প্রযুক্তি উদ্ভাবন করেছে

গাজীপুর সংবাদদাতা : বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বারি) এ পর্যন্ত বিভিন্ন ফসলের ৫১৩টি উচ্চ ফলনশীল (হাইব্রিডসহ),  রোগ প্রতিরোধক্ষম ও বিভিন্ন প্রতিকূল পরিবেশ প্রতিরোধী জাত এবং ৫০৫টি অন্যান্য প্রযুক্তিসহ এযাবৎ ১হাজার ৩৬টি প্রযুক্তি উদ্ভাবন করেছে। এ সকল প্রযুক্তি উদ্ভাবনের ফলে দেশে গম, তেলবীজ, ডালশস্য, আলু, সবজি, মসলা এবং ফলের উৎপাদন ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। শনিবার গাজীপুরস্থিত বারি’র কাজী বদরুদ্দোজা মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত বার্ষিক “অভ্যন্তরীণ গবেষণা পর্যালোচনা ও কর্মসূচি প্রণয়ন কর্মশালা-২০১৮” এর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এসব তথ্য জানানো হয়। 
উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বারি’র মহাপরিচালক ড. আবুল কালাম আযাদ এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. ফজলে ওয়াহেদ খোন্দকার। কর্মশালায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিলের নির্বাহী চেয়ারম্যান ড. মো. কবির ইকরামুল হক, বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন এর সদস্য পরিচালক (বীজ উদ্যান)  মো. মাহমুদ হোসেন এবং কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের পরিচালক (উদ্ভিদ সংরক্ষণ উইং) কৃষিবিদ অমিতাভ দাস।
উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. ফজলে ওয়াহেদ খোন্দকার গবেষণা কার্যক্রম পরিকল্পনা তৈরির ক্ষেত্রে বিভিন্ন দিকনির্দেশনা মূলক বক্তব্য প্রদান করেন। তিনি আবহাওয়া উপযোগী পুষ্টিমান সমৃদ্ধ ফসলের জাত উদ্ভাবনের জন্য বিজ্ঞানীদের বলেন।
উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বারি’র গবেষণা কার্যক্রম ও সাফল্যের ওপর সংক্ষিপ্ত উপস্থাপনা করেন বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের  পরিচালক (গবেষণা) ড.  মো. লুৎফর রহমান। অনুষ্ঠানে স¦াগত বক্তব্য রাখেন বারি’র পরিচালক ( সেবা ও সরবরাহ) ড. মো. আমজাদ হোসেন এবং ধন্যবাদ জ্ঞাপন বক্তব্য রাখেন বারি’র পরিচালক (প্রশিক্ষণ ও যোগাযোগ) ড. পরিতোষ কুমার মালাকার।
আয়োজকরা জানান, গত অর্থ বছর যে সকল গবেষণা কর্মসূচি হাতে নেয়া হয়েছিল সেগুলোর মূল্যায়ন এবং এসব অভিজ্ঞতার আলোকে আগামী বছরের গবেষণা কর্মসূচি প্রণয়নের উদ্দেশ্যে এ কর্মশালার আয়োজন করা হয়েছে। এ কর্মশালা চলবে আগামী ২আগস্ট পর্যন্ত। উদ্ভাবিত প্রযুক্তির উপযোগিতা যাচাই বাছাই ও দেশের বর্তমান চাহিদা অনুযায়ী প্রযুক্তি উদ্ভাবনের কর্মসূিচ গ্রহণ করাই এ কর্মশালার প্রধান উদ্দেশ্য।
এছাড়া কর্মশালায় অন্যান্যদের মধ্যে বিএআরআই এর অবসরপ্রাপ্ত মহাপরিচালকবৃন্দ, পরিচালকবৃন্দ, মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তাবৃন্দ, বিভিন্ন কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকবৃন্দ এবং সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠনের প্রতিনিধিসহ প্রায় ৫০০ জন বিশেষজ্ঞ বিজ্ঞানী উদ্বোধন অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ