ঢাকা, বুধবার 27 June 2018, ১৩ আষাঢ় ১৪২৫, ১২ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

পৌনে ৩ কোটি টাকা মূল্যের ৫৫ হাজার কেজির বেশি মধু উৎপন্ন

চাষির সাথি ফসল হিসেবে বাড়তি আয়ের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে

 মোহাম্মদ নুরুজ্জামান, রংপুর অফিস: চলতি রবি মওসুমে রংপুর বিভাগের ৫ জেলায় সরিষা ক্ষেতে মৌমাছির চাষ করে প্রায় পৌনে ৩ কোটি টাকার বেশি মূল্যের ৫৫ হাজার কেজির বেশি পরিমাণ মধু উৎপন্ন হয়েছে বলে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে। 

 এসব জেলায় বিভিন্ন সরিষা ক্ষেতে চাষির সাথি ফসল হিসেবে বাড়তি আয়ের সুযোগ সৃষ্টির লক্ষ্যে এই কর্মসূচি হাতে নেয়া  হয়। এই কর্মসূচির আওতায় ৫ হাজারের বেশি মৌ বক্স স্থাপনের লক্ষ্যমাত্রা ধরে ৩ হাজার ৩শ’র বেশি মৌমাছির বক্স স্থাপন কারা হয় । এর মাধ্যমে চাষিরা সাথি ফসল হিসেবে বাড়তি আয়ের সুযোগ তৈরি করতে পেরেছে। এই কর্মসূচরি আওতায় কুড়িগ্রাম এবং গাইবান্ধা জেলায় সবচেয়ে বেশি সাফল্য অর্জন হয়েছে। 

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, রংপুর বিভাগের রংপুর, কুড়িগ্রাম, গাইবান্ধা, লালমনিরহাট এবং নীলফামারী এই ৫ জেলায় চলতি রবি মওসুমে প্রায় সাড়ে ৩২ হাজার হেক্টর জমিতে সরিষা চাষ করা হয়েছে। এসব সরিষা ক্ষেতের মধ্যে প্রায় সাড়ে ৪ হাজার হেক্টর জমিতে মধু উৎপন্নের লক্ষমাত্রা নিয়ে ৫ হাজার  ৫৫ টি মৌমাছির বক্স স্থাপনের পরিকল্পনা করা হয়েছিল। এ সব সরিষা ক্ষেতে ৩ হাজার ৩১৪ টি মৌ বক্স স্থাপন করে এবারে ৫৫ হাজার ২০০ কেজির বেশি পরিমান মধু উৎপন্ন হয়েছে বলে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে। 

 এর মধ্যে কুড়িগ্রাম জেলায় ৩ হাজার ৪৬৯ হেক্টর সরিষা ক্ষেতে ২ হাজার ৪০১ টি মৌ বক্স স্থাপন করে ৫২ হাজার ৭৪০ কেজি, গাইবান্ধায় ৬৫০ হেক্টর সরিষা ক্ষেতে ৬০৩ টি মৌ বক্স স্থাপন করে ২ হাজার ৫০ কেজি, নীলফামারী জেলায় ১৩১ হেক্টর সরিষা ক্ষেতে ৩৯ টি মৌ বক্স স্থাপন করে ১৫৫ কেজি, রংপুর জেলায় ৫৬ হেক্টর সরিষা ক্ষেতে ৬৬ টি মৌ বক্স স্থাপন করে ১২০ কেজি এবং লালমনিরহাট জেলায় ২৫ হেক্টর সরিষা ক্ষেতে ২০৫ টি মৌ বক্স স্থাপন করে ৮৫ কেজি মধু উৎপন্ন হয়েছে।  

 মৌমাছি চাষে কৃষকদের সহায়তার জন্য কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর প্রয়োজনীয় কারিগরী সহায়তা প্রদান করেছে। মৌমাছি চাষের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট এলাকার চাষীরা সাথি ফসল হিসেবে বাড়তি আয়ের সুযোগ পেয়েছে। মৌমাছি চাষে সাফল্য অর্জিত হওয়ায় রংপুর বিভাগের ৫ জেলায় চলতি রবি মৌসুমে প্রায় পৌণে ৩ কোটির বেশি টাকা মূল্যের ৫৫ হাজার  কেজিরও বেশি মধু উৎপন্ন হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ