ঢাকা, বুধবার 27 June 2018, ১৩ আষাঢ় ১৪২৫, ১২ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

চাল আমদানিতে শূন্য মার্জিনে এলসি নয়

স্টাফ রিপোর্টার: ধানের ন্যায্য মূল্য নিশ্চিত করতে চাল আমদানির এলসিতে কড়াকড়ি আরোপ করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এতে চাল আমদানিতে শূন্য মার্জিনে ঋণপত্র খোলার সুযোগ রইলো না। একইসাথে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে আমানত সংগ্রহের চেষ্টা না করতে দেশের সব আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে নির্দেশ দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।
গতকাল মঙ্গলবার বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ এ সংক্রান্ত সার্কুলার জারি করেছে। এবং তা সব তফসিলি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে।
বাংলাদেশ ব্যাংকের মতে দেশে ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। কৃষক ও চাল উৎপাদকরা যেন ধানের ন্যায্য মূল্য পায় তা নিশ্চিতে চাল আমদানির ঋণপত্র (এলসি) খোলায় শর্ত জুড়ে দেয়া হয়েছে। এতে কৃষকরা লাভবান হবে।
কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনা অনুযায়ী, চাল আমদানির ক্ষেত্রে ঋণ ঝুঁকি বিবেচনায় ব্যাংকার-গ্রাহক সম্পর্কের ভিত্তিতে মার্জিনের হার নির্ধারণ করে ঋণপত্র খুলতে হবে। তবে কোনো অবস্থায় শূন্য মার্জিনে চালের ঋণপত্র খোলা যাবে না। ব্যাংকগুলোর কাছে এ নির্দেশনা পাঠিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এতদিন চাল আমদানিতে শূন্য মার্জিনে ঋণপত্র খোলার সুযোগ ছিল।
বিআরপিডি সার্কুলারে আরও বলা হয়েছে, সাম্প্রতিক সময়ে দেশের আবহাওয়া ধান চাষের অনুকূলে থাকায় চলতি বছর ধানের উৎপাদন সন্তোষজনক হয়েছে।
এ প্রেক্ষিতে কৃষক ও স্থানীয় চাল উৎপাদকদের ধান/চালের ন্যায্য মূল্য প্রাপ্তি নিশ্চিত করাসহ কৃষকদের ধান চাষে উৎসাহ প্রদানের লক্ষ্যে সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে। চাল আমদানির ক্ষেত্রে ঋণ ঝুঁকি বিবেচনায় ব্যাংকার-গ্রাহক সম্পর্কের ভিত্তিতে মার্জিনের হার নির্ধারণ করে ঋণপত্র খোলার জন্য পরামর্শ প্রদান করা হলো।
মোবাইলে আমানত সংগ্রহ না করার নির্দেশ:
একইদিনে বাংলাদেশ ব্যাংক মোবাইল ফোনের মাধ্যমে উচ্চ সুদহারে আমানত সংগ্রহের চেষ্টা না করতে দেশের সব আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে নির্দেশ দিয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও বাজার বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। দেশের সব আর্থিক প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহীর কাছে পাঠানো এই নির্দেশনায় বলা হয়, কতিপয় আর্থিক প্রতিষ্ঠান উচ্চ সুদহারে আমানত সংগ্রহের লক্ষ্যে পেশাজীবীসহ সমাজের বিভিন্ন স্তরের গ্রাহকের কাছে মোবাইল ফোনে মেসেজ পাঠাচ্ছে যা কাঙ্খিত নয় এবং কোনো কেনো ক্ষেত্রে বিব্রতকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হচ্ছে। এ ধরনের পরিস্থিতি এড়ানোর লক্ষ্যে এখন থেকে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে উচ্চ সুদহারে আমানত সংগ্রহের চেষ্টা থেকে বিরত থাকার জন্য সব আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে নির্দেশ দেয়া হলো। আর্থিক প্রতিষ্ঠান আইন-১৯৯৩ এর ১৮(ছ) ধারার ক্ষমতাবলে এ নির্দেশ জারি করা হলো।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ