ঢাকা, বুধবার 27 June 2018, ১৩ আষাঢ় ১৪২৫, ১২ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ঝিনাইদহ, সিরাজগঞ্জ ও বগুড়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় ৫ জন নিহত

সংগ্রাম ডেস্ক : গতকাল মঙ্গলবার ঝিনাইদহ, সিরাজগঞ্জ ও বগুড়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় ৫ জন নিহত এবং ১৮ জন আহত হয়েছে। 
বিডিনিউজ জানায়, ঝিনাইদহে বাসের সঙ্গে নসিমনের সংঘর্ষে তিন পান বিক্রেতা নিহত হয়েছেন। এ দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও সাতজন।
সদর থানার ওসি এমদাদুল হক শেখ জানান, গতকাল মঙ্গলবার সকালে সদর উপজেলার সাধুহাটি এলাকায় ঝিনাইদহ-চুয়াডাঙ্গা মহাসড়কে তারা হতাহত হন।
নিহতরা হলেন হরিণাকুণ্ডু উপজেলার কেষ্টপুর গ্রামের জাকের ম-লের ছেলে আব্দুল লতিফ (৫৫), একই গ্রামের দলু মন্ডলের ছেলে শাহিদুল ইসলাম (৪৫) ও সদর উপজেলার পান্তাপাড়া গ্রামের ইমান আলীর ছেলে রাহাজ উদ্দিন (৬০)।
আর আহত হয়েছেন কেষ্টপুর গ্রামের খোদা বক্সের ছেলে আব্দুল মমিন (৫৫), নুরুল মন্ডলের ছেলে কামরুল ইসলাম (৫০), আঈনুদ্দিনের ছেলে আব্দুল খালেক (৪৬), সাধুহাটি গ্রামের আওলাদ হোসেনের ছেলে আব্দুল সালাম (৪৫) ও পান্তাপাড়া গ্রামে আনোয়ারের ছেলে ছালাম হোসেনসহ (২৫) সাতজন।
ওসি এমদাদুল বলেন, পান বিক্রেতারা নসিমনে করে কেষ্টপুর থেকে চুয়াডাঙ্গার বদরগঞ্জ বাজারে যাচ্ছিলেন। পথে চুয়াডাঙ্গা থেকে ঝিনাইদহগামী ইএন পরিবহনের একটি বাসের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়।
“ঘটনাস্থলেই পান বিক্রেতা রাহাজ উদ্দিন নিহত হন। শাহিদুল ও লতিফ মারা যান ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায়।”
আহতদের মধ্যে মমিন ও খালেককে আশংকাজনক অবস্থায় ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, আর অন্যদের ঝিনাইদহ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।
দুর্ঘটনার পর পুলিশ বাসটি আটক করলেও চালক পালিয়ে গেছেন বলে তিনি জানান।
বিডিনিউজ আরো জানায়, সিরাজগঞ্জের কামারখন্দে যাত্রীবাহী বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বৈদ্যুতিক খুঁটির সঙ্গে ধাক্কা লেগে চালকের সহকারীর মৃত্যু হয়েছে; আহত হয়েছেন আরও অন্তত দশ জন।
সিরাজগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের উপ-সহকারী পরিচালক আব্দুল হামিদ জানান, গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে উপজেলার ভদ্রাঘাট বাজার এলাকার সিরাজগঞ্জ-নলকা সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।
হতাহতদের নাম-পরিচয় তাৎক্ষণিকভাবে জানাতে পারেনি পুলিশ।
আহতদের সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে ফায়ার সার্ভিস কর্মকর্তা আব্দুল হামিদ জানান।
তিনি বলেন, রয়েল ডাচ পরিবহনের একটি বাস সিরাজগঞ্জ থেকে রাজশাহী যাচ্ছিল। পথে চালাক নিয়ন্ত্রণ হারালে বাসটি রাস্তার পাশে একটি বিদ্যুতের খুঁটির সঙ্গে ধাক্কা খায়।
“এতে ঘটনাস্থলেই বাসের চালকের সহকারীর মৃত্যু হয়।” 
কামারখন্দ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাসুদ পারভেজ জানান, স্থানীয়দের কাছে খবর পেয়ে  পুলিশ গিয়ে হতাহতের উদ্ধার করে। বাসটি রাস্তায় পড়ে থাকায় সিরাজগঞ্জ-নলকা সড়কে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।
দুর্ঘটনাস্থল থেকে বাসটি সরিয়ে নিতে কাজ শুরু হয়েছে বলে এ পুলিশ কর্মকর্তা জানান।
আমাদের বগুড়া অফিস জানায়, বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার মোকামতলায় যাত্রীবাহী বাসের চাপায় হারুনুর রশিদ (৩৫) নামের এক মোটর সাইকেল চালক নিহত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে বগুড়া-রংপুর মহাসড়কের শিবগঞ্জের মোকামতলা পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের সামনে এ দূর্ঘটনা ঘটে। হারুনুর রশিদ শিবগঞ্জ উপজেলার পিরব গ্রামের সাদেক আলীর ছেলে। দূর্ঘটনায় আহত হয়েছেন মোটরসাইকেল আরোহী একই উপজেলার বুড়িগঞ্জ ইউনিয়নের আজারগাড়ী গ্রামের শহিদুল ইসলাম মধু (৩০)। তাকে স্থানীয় হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
স্থানীয়রা জানান, বগুড়া থেকে জয়পুরহাটগামী সিঁথি এন্টারপ্রাইজ (বগুড়া-ব-৪৬২০) নামের বাসের নিচে চাপা পড়ে মোটর সাইকেলটি দুমড়ে মুচড়ে গিয়ে ঘটনাস্থলেই হারুন মারা যান। মোকামতলা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ইন্সপেক্টর মিজানুর রহমান দূর্ঘটনায় হতাহতের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, দুর্ঘটনা কবলিত বাসটি আটক করা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ