ঢাকা, বুধবার 27 June 2018, ১৩ আষাঢ় ১৪২৫, ১২ শাওয়াল ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

কম্পিউটারের ধীর গতির ৫ সমাধান

নতুন কম্পিউটার কিছুদিন ব্যবহার করার পর ব্যবহারকারীরা বলে থাকেন, কম্পিউটারটি আর আগের গতিতে কাজ করছে না। গুরুত্বপূর্ণ কাজের সময় ধীর গতির কম্পিউটার কেউই পছন্দ করেন না। তবে কিছু ব্যাপারে একটু নজর দিলে কম্পিউটারের গতি স্বাভাবিক রাখা সম্ভব।
ম্যালওয়ার, ভাইরাস মুক্ত রাখুন
ম্যালওয়ার বা ভাইরাসের ক্ষেত্রে সব সময় সতর্ক থাকা উচিত। অনেক সময় বিনা কারণেই কম্পিউটারের গতি কমে যেতে পারে। আবার কোন ব্রাউজার চালু নেই, তবুও বিভিন্ন বিজ্ঞাপন বা সতর্ক বার্তা জানিয়ে আলাদা পেজ চালু হয়ে থকে। তখন বুঝতে হবে কম্পিউটারটি ম্যালওয়ারে আক্রান্ত হয়েছে। এ জন্য কম্পিউটারের অপারেটিং সিস্টেমের নিজস্ব যে অ্যান্টি-ভাইরাস সফটওয়্যার থাকে তা দিয়ে স্ক্যান করার পরামর্শ দিয়ে থাকেন বিশষজ্ঞরা।
অব্যবহৃত সফটওয়্যার বা ট্যাব বন্ধ করুন
প্রয়োজনের তাগিদেই অসুবিধার জন্য একসাথে অনেকগুলো সফটওয়্যার এবং ব্রাউজারে একাধিক ট্যাব ও ভিডিও বা চিত্র সম্পাদনার মতো বড় আকারের সফটওয়্যার একসাথে একাধিক চালু রাখলে স্বাভাবিকভাবেই কম্পিউটারের গতি কমে যায়। এ জন্য প্রয়োজনমাফিক একটু লক্ষ্য রেখে অব্যবহৃত সফটওয়্যার বা ট্যাব বন্ধ করে বেশ খানিকটা গতি বাড়িয়ে নেয়া সম্ভব।
র‌্যাম বাড়িয়ে নিন
স্বাভাবিক কাজের জন্য উইন্ডোজ ৮, ৮.১ বা ১০ অপারেটিং সিস্টেমে ৪ গিগাবাইট র‌্যাম যথেষ্ট। কিন্তু প্রয়োজনমাফিক ভিডিও বা চিত্র সম্পাদনার কাজ অথবা উচ্চতর নকশার কাজ করলে এতটুকু ধারণ ক্ষমতায় সফটওয়্যারগুলো ঠিকভাবে কাজ করতে পারে না। ফলে কম্পিউটারের গতি কমে যায়। এ জন্য কাজের ধরণ অনুযায়ী ৮ বা ১৬ জিবি র‌্যাম লাগিয়ে গতি বাড়ানো যাবে।
বড় আকারের ফাইল মুছে ফেলুন
বলা হয়ে থাকে নির্বিঘ্নে কাজ করার জন্য কম্পিউটারের ৫০ শতাংশ জায়গা ফাঁকা রাখা উচিত। আর অপারেটিং সিস্টেম ঠিকভাবে কাজ করার জন্য সি ড্রাইভে অন্তত ১০ শতাংশ জায়গা রাখা উচিত। এ জন্য কম্পিউটারে রাখা অপ্রয়োজনীয়, বড় ফাইলগুলো ডিলিট করে বা আলাদা বহনযোগ্য তথ্য ধারণ যন্ত্রে ফাইলগুলো পার করে নেয়া যেতে পারে। এতে কম্পিউটারের গতি কিছুটা বেড়ে যাবে।
অপারেটিং সিস্টেম হালনাগাদ করুন
এমনটি দেখা যায়, দীর্ঘদিন ধরে পুরোনো অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করে থাকেন কেউ কেউ।
এছাড়া বিভিন্ন কাজে ব্যবহৃত সফটওয়্যারগুলোও হালনাগাদ করেন না। এতে কম্পিউটারের গতি কমে যায। এ ক্ষেত্রে ‘ফ্যাক্টরি সেটিংস’ কাজে দিলেও কম্পিউটারের তথ্য হারিয়ে যাওয়ার ভয় থাকে।
এ জন্য নিয়মিত অপারেটিং সিস্টেম এবং সফটওয়্যারের হালনাগাদের মাধ্যমে কম্পিউটারের গতি অনেকটাই বেড়ে যাবে।
সূত্র : রিডারস ডাইজেস্ট

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ